Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

রাউজানে ফ্রি চিকিৎসাসেবা

রাউজান (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৫ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০২ এএম

রাউজান হলদিয়া ইউনিয়নের এয়াছিন নগর সেভেন স্টার পরিষদের উদ্যোগে বিনামুল্যে ৩০০ গরিব রোগীকে চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়েছে। গতকাল ২৪ আগস্ট শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল পর্যন্ত এ সেবা প্রদান করা হয়। এ উপলক্ষে আলোচনাসভা ক্লাবের সভাপতি মোহাম্মদ ওসমান গনীর সভাপতিত্বে ক্লাব প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়। আব্দুর রাজ্জাক রুবেলের সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম কলেজের রসায়ন বিদ্যা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, বিশিষ্ট গবেষক ড. নূ ক ম আকবর হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন হলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযুদ্ধা শফিকুল ইসলাম। এতে উদ্বোধক ছিলেন রাউজান প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সাংবাদিক মওলানা এম বেলাল উদ্দিন। উপস্থিত ছিলেন ডাক্তার মো. শহিদুল্লাহ,ডা. মো. নেজাম, ডা. মো. সাইফুল, রাউজান উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ মনসুর, যুবলীগ নেতা ওয়াহেদুল আলম, মুহাম্মদ এজহার, মো. ছালাম, মো. পারভেজ, ক্লাব কর্মকর্তা মওলানা ইকবাল হোসেন, মাওলানা নুরুল আজম তাহেরী, মো.সালাউদ্দিন হৃদয়, মো. ফারহান, মো. হেলাল, মো. ফাহেদ, মো. মুস্তফা, মো.মুমিন, মো. ঊাবলু. মো.আসলাম, মো. গাকিব, মো. সাইম, মো. নঈম, মো. জালাল, মো. কাকিল, মো. হাসান, মো. জমির, মো. আরিফ, মো. মহিউদ্দিন প্রমুখ। এতে নূকম আকবর হোসেন বলেন, সমাজের মানুষকে ডাক্তারের শরাণাপন্ন না হওয়ার জন্য খাদ্যাভ্যাস, দৈনন্দিন জীবনযাপন, সঠিক সময়ে নিদ্রা ও হাটাচলা করতে হবে। তিনি বলেন আমরা প্রতিটি সমাজে সমাজে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দৈনিক এক ঘণ্টা পায়ে হাটার কর্মসূচি হাতে নিতে হবে। তা হলে আমাদের দেহ শরীর সতেজ ও রোগমুক্ত থাকবে। তিনি বলেন, রুটিনমাফিক জীবন যাপন না করলে ডাক্তারের দারস্ত হতে হবে। আর ঠিকমতো খাবার, পানিয় জল, নিদ্রা, ব্যায়াম, হাঁটাচলা করলেই সহজেই ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হবে না। এতে নাক-কান-গলা, ডায়বেটিক, হৃদরোগ, মেডিসিনসহ বিভিন্ন রোগের চিকিৎসাসেবা দেয়া হয়।
ঈদের দিন পুকুরে ডুবে স্কুলছাত্রের মৃত্যু
রাউজান পৌর এলাকার ১ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম গহিরা খোন্দকার বাড়ির মুহাম্মদ মঈনুদ্দিনের আট বছর বয়সী শিশুসন্তান মুহাম্মদ ফরসাদ ঈদের দিন বুধবার সকাল ১০টায় সামনের পুকুরে ডুবে মারা যায়। শিশুটি রাউজান গহিরা আহমদিয়া চাইল্ড কেয়ার স্কুলের কেজি ওয়ানের ছাত্র। শিশুটির বাবা চট্টগ্রাম ওয়াসায় কর্মরত। মারা যাওয়া ফরসাদরা এক বোন এক ভাই ছিল। বোন ছিল বড়, আর ফরসাদ ছিল ছোট।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর