Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ০৩ আগস্ট ২০২০, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ১২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

বিতর্কিত মন্তব্য করে কলকাতায় তোপের মুখে অমিত শাহ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ আগস্ট, ২০১৮, ৪:০১ পিএম

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দুর্নীতিবাজ বলায় বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ক্ষমা চাইতে বলেছে রাজ্যটির ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল। অন্যথায় তার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেয়ার হুশিয়ারি দেয়া হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতায় গত শনিবার বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন বলে তৃণমূলের অভিযোগ। দলটির সর্বভারতীয় মুখপাত্র ডেরেক ও’ব্রায়েন শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, অমিত শাহ ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ক্ষমা না চাইলে অবশ্যই আমরা আইনি পদক্ষেপ নেব।

তিনি বলেন, ‘অমিত শাহ বাংলাকে অপমান ও অসম্মান করেছেন। বাংলার সভ্যতা, বাংলার শুদ্ধ সূচি, সুস্থ রুচি উনি বোঝেন না। বাংলার যে একটি সংস্কৃতি আছে, উনি তাকে অপমান করেছেন। তিনি ডাহা মিথ্যে দুর্নীতির কথা বলেছেন।’

তৃণমূল মুখপাত্র বলেন, উনি নিজেই দুর্নীতিবাজ ও দাঙ্গাবাজ। এ ধরনের রাজনীতি আগে গুজরাটে বা যেখানেই করে থাকুন না কেন, ওই রাজনীতি বাংলায় চলবে না।

ডেরেক ও’ ব্রায়েন বলেন, ‘কোনো দাঙ্গা ও সাম্প্রদায়িক রাজনীতি বাংলায় চলবে না। আমরা আমাদের সীমার মধ্যে থেকে, শান্ত-নম্রভাবে বলেছি- আমাদের বাংলার পারম্পরিক সংস্কৃতি আমরা ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে মেনে চলি। আজ অমিত শাহ তার সীমা ছাড়িয়েছেন।’

প্রসঙ্গত কলকাতায় বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়সহ তার ভাতিজা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ করেন।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম না করে তিনি বলেন, এ রাজ্যে তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পর সারদা, নারদ, রোজভ্যালির সঙ্গেই ভাতিজা’র দুর্নীতির সিরিজ উপহার দিয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অমিত শাহ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ