Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

শেষ মুর্হুতে জমে উঠেছে মাদারীপুরের কোরবানীর পশুর হাট

মাদারীপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২০ আগস্ট, ২০১৮, ৩:২৮ পিএম

শেষ মুর্হুতে জমে উঠেছে মাদারীপুরের চার উপজেলার প্রায় অর্ধশত কোরবানীর পশুর হাট। এরমধ্যে দক্ষিণাঞ্চলের বৃহত্তর টেকেরহাটে দূর-দুরান্ত থেকে গরু ছাগল নিয়ে আসছেন বিক্রেতারা। এবছর গরুর দাম স্বাভাবিক থাকায় গরু কিনে বাড়ি ফিরছেন ক্রেতারা।

গরু ব্যবসায়ী ওবায়দুল মুন্সী ও ওলিউল্লাহ খান বলেন, ‘গরু লালন পালন করতে খরচ অনেক বেশি। এ বছর গরুর দাম একটু কম থাকায় লোকসানের আশংকা বেশি। মোল্লার হাট থেকে আসা গরুর বেপারী চিরঞ্জন শারিয়া বলেন, বাজার দর একটু নরম, লোকসানের আশংকা আছে।’

ঘোষালকান্দী থেকে কোরবানীর গরু কিনতে আসা বাবলু বলেন, সকালের তুলনায় কোরবানীর পশুর দাম অনেক বেশি। এবছর ক্রেতার তুলনায় গরু অনেক বেশি আছে কিন্তু দাম কমছে না।

নীলু হাওলাদার গরুর বেপারী বলেন, ‘এবছর হাটের সব থেকে বড় গরুটা আমি এনেছি। ৭ লক্ষ টাকা দাম চেয়েছি, ক্রেতারা চার লক্ষ থেকে চার লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা দাম বলেছে। গরুর বেপারী নুরু মুন্সী বলেন, আমি ১৮টি গরু বিক্রির জন্য এনেছি, দুটো বিক্রি হয়েছে। এ বছর প্রচুর গরু উঠায়, দাম স্বাভাবিক থাকায়, ক্রেতারা ঘোরা-ফেরা করছে। ভালো মোটা-তাজা ও পছন্দের গরু কিনবে তাই হাট ঘুরে ফিরে দেখছে। পূর্ব স্বরমঙ্গল থেকে আব্দুল কুদ্দুস বেপাড়ী জানায়, এই হাটে ৪০ হাজার থেকে ৭ লক্ষ টাকা পর্যন্ত দামের গরু উঠছে। ব্যবসায়ীরা এ বছর গরুর মূল্য বেশি চাওয়ার কারণে ক্রেতারা দরদাম করতে হিমশিম খাচ্ছে। আস্তে আস্তে হাটে ক্রেতা বাড়ছে আর ব্যবসায়ীরা চরা দাম চাচ্ছে।

হাটের এজারাদার আব্দুল হক বেপারির সাথে কথা বলে জানা যায়, টেকেরহাট কোরবানীর পশুর হাটে বিভিন্ন জেলা থেকে প্রচুর পরিমাণ গরু আসছে। এখন প্রচন্ড গরমের কারণে বেচা-কেনা একটু কম হলেও বিকালে বেচা কেনা বাড়বে বলে আশা করি। এ বছর রাজৈরের বিভিন্ন বাজারে কোরবানীর পশুর হাট জমে উঠেছে।

রাজৈর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, আমরা নিরাপত্তার জন্য আইন শৃংখলা বাহিনী জোরদার করা হয়েছে।
রাজৈর পৌর মেয়র শামীম নেওয়াজ জানান, বৃহত্তর টেকেরহাটে বিভিন্ন জেলা থেকে প্রচুর পরিমান গরু আশে ও উপজেলার ঐতিহ্যবাহি হাট ।
এছাড়াও জেলার চরমুগরিয়া হাট, উৎরাইল হাট, পাঁচখোলা হাটেও ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হাট


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ