Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ২১ জুলাই ২০১৯, ০৬ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

জাতিসংঘ মানবাধিকার বিশেষজ্ঞরা শহিদুল আলমের মুক্তি চেয়েছেন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৪ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০২ এএম

সাংবাদিক শহিদুল আলমকে অবিলম্বে মুক্তি দিতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মানবাধিকার বিষয়ক বিশেষজ্ঞরা। তাকে নির্যাতনের সব অভিযোগের নিরপেক্ষ ও কার্যকর তদন্তেরও আহ্বান জানিয়েছেন তারা। একই সঙ্গে মিডিয়া কর্মীদের জন্য নিরাপদ ও উপযুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। জাতিসংঘ মানবাধিকার বিষয়ক হাই কমিশনারের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়েছে।
এতে বলা হয়েছে, নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের নির্যাতনের বিরুদ্ধে রিপোর্ট করার পর গ্রেপ্তার করে ফটোসাংবাদিক শহিদুল আলমকে নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগ আছে। তাকে অবিলম্বে মুক্তি দিতে সরকারের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মানবাধিকার বিষয়ক যেসব বিশেষজ্ঞ তাদের মধ্যে রয়েছেন মাইকেল ফোর্সট, ডেভিড কাই এবং সিওঙ্গ-ফিল হোং।
এর মধ্যে মাইকেল ফোর্সট হলেন স্পেশাল র‌্যাপোর্টিউর অন দ্য সিচুয়েশন অব হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডারস। ডেভিড কাই হলেন স্পেশাল র‌্যাপোর্টিউর অন দ্য প্রোমোশন অ্যান্ড প্রটেকশন অফ দ্য রাইট টু ফ্রিডম অব অপিনিয়ন এন্ড এক্সপ্রেশন। সিওঙ্গ-ফিল হোং হলেন চেয়ার-র্যাপোর্টিউর অব দ্য ওয়ার্কিং গ্রুপ অন আরবিট্রারি ডিটেনশন। জাতিসংঘ মানবাধিকার বিষয়ক হাই কমিশনারের ওয়েবসাইটে দেয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ছাত্র বিক্ষোভ নিয়ে সংবাদ মাধ্যমে শহিদুল আলমের সাক্ষাতকার প্রকাশ হওয়ার কয়েক ঘন্টার মধ্যে তাকে তার ঢাকার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ৫ই আগস্ট।
পরের দিন তাকে আদালতে তোলা হয়। এ সময় তার ওপর নির্যাতনের চিহ্ন তিনি দেখিয়েছেন বলে রিপোর্টে বলা হয়েছে। সরকারের বিরুদ্ধে প্রচারণা ও মিথ্যা তথ্য ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে তাকে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক ওই বিশেষজ্ঞরা আরো বলেছেন, ‘শহিদুল আলমকে গ্রেপ্তার ও তার ওপর অত্যাচার চরম উদ্বেগের বিষয় (এক্সট্রিমলি ওরিং)।
টিনেজার শিক্ষার্থী ও অন্যরা, যারা বাংলাদেশে অধিকতর সুশাসন, সংস্কার ও ন্যায়বিচার দাবি করছিল তাদেরকে দমনের একটি সাধারণ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এটা ঘটানো হয়েছে। এই একই দাবি করছে মিডিয়ার কর্মীরা ও নাগরিক সমাজের অন্যরাও। আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আহ্বান জানাচ্ছি শহিদুল আলমকে অবিলম্বে মুক্তি দিতে।
একই সঙ্গে তাকে নির্যাতনের যেসব অভিযোগ আছে তার সবগুলোর বিষয়ে কার্যকর ও পক্ষপাতিত্বহীন তদন্ত করতে হবে। আমরা মিডিয়া কর্মীদের জন্য একটি নিরাপদ ও উপযুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করারও আহ্বান জানাচ্ছি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি।
নোবেল-জয়ী স্টিগলিৎস ও বিনায়েক সেনের বিবৃতি
বাংলাদেশের বিশ্বনন্দিত আলোকচিত্রী ড. শহীদুল আলমের মুক্তির দাবিতে বিবৃতি দিয়েছেন নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ জোসেফ স্টিগলিৎস ও ভারতের প্রখ্যাত সমাজকর্মী বিনায়েক সেনসহ অনেকে। তাদের এই বিবৃতি বৃটিশ পত্রিকা গার্ডিয়ানে চিঠি আকারে প্রকাশ করা হয়েছে।
বিবৃতিতে বলা হয়, শহীদুল আলমের গ্রেপ্তার বিশ্ব সম্প্রদায়ের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার করেছে। এটি অবিলম্বে রদ করতে হবে। এই গ্রেপ্তার জাতিসংঘের সার্বজনীন মানবাধিকার ঘোষণাপত্র এবং নাগরিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অধিকার বিষয়ক আন্তর্জাতিক চুক্তিসমূহে স্বীকৃত আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিষয়ক ধারার গুরুতর লঙ্ঘণ।
বিবৃতিতে স্টিগলিৎস ও বিনায়েক সেন ছাড়াও স্বাক্ষর করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিস্টিনিংগুইশড প্রফেসর এমিরেটাস ও প্রখ্যাত রাজনৈতিক ব্যক্তিত অ্যাঙ্গেলা ডেভিস। অন্যান্যদের মধ্যে আছেন ভারতের টাটা ইন্সটিটিউট ফর সোস্যাল স্টাডিজের অ্যাডভান্সড সেন্টার ফর উইমেন স্টাডিজের প্রফেসর ইলিনা সেন, ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যাক্সিন ইলিয়ট প্রফেসর জুডিথ বাটলার, স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের লুইজ হেলেট নিক্সন প্রফেসর ডেভিড পালুম্বো-লিউ, কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর গায়ত্রী চক্রবর্তী, লেখক অন্তজি ক্রগ ও জিওকন্ডা বেলি, ফ্লোরেঞ্জস ম্যাক্স-পাঙ্ক ইন্সটিটুটের কস্তানা কারাফা, নিউ ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর ফটোগ্রাফির পরিচালক শামুন কমির, ইলিনয় স্টেট বিশ্ববিদ্যালয় নাসার ইসাম ও কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিদ্যার প্রফেসর রোজালিন্ড মরিস।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শহিদুল আলম

১৪ মার্চ, ২০১৯
৪ অক্টোবর, ২০১৮
১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন