Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

মালয়েশিয়ার রায়ান এয়ার বন্ধ

প্রকাশের সময় : ১৯ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : ইসলামের বিধান মেনে চলার অঙ্গীকার করেই যাত্রী পরিবহন শুরু করেছিল রায়ান এয়ার। মদ নিষিদ্ধ ছিল বিমানে, যাত্রীদের দেওয়া হতো হালাল খাবার, বিমানবালাদের পরতে হতো হিজাব। তবে মালয়েশিয়ার সেই এয়ারলাইন্সটির কার্যক্রম আপাতত বন্ধ। শরিয়া আইন মেনে চলা মালয়েশিয়ার একমাত্র বিমান সংস্থা রায়ান এয়ারকে গতকাল সোমবার তিন মাসের জন্য কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়। শেষ মুহূর্তে ফ্লাইট বাতিল করা, যাত্রা শুরু করতে নিয়মিত বিলম্ব করা এবং বিমানচালকদের ধর্মঘটের কারণে বেসরকারি এই বিমান কর্তৃপক্ষকে এই নির্দেশ দিয়েছে মালয়েশিয়ার বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ। ফলে মাত্র চার মাসের মাথায় কার্যক্রম বন্ধ রাখতে বাধ্য হলো রায়ান এয়ার। গত ডিসেম্বরে দুটি বিমান নিয়ে মালয়েশিয়ার মুসলিম অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে যাত্রী পরিবহন শুরু করে রায়ান এয়ার। সরকারি নির্দেশে আপাতত কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও বেসরকারি বিমান সংস্থাটি ফেসবুকে জানিয়েছে, অভ্যন্তরীণ সমস্যাগুলো কাটিয়ে শিগগিরই আবার যাত্রী পরিবহন শুরু করা হবে। ইসলামি আইন মেনে যাত্রী সাধারণকে উন্নত সেবা দানের অঙ্গীকার করলেও রায়ান এয়ার ছমাসও ঠিকভাবে যাত্রীসেবা দিতে পারেনি। বিমানে মদ ছিল নিষিদ্ধ, সব যাত্রীকে ইসলামি শরিয়ত অনুযায়ী হালাল খাবার দেয়া হতো, সব মুসলিম ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্টের জন্য হিজাব পরা বাধ্যতামূলক ছিল, পরতে হতো শালীন পোশাক। এসব কারণে শুরু থেকেই সংবাদমাধ্যমের নজর কাড়ে রায়ান এয়ার। উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ৮ মার্চ ২৩৯ জন যাত্রী নিয়ে বেইজিংয়ের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরুর কিছুক্ষণ পরই এমএইচ৩৭০ ফ্লাইটের বিমান নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে মালয়েশিয়ার বিমান পরিবহন ব্যবসায় মন্দা চলছে। ঐ বিমান নিখোঁজ হওয়ার ছয় মাস পরে রহস্যজনকভাবে পূর্ব ইউক্রেনে ঢুকে পড়ে মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের আরেকটি বিমান। এএফপি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ