Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৩ কার্তিক ১৪২৮, ১১ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ময়মনসিংহ সড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীদের অবস্থান কর্মসূচি

ঘাটাইল (টাঙ্গাইল)উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৯ জুলাই, ২০১৮, ৫:৪৫ পিএম

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে ধর্মীয় শিক্ষক কর্তৃক এক স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির প্রতিবাদে দুই ঘন্টা টাঙ্গাইল। গতকাল রোববার দুপুরে ঘাটাইল এসই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঘাটাইল কলেজ মোড় চত্বরে এ কর্মসূচি পালন করে।

পুলিশ ও শিক্ষার্থীরা জানায়, ঘাটাইল এসই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনীর যমুনা শাখার ছাত্রী বৃষ্টি আক্তার । সে উপজেলার ঘাটাইল পৌরসভাধীন চতিলা গ্রামের আফসার আলী খানের মেয়ে। একই বিদ্যালয়ের ধর্মীয় শিক্ষক মোঃ এনামুল হক । তিনি স্থানীয় সৃষ্টি নাইট কোচিং সেন্টারেও শিক্ষক। বৃষ্টি স্থানীয় এই কোচিং সেন্টারে এনামুলের তত্বাবধানে পড়ত। শ্লীলতাহানির শিকার ছাত্রীটির অভিযোগ শিক্ষক এনামুল তাকে মাঝে মাঝেই কুপ্রস্তাব দিত । গত ২৫ জুলাই ঘাটাইল বাজারস্থ কালী মন্দিরের পেছনে সৃষ্টি কোচিংয়ে পড়তে যায় সে। বেশ কিছু দিন আগে থেকেই শিক্ষক এনামুলের কুনজর পরে ঐ ছাত্রীর উপর। ছাত্রীটি ঘটনার রাতে অন্য সকল ছাত্র-ছাত্রীর মতোই স্বাভাবিকভাবে কোচিং ক্লাসে অংশ নেয়। কোচিং ক্লাস চলাকালিন সময় এনামুল পাশের একটি নির্জন কক্ষে তাকে ডেকে নিয়ে কুপ্রস্তাব দেয় । এক পর্যায়ে সে ছাত্রীটির গায়ে হাত দেয় এবং আরো কাছে পাওয়ায় আবদার করে। ছাত্রীটি শিক্ষকের এমন আচরণে ভীত সন্ত্রস্ত্র হয়ে পরে এবং বিষয়টি ঐ রাতেই তার বাবা-মা ও গ্রামবাসীকে জানায়।
এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল রোববার দুপুর ১ টা থেকে ৩টা পর্যন্ত দুই ঘন্টা টাঙ্গাইল- ময়মনসিংহ সড়ক অবরোধ করে রেখে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে শিক্ষার্থীরা। এ সময় দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। অবরোধকারীরা অভিযুক্ত শিক্ষককে বিদ্যালয় থেকে বহিস্কার সহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করে। পরে স্থানীয় প্রশাসন ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দৃষ্টান্তমূলক বিচারের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেয় শিক্ষার্থীরা।
এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা বুলবুলি বেগম জানান আমি বিষয়টি জানার পর ২৬ জুলাই ছাত্রীটির বাড়িতে যাই এবং তাদের অভিযোগ দিতে বলি । ছাত্রীটির অভিভাবক গত শনিবার লিখিত অভিয়োগ দিলে শিক্ষক এনামুলক হককে কারন দর্শানোর নোটিশ প্রদান করে তিন দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে এবং তাকে পাঠদান থেকে বিরত রাখা হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিলরুবা আহমেদ জানান, বিষয়টি আমি আজই অবগত হয়েছি । বিষয়টি তদন্ততের জন্য ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি ৫ কার্য দিবসের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন পেশ করবেন । তদন্ত রিপোর্টের পেক্ষিতে অভিযুক্ত শিক্ষককের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।
অভিযুক্ত শিক্ষক এনামুল হককে ফোনে একাদিক বার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অবস্থান কর্মসূচি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ