Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ১৩ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

ঈদ যাত্রার প্রথমদিনেই ট্রেনে বিলম্বে, যাত্রীদের ক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ আগস্ট, ২০১৮, ১১:৫৬ এএম

ট্রেনে ঈদযাত্রার প্রথমদিনেই আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে ঘরমুখী মানুষের প্রচণ্ড ভিড় দেখা গেছে। যাত্রী ওঠা-নামা ও বিলম্বে আসার কারণে স্টেশন থেকে দেরিতে ছেড়ে গেছে খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস, দেওয়ানগঞ্জগামী তিস্তা এক্সপ্রেস ও চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস।
আজ সকালে কমলাপুরে গিয়ে দেখা যায়, স্টেশনের প্ল্যাটফর্মগুলোয় ঘরমুখ মানুষের উপচেপড়া ভিড়। অনেকে স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করছেন। তবে ঈদযাত্রার প্রথমদিনে ট্রেন দেরিতে আসায় অনেকেই ক্ষোভপ্রকাশ করেছেন। ট্রেন তিনটি প্রায় একঘণ্টা করে দেরিতে নিজ নিজ গন্তব্যের উদ্দেশে কমলাপুর ছেড়ে যায়।
স্টেশন সূত্রে জানা যায়, খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস সকাল ৬টা ২০মিনিটে ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও প্রায় পৌনে একঘণ্টা দেড়িতে কমলাপুর ছেড়ে গেছে। জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জগামী তিস্তা এক্সপ্রেস সকাল সাড়ে ৭টায় ছাড়ার কথা থাকলেও সোয়া ঘণ্টা দেড়িতে কমলাপুর স্টেশন ছেড়ে যায়। এছাড়া চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস সকাল ৮টায় ছাড়ার কথা থাকলেও সোয়া ঘণ্টা দেড়িতে কমলাপুর ছেড়ে যায়।
নীলসাগর এক্সপ্রেসের যাত্রী সুমন বলেন, ‘ঈদযাত্রার প্রথম দিনেই দেরিতে ট্রেন ছাড়া কাম্য নয়। শুরুতেই এমন হলে বাকি দিনগুলোর যাত্রা কেমন হবে তা নিয়ে সন্দিহান।
কমলাপুর রেলওয়ের স্টেশন ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্তী বলেন, কোনো ট্রেন দেরিতে ছাড়ছে না। তবে সুন্দরবন, তিস্তা ও নীলসাগর এক্সপ্রেস দেরিতে স্টেশনে আসায় যাত্রায় কিছুটা বিলম্ব হয়েছে। আমরা সব সময় চেষ্টা করছি যাতে কোনো ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় না হয়।
সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় অনেকেই বাড়ির উদ্দেশে রওনা হচ্ছেন। ভোর থেকেই যাত্রীর চাপ অনেক বেশি। তবে বেলা বাড়তেই সেই চাপ কমে আসে।
স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার মোট ৬৬টি ট্রেন ঢাকা থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানের উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। এর মধ্যে ৩১টি আন্তঃনগর বাকি ৩৫টি ট্রেন লোকাল ও মেইল সার্ভিস। ট্রেন যথা সময়ে কমলাপুর ছেড়ে যাবে।
অন্যদিকে বিনা টিকিটে কমলাপুর স্টেশনের ভেতরে কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। এছাড়া ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে স্টেশনে রয়েছে র‌্যাব, পুলিশ, রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী, গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যসহ আনসার সদস্যরা। পাশাপাশি যাত্রীদের তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করছেন রোভার স্কাউট ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সদস্যরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ