Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ১২ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

আউট পাস নিতে প্রবাসীদের চরম দুর্ভোগ

আমিরাতে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা

ছালাহউদ্দিন, আরব আমিরাত থেকে : | প্রকাশের সময় : ১২ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০২ এএম

আরব আমিরাত সরকারের ঘোষিত ১ আগষ্ট থেকে শুরু হওয়া তিন মাসের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণায় প্রতিদিন আউট পাস নিতে আসা প্রবাসী বাংলাদেশিরা প্রচুর ভিড় জমাচ্ছেন দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেটে। এতে প্রচন্ড হিমশিম খেতে হচ্ছে কনস্যুলেটের কর্মকর্তাদের। অপরদিকে প্রচন্ড গরমের মধ্যে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করেও আউট পাস সংগ্রহ করতে না পারা, দীর্ঘ লাইনে অপেক্ষয়মান থাকা। কোন টেবিলে কোন কাজটি করাবেন তা বুঝিয়ে দিয়ে সহযোগিতা করার মতো লোক না থাকা এবং কনস্যুলেটের বাইরে পর্যাপ্ত পরিমাণে সামিয়ানার ব্যবস্থা না থাকায় প্রখর রোদের মধ্যে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন প্রবাসীরা।
আউট পাস নিতে আসা ভুক্তভোগীরা জানান, একদিকে তাদের আউট পাস সংগ্রহ করতে কষ্ট হচ্ছে। অন্যদিকে কনস্যুলেটের কোন রুমে বা কোন কর্মকর্তার কাছে গিয়ে কাজটা করাবেন সে দিক নির্দেশনা পাওয়ার মতো বাইরে সাহায্য-সহযোগিতা করার কোন লোকও খুঁজে পাচ্ছেন না তারা। এতে তাদের চরম বিড়ম্বনার শিকার হতে হচ্ছে। এ ব্যাপারে দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেটের শীর্ষ পর্যায়ের এক কর্মকর্তা জানান, লোকবল কম থাকায় প্রতিদিন আউট পাস ও পাসপোর্ট নবায়নসহ বিভিন্ন কাজে আসা সহস্রাধিক লোকের উপস্থিতি ঘটার কারণে সেবা দিতে গিয়ে প্রচন্ডভাবে হিমশিম খেতে হচ্ছে। তবে কনস্যুলেটে সেবা নিতে আসা লোকদের যাতে কোন অসুবিধা না হয় সেদিকে খেয়াল রেখে কর্মকর্তাগণ আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলেও জানান তিনি।
তবে আউট পাস নিতে আসা প্রবাসীরা জানান, আমিরাত সরকার অবৈধ অভিভাবাসীদের দেশে ফিরে যাওয়ার ব্যবস্থায় আউট পাস এবং ভিসা বৈধ করণের সুযোগ করে দেয়ায় খুশি তারাও।
উল্লেখ্য, অবৈধ অভিভাসীদের মধ্যে যারা নিয়োগ ভিসা লাগিয়ে বৈধ হবেন তাদের ক্ষেত্রে ক্ষমা ঘোষণার তিন মাসসহ মোট ছয় মাসের অস্থায়ী ভিসা দেয়া হবে। এই সময়ের মধ্যে তারা সকল প্রকার জরিমানা ছাড়া কোথাও ভিসা লাগানোর ব্যবস্থা করতে পারবেন। এরপর আর কোন সুযোগ থাকবেনা। মেয়াদ শেষে তখন বাধ্য হয়ে তাদেরকে দেশেই ফিরে যেতে হবে। এছাড়া যেসব লোক অন্য কোন দেশ থেকে অপরাধ-কর্মকান্ড করে পালিয়ে আমিরাতে এসেছেন অথবা এদেশটিতে এসেও অপরাধ-কর্মকান্ড করে দন্ডিত অবস্থায় রয়েছেন ভিসা বৈধ করণে এমন লোকদের ক্ষেত্রে দু’বছরের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এতে করে তাদেরকে আউট পাস নিয়েই দেশে ফিরে যেতে হবে। তবে এসব লোক দেশে ফিরে গেলেও দু’বছর পর তারা আবার আমিরাতে আসতে পারবেন।
কনস্যুলেটের ওই কর্মকর্তা আরো বলেন, আমিরাত সরকারের ১ আগষ্ট থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত তিন মাসের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণার এমন অপূর্ব সুযোগটি হাতছাড়া করা ঠিক হবেনা। তাই এ দেশটিতে অবৈধভাবে থাকা প্রবাসী বাংলাদেশিরা এ সুযোগটি গ্রহণ করে ভিসা বৈধ করণ অথবা দেশে ফিরে গেলে তাতে উজ্জল হবে দেশের ভাবমূর্তিও।

প্রবাস জীবন বিভাগে সংবাদ পাঠানোর ঠিকানা
probashjibon.inqilab@gmail.com



 

Show all comments
  • বশির ১২ আগস্ট, ২০১৮, ৩:৩০ এএম says : 0
    এ সুযোগ দেয়ায় আরব আমিরাত সরকারকে ধন্যবাদ
    Total Reply(0) Reply
  • কাজল ১২ আগস্ট, ২০১৮, ৩:৩১ এএম says : 0
    দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেটের উচিত যতটা সম্ভব সেবা দেয়া
    Total Reply(0) Reply
  • আবু আব্দুল্লাহ ১২ আগস্ট, ২০১৮, ১১:৫২ পিএম says : 0
    আউট পাসের জন্য সব চেয়ে বড় সমইস্সা সেটা হল, পুলিশ রিপোর্ট এরাবিক হইতে ইংলিশ তরজুমা করা পুলিশ রিপোর্ট এরাবিক ভাষায় তরজুমা করতে পারে সে রকম শত শত বাংলাদেশী টাইপিং সেন্টার দুবাই শহরে আছে, কিন্ত বাংলাদেলসি টাইপিং সেন্টার হইতে তরজুমা করা কপি গ্রহণ করা হয়না, তাদের কে আবার পাটিয়ে দেওয়া হয় ইন্ডিয়ান বা ভিনদেশি টাইপিং সেন্টার গুলিতে, ফুজিরা, রাসআল খাইমা, বা মফস্সল এলাকা হইতে আসা লোক গুলি ইন্ডিয়ান বা ভিনদেশি টাইপিং সেন্টার গুলি কোথায় আছে কেউ জানেনা, সারা দিন গুরা ফেরা করে টাইপিং সেন্টারের খুজ না পায়ে তারা আবার গ্রামে ফিরে যায়, শহরে কারো আপন কেউ থাকলে তাহারা তাদের সাহায্যই কেও খুজ পেলে পেলো, বাকিরা এ ভাবে গুঁড়া ফেরায় দিন শেষে নিজ স্থানে ফেরা, এ ভাবে মানুষের কষ্টের শেষ নাই আমাদের প্রশ্ন হল বাংলাদেশী টাইপিং সেন্টার গুলি হইতে টাইপিং করাতে আসুভিদা কোথায় ? এতে তু অনেক সহজ হয়ে যায়, কনসুলেটের পাশেই বাংলাদেশী টাইপিং সেন্টার রয়েছে , আর দুবাই বাংলা বাজারে অনেক গুলি বাংলাদেশী সেন্টার রয়েছে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ