Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ৮ কার্তিক ১৪২৭, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

বগুড়ায় ২১ হাজার পরিবারে স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন ব্যবহার

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৫ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০৪ এএম

বগুড়ার ১০টি উপজেলার ৯৪টি ইউনিয়নে প্রায় ২১ হাজার পরিবার উন্নত, টেকসই ও স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন ব্যবহার করছে। তারা স্বাস্থ্যসম্মত ছাতুপ্যানযুক্ত ডিজিটাল ল্যাট্রিন ব্যবহার করছে। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর মানুষের কাছে উন্নত টেকসই স্যানিটেশন সেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। সারাদেশের মধ্যে ছয়টি জেলায় স্যানিটেশন মার্কেট সিস্টেম (স্যানমার্কএস) প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে, যার মধ্যে বগুড়া জেলা অন্যতম। গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর জন্য স্যানিটেশন ব্যবস্থা উন্নয়নে এসডিসি ও ইউনিসেফের আর্থিক সহযোগিতায় আইডিই বাংলাদেশ এবং জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর কাজ করছে। রোববার বগুড়া সদর উপজেলার নামুজার টেংড়া আদর্শগ্রাম ও নন্দীগ্রামের বুড়ইল ইউনিয়নের কদমকুড়ি গ্রাম ও ভাটরা ইউনিয়নের চাকলমা গ্রামে আশ্রয়ন প্রকল্প পরিদর্শন করেন বিভিন্ন উপজেলার চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যানসহ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের কর্মকর্তারা।
তারা আশ্রয়ন প্রকল্প ঘুরে দেখেন ও বসবাসকারীদের সাথে কথা বলেন। এ সময় জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর বগুড়ার নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ারুজ্জামান, কাহালু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মাওলানা তায়েব আলী, নন্দীগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম মÐল, বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য শঙ্কর, সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম বাবু, কাহালুর ভাইস চেয়ারম্যান মমতা আরজু কবিতা, দুপচাঁচিয়ার ভাইস চেয়ারম্যান সখিনা বেগম, আদমদীঘির ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা হামিদ মালা, শাজাহানপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কোহিনুর বেগম, নন্দীগ্রাম উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এ কে আজাদ, জান্নাতুল ফেরদৌস লিপি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর বগুড়ার নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ারুজ্জামান, জানান বগুড়ার দুপচাঁচিয়া ও কাহালু ছাড়া জেলার ১০টি উপজেলায় এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। ২০ হাজার ৯৭৮টি পরিবারের প্রায় ৯৪ হাজার ৪০১ জন মানুষ টেকসই স্যানিটেশন ছাতুপ্যানযুক্ত ডিজিটাল ল্যাট্রিনের সুবিধা পাচ্ছে। বগুড়া জেলায় স্যানমার্কএস প্রকল্পের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন প্রকল্পে পুনর্বাসিত ভ‚মিহীন, গৃহহীন, দুর্দশাগ্রস্ত ও ছিন্নমূল ৫৬২টি পরিবারের প্রায় দুই হাজার ৪৮৪ জন মানুষের কাছে উন্নত স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন পৌঁছাতে ও এই প্রকল্পটি সহায়তা করেছে। আশ্রয়ন প্রকল্পে ভার্টিক্যাল টিউবয়েল ও ডিজিটাল ল্যাট্রিন দেয়া হয়েছে বসবাসকারীদের।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ