Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

চাঁদার জন্য মাদরাসা শিক্ষককে পেটাল সন্ত্রাসীরা

জমিয়াতুল মোদার্রেছীন নেতৃবৃন্দের তীব্র নিন্দা

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় চাঁদার টাকা না পেয়ে এক মাদরাসা শিক্ষককে বেধড়ক পিটিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এ সময় তার কাছ থেকে একটি মুঠোফোন, নগদ টাকা ও মাদরাসার কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র ছিনিয়ে নেয়া হয়। হামলার শিকার উপজেলার পারভবানীপুর গ্রামের বেগম শাহজাহান তালুকদার দাখিল মাদরাসার শিক্ষক মো. আব্দুল হান্নান। এদিকে ওই ঘটনার পরপরই থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তবে ঘটনায় জড়িতদের কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। উপজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের কলতাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ভুক্তভোগী শিক্ষক আব্দুল হান্নান জানান, প্রতিদিনের মতো গত রোববার সকালে মোটরসাইকেল যোগে মাদরাসায় যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে কালশিমাটি হাইস্কুলের সামনে পৌঁছলে কানুপুর গ্রামের দুলা ও তাহেরের নেতৃত্বে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী তার পথরোধ করে। এমনকি কোনো কিছু বোঝে উঠার আগেই তার ওপর হামলে পড়ে সন্ত্রাসীরা। একই সঙ্গে তাকে বেধড়ক মারপিট করে একটি মুঠোফোন, নগদ ৫০ হাজার টাকা ও মাদরাসার নবম শ্রেণির রেজিস্ট্রেশনের কাগজপত্র ছিনিয়ে নেয়। একপর্যায়ে তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। শিক্ষক আব্দুল হান্নান অভিযোগ করে বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে ওইসব সন্ত্রাসীরা তার কাছে মোটা অঙ্কের টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল। কিন্তু তাদের দাবিকৃত টাকা দিতে অস্বীকার করায় তার ওপর এই হামলা চালানো হয় তিনি বলে দাবি করেন।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শেরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শামীম আহমেদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, অভিযোগটি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এদিকে মাদরাসা শিক্ষককে মারপিটের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীন বগুড়া জেলা শাখার সভাপতি মাওলানা আব্দুল হাই বারী, স্থানীয় উপজেলা কমিটির সভাপতি মাওলানা শামছুদ্দিন, শেরপুর শহীদিয়া আলীয়া কামিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা হাফিজুর রহমান, আরবি প্রভাষক মোহাম্মদ আলী, ফুলবাড়ি হামিদিয়া দাখিল মাদরাসার সুপার মাওলানা আবু বকর ছিদ্দিকসহ একাধিক মাদরাসার সুপার ও শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ সমিতি গতকাল এক বিবৃতি দিয়েছেন। বিবৃতিতে শিক্ষক সমিতির নেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন এই সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জমিয়াতুল মোদার্রেছীন


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ