Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ০৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

শুরুর আগেই শুরু বাংলাদেশের এশিয়াড

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০২ এএম | আপডেট : ১২:১৪ এএম, ১৪ আগস্ট, ২০১৮

ফুটবল ডিসিপ্লিনের খেলা দিয়ে আজ শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের এশিয়াড। আগামী শনিবার ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় গেমসের উদ্বোধন হলেও এর আট দিন আগে শুরু হয়েছে ফুটবল ডিসিপ্লিনের খেলা। গত ১০ আগষ্ট হংকং-লাওসের ম্যাচ দিয়ে শুরু হয় জাকার্তা-পালেমবাং এশিয়ান গেমসের অন্যতম আকর্ষণ ফুটবল। বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-২৩ দল নিজেদের প্রথম ম্যাচে আজ মোকাবেলা করবে অপেক্ষাকৃত শক্তিশালী উজবেকিস্তানকে। ইন্দোনেশিয়ার পাকানসারি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বিকাল ৩ টায় শুরু হবে ম্যাচটি। আসরের ‘বি’ গ্রæপে বাংলাদেশের অন্য দুই প্রতিপক্ষ থাইল্যান্ড ও কাতার। এবারেরটা নিয়ে এশিয়াডে তৃতীয়বারের মতো উজবেকিস্তানকে মোকাবেলা করছে বাংলাদেশ। আগের দুই সাক্ষাতে গুয়াংজু ও ইনচনে উজবেকিস্তান ৩-০ গোলে হারিয়েছিল বাংলাদেশকে। এশিয়াডের বাইরে দুই দেশের অনূর্ধ্ব-২৩ দলের আরেকবার দেখা হয়েছে ঢাকায় অলিম্পিক প্রি-কোয়ালিফাইং রাউন্ডে। ওই ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছিল ৪-০ গোলে।
বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-২৩ ও জাতীয় দল কোন ঘরনার ফুটবলেই জয় কিংবা ড্র পায়নি উজবেকিস্তানের বিপক্ষে। দুই দেশের জাতীয় দল এ পর্যন্ত তিনবার মুখোমুখি হলেও উজবেকদের সামনে পাত্তাই পায়নি লাল-সবুজরা। ১৯৯৯ সালে প্রথম ম্যাচে উজবেকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশ জাতীয় দল হেরেছিল ৬-০ গোলে। ২০০৬ সালে দু’দলের সঙ্গে দুইবারের দেখায় জয়ের পাল্লা ভারী উজবেকিস্তানেরই। ওই বছর প্রথম ম্যাচে উজবেকিস্তান ৫-০ ও দ্বিতীয় ম্যাচে ৪-০ গোলে জিতেছিল।
১৯৭৮ সালে ব্যাংকক এশিয়ান গেমসে প্রথমবার ফুটবলে অংশ নেয় বাংলাদেশ। এরমধ্যে ১৯৯৪ ও ১৯৯৮ সাল ছাড়া এশিয়াডের ফুটবলে নিয়মিতই অংশ নিয়ে আসছে তারা। তবে সাফল্য উল্লেখ করার মতো নয়। এশিয়ান গেমস ফুটবলে এ পর্যন্ত ২৩ ম্যাচ খেলে মাত্র তিনটিতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। বাকি ২০ ম্যাচ হেরেছে। সর্বশেষ জয়টি এসেছে গেমসের আগের আসর ইনচন এশিয়াডে। ২০১৪ সালে ওই আসরে আফগানিস্তানকে ১-০ গোলে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। এবার ইংল্যান্ডের অনভিজ্ঞ কোচ জেমি ডে’র তত্বাবধানে ২৪ সদস্যের ফুটবল দল খেলতে গেছে ইন্দোনেশিয়ায়। অন্যান্যবারের মতো এবারো কি ফল হবে তা অনুমেয়ই।
উজবেকিস্তানের বিপক্ষে অতীত ফলাফলে বাংলাদেশ পিছিয়ে থেকেই যে মাঠে নামবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। যদিও এশিয়াডে যাওয়ার আগে প্রস্তুতির কোন ঘাটতি ছিল না জামাল ভ‚ইয়াদের। দু’বার কাতার ও শেষবার দক্ষিণ কোরিয়ায় কন্ডিশনিং ক্যাম্প করেছেন তারা। প্রায় গোটা দশেক প্রীতি ম্যাচও খেলেছে বাংলাদেশ দল। জাকার্তা যাওয়ার আগে প্রস্তুতি ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়ায় গুয়াংজু এফসির কাছে হারলেও সেখানকার দু’টি বিশ্ববিদ্যাল দলকে হারিয়েছে লাল-সবুজরা। তাই প্রথম ম্যাচে মাঠে নামার আগে বেশ ফুরফুরে মেজাজেই থাকবে বাংলাদেশ দল। গেমসে অনূর্ধ্ব-২৩ দল খেললেও তিনজন সিনিয়র খেলতে পারবেন। বাংলাদেশ দলের তিন সিনিয়র হলেন- মিডফিল্ডার জামাল ভ‚ইয়া, গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা ও ডিফেন্ডার তপু বর্মণ। যারা অভিজ্ঞতার নিরিখে দলকে পরিচালনা করবেন মাঠে। প্রশ্ন হচ্ছে- ‘বি’ গ্রæপে তিন প্রতিপক্ষ থাইল্যান্ড, উজবেকিস্তান ও কাতারকে কিভাবে মোকাবেলা করবে বাংলাদেশ। কারণ এই দলগুলোর বিপক্ষে জয় তো দূরে থাক, প্রতিদ্ব›িদ্বতা গড়ে তোলারও সামর্থ্য নেই লাল-সবুজদের। তাই তো প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে কোরিয়া যাওয়ার আগে একটি জয়ের প্রত্যাশা করে গিয়েছিলেন কোচ জেমি ডে। তিনি বলেছিলেন, ‘সাফের আগে এশিয়াডে একটি জয় আমাদের অনেক উদ্দীপ্ত করতে পারে। আমরা অবশ্যই জয়ের চেষ্টা করব। প্রতিপক্ষ শক্তিশালী হলেও আমরা ভালো প্রস্তুতি ও অভিজ্ঞতা দিয়ে জয়ের জন্য লড়বো।’



 

Show all comments
  • ১৪ আগস্ট, ২০১৮, ৭:৪৭ এএম says : 0
    এখানে আপনি আপনার মন্তব্য করতে পারেন জাতীও দলের খেলা কবে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ