Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ০৬ এপ্রিল ২০২০, ২৩ চৈত্র ১৪২৬, ১১ শাবান ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

বেনাপোল কাস্টমস ও ইমিগ্রেশন দালালমুক্ত

৫৬ কোটি ৫৯ লাখ টাকার রাজস্ব আদায়

বেনাপোল থেকে মহসিন মিলন | প্রকাশের সময় : ৬ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০২ এএম

স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর অবশেষে বেনাপোল চেকপোস্ট আন্তর্জাতিক কাস্টমস ও পুলিশ ইমিগ্রেশনকে দালালমুক্ত করা হলো। ১ আগস্ট থেকে ভারত গমনাগমনকারী পাসপোর্ট যাত্রী হয়রানি বন্ধে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে কাস্টমস ও ইমিগ্রেশন অফিস। ফলে পাসপোর্ট ছাড়া কোটি ব্যক্তিকে কাস্টমস ও ইমিগ্রেশন প্যাসেঞ্জার টার্মিনালে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না।
বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরীর সাহসী প্রদক্ষেপের কারণে কাস্টমস ও ইমিগ্রেশনকে দালালমুক্ত করতে প্যাসেঞ্জার টার্মিনালে বসানো হয়েছে অত্যাধুনিক স্ক্যানিক মেশিন এবং জোরদার করা হয়েছে যাত্রীদের নিরাপওা ব্যবস্থা। বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট দিয়ে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ১১ লাখ ৩১ হাজার ৮৫০ জন পাসপোর্টধারী যাত্রী ভারত-বাংলাদেশ যাতায়াত করেছে। এ সব যাত্রীদের কাছ থেকে বেনাপোল সোনালী ব্যাংক বিদেশে ভ্রমণ কর বাবদ রাজস্ব আদায় করেছে ৫৬ কোটি ৫৯ লাখ ২৫ হাজার টাকা।
গোটা কাস্টমস ও ইমিগ্রেশন এলাকায় বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা, যাত্রীদের বিশ্রামাগার, শীততাপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা ও প্রতি রোজায় পাসপোর্ট যাত্রীদের জন্য রাখা হয়েছে ফ্রি ইফতারের ব্যবস্থা। বহির্গমন ও আগমনের জন্য যাত্রীদের পৃথক ব্যবস্থা করা হয়েছে স্টিলের মনোরম রেলিং দিয়ে। টার্মিনালের প্রধান ফটকে বন্দরের নিরাপওা কর্মী, আনসার সদস্য ও কাস্টমস অফিসারদের সার্বক্ষনিক নজরদারি বৃদ্ধি করায় প্রবেশ করতে পারছে না পাসপোর্ট দালালেরা। চেকপোস্ট দিয়ে ভারত গমনাগমনকারী পাসপোর্ট যাত্রী সংখ্যাও বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে প্রতিদিন বেনাপোল দিয়ে তিন-চার হাজার বাংলাদেশি পাসপোর্ট যাত্রী ভারতে যাতায়াত করছে। ইমিগ্রেশন ও কাস্টমস কর্তৃপক্ষ তাদের সেবার মান বৃদ্ধি করায় যাত্রীরা দ্রুত ও সুশৃঙ্খলভাবে সব ধরনের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করতে পারছেন।
বেনাপোল কাস্টমস সুত্র জানায়, দির্ঘদিন ধরে বেনাপোল চেকপোস্টে এক শ্রেণির লোক দূরদূরান্ত থেকে আসা পাসপোর্ট যাত্রীদের নানাভাবে হয়রানি করে আসছিল। তাদের পাসপোর্ট সিরিয়াল ছাড়া দ্রুত করে দেয়ার নাম করে টাকাা হাতিয়ে নিচ্ছিল। বিষয়টি পাসপোর্ট যাত্রীরা কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরীকে অভিযোগ করলে তিনি কাস্টমস ও ইমিগ্রেশনকে দালালমুক্ত করার ঘোষণা দেন। যাত্রীদের সেবার মান উন্নত করতে চেকপোস্ট প্যাসেঞ্জার টার্মিনালের বহিরাগত দালাল উৎখাতে এই ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। যাতে টার্মিনাল এলাকায় বহিরাগত কোনো দালাল ঢুকতে না পারে সে জন্য প্রতিনিয়ত মাইকিং করা হচ্ছে। দালালদের কাছে পাসপোর্ট না দেয়ার জন্য মাইকে বারবার সতর্ক করা হচ্ছে।
বেনাপোল চেকপোস্ট পুলিশ ইমিগ্রেশন’র ওসি তরিকুল ইসলাম জানান, পূর্বের তুলনায় এ পথে দ্বিগুণ যাত্রী যাতায়াত করায় সরকারের রাজস্বও বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতিদিন বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে প্রায় তিন-চার হাজার লোক যাতায়াত করে ভারতে। আগের তুলনায় প্রায় দুই থেকে তিন হাজার যাত্রী বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে প্রতিমাসে চার কোটি ৫০ লাখ টাকার রাজস্ব আদায় হচ্ছে বিদেশ ভ্রমণ কর থেকে।
বেনাপোল চেকপোস্টে কোনো প্রকার পাসপোর্টযাত্রী হয়রানি যাতে না হয় সে জন্য দালালমুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে। ঝামেলামুক্তভাবে যাত্রীরা যাতে ভারত যাতায়াত করতে পারে সে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে তিনি জানান। বর্তমানে প্রতিটি যাত্রীকে সিরিয়ালে দাঁড় করিয়ে তাদের পাসপোর্টের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করা হচ্ছে। দালাল ও বহিরাগতরা যাতে ইমিগ্রেশনে ঢুকতে না পরে সেজন্য প্রবেশ মুখেই কঠোরভাবে নিরাপওা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে।
ঢাকার আনিসুর রহমান নামে ভারতগামী একজন পাসপোর্ট যাত্রী জানান, বেনাপোল পুলিশ ইমিগ্রেশন দ্রুত পাসপোর্ট সীল মেরে ভারতে যাওয়ার অনুমতি দিলেও ভারতে গিয়ে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়াতে হচ্ছে। যদিও ভারতের পুলিশ ইমগ্রেশনে কাউন্টার সংখ্যা বৃদ্ধিসহ লোকবলও বাড়ানো হয়েছে। বাংলাদেশি পাসপোর্ট যাত্রীরা নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছে ভারতের কাস্টমস কাউন্টারে জোর করে যাত্রীদের কাছ থেকে আদায় করা হচ্ছে অবৈধ অর্থ। সেখানে যাত্রীদের কোনো বিশ্রমাগার না থাকায় রোদ বৃস্টিতে ভিজে পুড়ে তিন-চার ঘণ্টা অপেক্ষা করায় অনেকে যাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ছে বলে যাত্রীরা অভিযোগ করেন।
বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী জানান, বর্তমানে চেকপোস্ট কাস্টমস ও ইমিগ্রেশনকে দালাল মুক্ত করা হয়েছে। তবে এটি বাস্তবায়ন করতে যথেষ্ট চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হযেছে। কোনো প্রকার হয়রানি ছাড়া নিরাপদে যাত্রীরা ভারত গমনাগমন করছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইমিগ্রেশন

৩০ জানুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন