Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৩ বৈশাখ ১৪২৬, ১৯ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

কিশোরীদের পারফরমেন্সে খুশি কোচ ছোটন

স্পোর্টস রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ১১ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

সাফ অনুর্ধ্ব-১৫ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে ‘বি’ গ্রæপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানকে গোলবন্যায় ভাসিয়েছে টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার ভুটানের রাজধানী থিম্পুর চাংলিমিথাং স্টেডিয়ামে আসরের উদ্বোধনী দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে শামসুন্নাহারের হ্যাটট্রিকে বাংলাদেশ ১৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করে পাকিস্তানকে। ম্যাচের শুরু থেকে শেষ পর্যন্তই মাঠে উজ্জ্বল ছিল বাংলাদেশের কিশোরীরা। চ্যাম্পিয়নরা চ্যাম্পিয়নদের মতই খেলেছে। ম্যাচের পুরোটা সময় পাকিস্তানের উপর ছড়ি ঘুরিয়েছেন শামসুন্নাহার, মারিয়া মান্ডা, মনিকা চাকমারা। ম্যাচে শামসুন্নাহার হ্যাটট্রিকসহ ৪টি, তহুরা খাতুন, সাজেদা খাতুন ও আনাই মোগিনি দু’টি করে এবং ডিফেন্ডার শামসুন্নাহার, মনিকা চাকমা, অধিনায়ক মারিয়া মান্ডা ও আঁখি খাতুন একটি করে গোল করে দেশকে বিশাল জয় এনে দেন। প্রথম ম্যাচে মেয়েদের এই নজরকাড়া পারফরমেন্সে দারুন খুশি বাংলাদেশ কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন।
টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন হিসেবে দাপুটে শুরুর পর উচ্ছ¡সিত কোচ ছোটন শিষ্যদের খেলার প্রশংসা করেন। তিনি বলেন,‘পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে আমাদের খেলোয়াড়েরা চমৎকার খেলেছে। তারা পুরো ৯০ মিনিট আধিপত্য বিস্তার করে খেলে প্রতিপক্ষকে নাস্তানাবুদ করেছে। আমি মেয়েদের খেলার ধরণে খুশি। তারা ম্যাচে নিজেদের সর্বোচ্চটা দিয়েছে। টুর্নামেন্টের আগে দেশে সাত মাসের অনুশীলনে এই ফল এসেছে।’ হ্যাটট্রিকসহ চার গোল করে দলের বড় জয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পেরে খুশি মিডফিল্ডার শাসমুন্নাহার। আসরে টানা দ্বিতীয় শিরোপা জিততে চান তিনি। তার কথা,‘পাকিস্তানের বিপক্ষে বড় ব্যবধানে ম্যাচ জেতায় এবং চার গোল করতে পেরে আমি ভীষণ খুশি। কোচ অনুশীলনে আমাদেরকে যা শিখিয়েছেন, তা মাঠে আমরা প্রয়োগ করতে পেরেছি। এ জন্য কোচকে ধন্যবাদ। আমি তার নির্দেশনা অনুযায়ী খেলেছি। হংকংয়ে আমি যেটা করতে পেরেছিলাম, ভুটানেও তা করতে চাই। এখানেও দলকে চ্যাম্পিয়ন করাতে চাই।’ গোলরক্ষক মাহমুদা আক্তার বলেন,‘পাকিস্তানকে বড় ব্যবধানে হারাতে পেরে আমরা খুবই খুশি। নিজেদের পরিকল্পনা মত খেলেছি বলেই বিশাল জয় এসেছে। এখন আমাদের চোখ দ্বিতীয় ম্যাচের দিকে। এ ম্যাচে নেপালকে হারিয়ে শিরোপা জয়ের পথে এগিয়ে যেতে চাই। দ্বিতীয় ম্যাচেও আমরা নিজেদের সেরাটাই মাঠে ঢেলে দেব।’
প্রথম ম্যাচে দাপুটে জয় পেয়ে গতকাল বেশ ফুরফুরে মেজাজে ছিলেন বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা। এদিন তারা মাঠের অনুশীলনে না থাকলেও থিম্পুর রাস্তায় দৌড়ে এবং হালকা ব্যায়াম করে সকালের প্রথম সেশন কাটিয়েছেন। দুপরে দ্বিতীয় সেশনে লাল-সবুজের কিশোরীরা হোটেল জিম করে সময় কাটান। এবং বিকালে তারা শহর ঘুরতে বের হন। পরে রাত ৮টায় টিম মিটিংয়ে অংশ নেন মারিয়া মান্ডা-মনিকা চাকমারা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কিশোরী

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
৬ জানুয়ারি, ২০১৯
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ