Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

তিতাসের এসিল্যান্ড পদ শূন্য

তিতাস (কুমিল্লা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১০ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০৪ এএম

কুমিল্লার তিতাস উপজেলা ভূমি অফিস গত এক বছর ধরে এসিল্যান্ড (সহকারী কমিশনার ভূমি) শূন্য রয়েছে। ফলে ভূমি দপ্তরটিতে অফিসিয়াল কাজকর্মের গতি হারাচ্ছে অপরদিকে জমি-জমা নিয়ে এলাকার সর্বত্র বিরোধ আশংঙ্কাজনকভাবে বেড়ে গেছে। বর্তমান ইউএনও মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন তিতাতে যোগদান করার পর থেকে প্রতিটি দপ্তরে আগের তুলনায় অনিয়ম ও দুর্নীতি কমে যায় এবং কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যে ফিরে আসে কর্মচাঞ্চল্য। কিন্তু এখানকার ইউনিয়ন ভূমি অফিসের অনিয়ম এতটুকু কমেনি। এসব অনিয়মের জন্য ভূক্তভোগিরা সংশ্লীষ্ট ইউনিয়ন ভূমি অফিস কর্তা তহসিলদারকে দায়ি করে বলেছেন, তিনি ইচ্ছা করেই জমি-জমার বিরোধ লাগিয়ে রাখছেন। এসিল্যান্ড না থাকার কারণে ইউনিয়ন ভূমি অফিসগুলো যেন দুর্নীতির আকড়ায় পরিনত হয়েছে। দালালদের উৎপাত বেড়ে গেছে তহসিলদার অফিসগুলোতে।
বর্তমান ইউএনও ( তিতাস উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা) মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন গত বছরের ১২ সেপ্টম্বর তিতাতে যোগদান করার পর এখানকার প্রতিটি দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যে কর্মচাঞ্চল্য ফিরে আসে। বিগত দিনগুলোর তুলনায় অনিয়ম অনেকাংশ কমে যায়। দক্ষ ও করিৎকর্মা বর্তমান ইউএনও আলমগীর হোসেনের নিখুত কর্ম পরিকল্পনার ফলে তিতাসে দুর্নীতি নাই বললেই চলে। তিনি বর্তমানে এসিল্যান্ড পদেরও দায়িত্বও পালন করছেন। দুর্নীতিবাজ কতিপয় তহসিলদারদের ও ইউনিয়ন ভুমি অফিসের প্রতি তদারকি করার জন্য এলাকাবাসী ইউএনও’র প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন। এলাকবাসী মনে করছেন, সুযোগ্য ইউএনও স্যার ইউনিয়ন ভূমি অফিসগুলোতে একটু সু-নজর দিলে হয়ত এখানকার অন্যান্য দপ্তরগুলোর মত এখানেও সচ্ছতা ফিরে আসবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ