Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ৮ কার্তিক ১৪২৭, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধা

মুজিবনগর দিবস পালিত

প্রকাশের সময় : ১৮ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১১:৩৯ পিএম, ১৭ এপ্রিল, ২০১৬

স্টাফ রিপোর্টার : যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে ঐতিহাসিক মুজিব নগর দিবস। দিবসটি উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানান প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা
গতকাল সকালে ধানমন্ডি ৩২ নম্বর সড়কে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। মন্ত্রিসভার সদস্যরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর পর তিনি আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হিসেবেও দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানান। এরপর সেখানে কিছু সময় নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন তিনি। আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সহযোগী সংগঠন ও বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকেও পরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানো হয়।
মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলা গ্রামের আম বাগানে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে শপথগ্রহণ করে। এরপর থেকেই বৈদ্যনাথ তলা মুজিবনগর হিসাবে পরিচিত। অস্থায়ী সরকারের সফল নেতৃত্বে ৯ মাসের মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর স্বাধীনতা অর্জন করে বাংলাদেশ। দিনটি পালন করা হয় মুজিবনগর দিবস হিসাবে।
প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ফুল দেয়ার পর শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী হিসাবে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সময় দলীয় নেতাদের মধ্যে তোফায়েল আহমেদ, মতিয়া চৌধুরী, মোহাম্মদ নাসিম, ওবায়দুল কাদের, আব্দুর রাজ্জাক ও দীপু মনি তার সঙ্গে ছিলেন।
১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালরাতে নিরস্ত্র বাঙালির ওপর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বর্বরোচিত হামলার পর শুরু হয় বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ।
এরপর ১০ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে সার্বভৌম গণপ্রজাতন্ত্র রূপে বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠা ঘোষণা করা হয়। ২৬ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতা ঘোষণাকে দৃঢ়ভাবে সমর্থন ও অনুমোদন করা হয় সেই ঘোষণাপত্রে।
ঘোষণাপত্রে দেশের সংবিধান প্রণীত না হওয়া পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে প্রজাতন্ত্রের প্রেসিডেন্ট এবং সৈয়দ নজরুল ইসলামকে প্রজাতন্ত্রেও ভাইস প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করা হয়। এ ছাড়া তাজউদ্দিন আহমেদ অস্থায়ী সরকারের প্রধানমন্ত্রী, খন্দকার মোশতাক আহমেদ পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী অর্থমন্ত্রী এবং এএইচএম কামারুজ্জামান স্বরাষ্ট্র, ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রীর দায়িত্ব পান।
জেনারেল আতাউল গনি ওসমানী অস্থায়ী সরকারের মুক্তিবাহিনীর প্রধান কমান্ডার এবং মেজর জেনারেল আবদুর রব চিফ অব স্টাফ নিযুক্ত হন। ১৭ এপ্রিল সকালে মুজিবনগরে শপথগ্রহণের মাধ্যমে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার প্রতিষ্ঠা লাভ করে।
দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। ভোর ৬টায় বঙ্গবন্ধু ভবন, কেন্দ্রীয় ও দেশের সকল জেলা কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। মেহেরপুরের মুজিবনগরেও বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের নেতৃত্বে সেখানে শ্রদ্ধা জানানো হয়।



 

Show all comments
  • নিঝুম ১৮ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:১৯ পিএম says : 0
    দলমত নির্বিশেষে সকলের উচিত এই দিনটি পালন করা।
    Total Reply(0) Reply
  • Sabbir ১৮ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:২৩ পিএম says : 0
    ১০ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে সার্বভৌম গণপ্রজাতন্ত্র রূপে বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠা ঘোষণা করা হয়। ২৬ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতা ঘোষণাকে দৃঢ়ভাবে সমর্থন ও অনুমোদন করা হয় সেই ঘোষণাপত্রে।???????????????????????????????????
    Total Reply(0) Reply
  • লোকমান ১৮ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:২৪ পিএম says : 0
    অস্থায়ী সরকারের সকলকে শ্রদ্ধভরে স্বরণ করছি।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধা
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ