Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

সমালোচনা উড়িয়ে ইমরানের শপথে সিধু

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০১ এএম

সব জল্পনা-কল্পনা উড়িয়ে অবশেষে পাকিস্তানের ২২তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন দেশটির বিশ্বকাপ জয়ী কিংবদন্তি ক্রিকেটার ইমরান খান। পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ভবনে গতকাল সকাল ১০টায় জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্যদিয়ে শুরু হয় ইমরান খানের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান। পরে পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত শেষে তাকে আনুষ্ঠানিক শপথ বাক্য পাঠ করান প্রেসিডেন্ট মামনুন হুসাইন।
আগের দিন জাতীয় পরিষদের ভোটে প্রার্থী ছিলেন পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) পার্টির নেতা ইমরান খান এবং পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) এর প্রেসিডেন্ট শাহবাজ শরিফ। জাতীয় পরিষদের নব নির্বাচিত প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে ইমরানকে ভোট দেন ১৭৬ সদস্য। অন্যদিকে, প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী শাহবাজ পান ৯৬ ভোট।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, দেশটির অন্তবর্তীকালীন সরকারের প্রধানমন্ত্রী, জাতীয় পরিষদের স্পিকার ও তিন বাহিনীর প্রধান তবে বিরোধী দলের কাউকে শপথ অনুষ্ঠানে দেখা যায়নি। ১৯৯২ সালে ইমরানের নেতৃত্বেই বিশ্বকাপ জেতে পাকিস্তান। ইমরান ওই বিশ্বকাপজয়ী দলটিও উপস্থিত ছিল শপথ অনুষ্ঠানে। নাম মনে আছে তো অন্যদের? জাভেদ মিঁয়াদাদ, ওয়াসিম আকরাম, রমিজ রাজা, ইনজামাম-উল-হক, মুস্তাক আহমেদ, মইন খান ও আকিব জাবেদ ছিলেন ওই দলের মূল তারকা! তবে এতশত মুখের ভিড়ে শপথ অনুষ্ঠানের বাড়তি আকর্ষণ ছিল ভারতের সাবেক ক্রিকেটার নভজোৎ সিং সিধু।
গোলাপী টাই, পাগড়ি আর গাঢ় নীল স্যুটে কেতাদুরস্ত। ওয়াঘা হয়ে আগের দিনই লাহোরে পৌঁছে গিয়েছেন নভজোৎ সিং সিধু। এবার গন্তব্য ইসলামাবাদ। বাইশ গজের বন্ধুর জন্য কাশ্মীরি শালও এনেছেন সিধু। সঙ্গে শুভেচ্ছা। পড়শির মাটিতে পা দিয়েই তাই সাংবাদিকদের বললেন, ‘রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হিসেবে এখানে আসিনি, বন্ধু হয়ে এসেছি।’ ‘বন্ধু’ ইমরানের জন্য উপহারও নিয়েছেন সিধু; একটা কাশ্মীরি শাল। দুর্বলতাকে ইমরান কী ভাবে নিজের শক্তিতে বদলে ফেলেন, খেলার মাঠে সেটা খুব কাছ থেকে দেখেছি। কাপ্তান এবার রাজনীতির ময়দানেও নিজের খেল দেখাবেন।’
শপথ অনুষ্ঠান অংশ নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে যে বৈরী সম্পর্ক বিরাজ করছে; তা কাটিয়ে উঠে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে ইমরান খান কাজ করে যাবেন বলে আশা করেন সিধু, ‘ইমরান খান ইতিহাস তৈরি করলেন। আমরা সেই ইতিহাসের স্বাক্ষী হলাম। তিনি ক্রিকেটের মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে যেমন স¤প্রীতি বাড়াতে কাজ করেছিলেন। আশা করি, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সেই একই কাজ করবেন ইমরান খান। সম্পর্ক বিচ্ছিন্নকারীদের নয়; সম্পর্ক স্থাপনকারীদের মনে রাখে সবাই।’
সিধুর এই শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকা খুব একটা ভালো চোখে নেয়নি ভারতীয়রা। তাকে আমন্ত্রণ জানানোর পর থেকেই ভারতের মধ্যেও চলছিল নানা কানাঘুষা। ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে সমালোচনারর ঝড় বইয়ে দিচ্ছেন অনেকেই। তবে সেসব সমালোচকদের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে ‘পাকিস্তানের এক বন্ধুর’ এই বিশেষ দিনে উপস্থিত হয়ে বিরল নজির স্থাপন করলেন ‘ভারতের বন্ধু সিধু’।

 

 



 

Show all comments
  • Rashed Alam ১৯ আগস্ট, ২০১৮, ১২:২২ পিএম says : 0
    এরকম মানুষ দরকার
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর