Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

আসছে জোরালো আন্দোলনের ঘোষণা সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৯ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০২ এএম

সময় মতো জোরালো আন্দোলনের ঘোষণা আসবে জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমরা আন্দোলনে আছি। আর সময় মতো জোরালো আন্দোলনের ঘোষণা আসবে। আপনারা দেখতে পাবেন।
তিনি বলেন, খালেদা জিয়া উড়ে এসে রাজনীতিতে বসেননি। ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে জিয়াউর রহমানকে হত্যা করার পর অনেকে ভেবেছিল বিএনপি শেষ, ভেঙে যাবে। কিন্তু তখন খালেদা জিয়া জাতীয়তাবাদী পতাকা হাতে দীর্ঘ ৯ বছর স্বৈরাচার এরশাদের বিরুদ্ধে লড়াই করে সংসদীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছেন। তাই তো সরকারের ভাবনায় খালেদা জিয়া ও বিএনপি।
কারণ সরকার বিএনপি ছাড়া কাকে মোকাবেলা করবে? বিএনপি ছাড়া কোনো দল আছে নাকি? গতকাল (মঙ্গলবার) দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যৌথসভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগ নির্বাচনের পাশাপাশি বিএনপিকে প্রতিহত করার প্রস্তুতির ঘোষণা দিয়েছে - এমন প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা তো বলেছি প্রথম শর্ত খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে, তারপর নির্বাচনী পরিবেশ তৈরি করতে হবে। নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষপ সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করতে হবে, সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে।
মির্জা ফখরুল বলেন, দেশে ক্রান্তিকাল চলছে। নির্ভর করছে আগামীতে দেশে গণতন্ত্র থাকবে কিনা। তাই একাদশ নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপ‚র্ণ। আর এমন যদি হয় বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিলো না তাহলে কি নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে? গ্রহণযোগ্য হবে না। আগামী নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপ‚র্ণ। এই নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য করতে হবে। এর জন্য যেমন দায়িত্ব সরকারের। তেমনি সঠিক দায়িত্ব পালন করতে হবে সুশীল সমাজ এবং গণমাধ্যমকেও। তিনি বলেন, আজ দুর্ভাগ্য আমাদের। যিনি জনগণের জন্য ত্যাগ করেছেন, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছেন, সেই তিনিই আজ কারাগারে। যে আওয়ামী লীগ ’৭৫ এ বাকশাল করে গণতন্ত্র ধ্বংস করেছিল তারাই জোরপ‚র্বক ক্ষমতা দখল করে দেশে পুনরায় স্বৈরশাসন কায়েম করেছে। আর গণতন্ত্রের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে বন্দী রেখেছে।
মির্জা ফখরুল বলেন, জনগণ আবারও রাস্তায় নামবে। এই সরকারের দুঃশাসন এবং অন্যায়-অত্যাচারের বিরুদ্ধে জনগণ আবার রাস্তায় নামবে। বাংলাদেশের মানুষ ঘুরে দাঁড়াবে। এই সরকারের পতন হবে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের চ্যালেঞ্জ হচ্ছে জনগণ তাদেরকে ভোট দেবে না। সেই জনগণকে তারা কিভাবে মোকাবেলা করবে? ইতোমধ্যে দেখেছেন জনগণ কিভাবে তাদের পুঞ্জিভ‚ত ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে। তাই তারা যদি ফের জোর করে ভোটবিহীন নীলনকশার মাধ্যমে ক্ষমতায় যেতে চায় তাহলে জনগণের প্রতিরোধে তাদের ঘর তাসের ঘরের মতো ভেঙে যাবে।
আওয়ামী লীগ বিএনপিকে ধ্বংস করতে চায় উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, আমি দৃঢ়তার সঙ্গে বলতে পারি, বিএনপি মানুষের হৃদয়ের দল। মানুষের ভালোবাসার দল। এই দলকে ধ্বংস করা যাবে না। দেশ যখন নেতৃত্বশ‚ন্য হয়ে পড়ে এবং যখন মহাসংকটে। ঠিক তখনই শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান দেশের হাল ধরেছিলেন। তিনি আজ থেকে ৪০ বছর আগে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি প্রতিষ্ঠা করেন। আমাদের দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান; যিনি চিকিৎসার জন্য বিদেশে আছেন তার বিরুদ্ধে নতুন করে মামলা তৈরি করে সাজা দেয়ার চেষ্টা চলছে। কিন্তু তাতে ব্যর্থ হবে সরকার। গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ না করায় হতাশা প্রকাশ করে দলের সিনিয়র এই নেতা বলেন, দুর্ভাগ্য আমাদের। সোমবার একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলা নিয়ে নানা তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে আমরা গণমাধ্যমের সামনে তুলে ধরেছিলাম। কিন্তু আফসোস আজকের দু’একটি ছাড়া অন্য কোন প্রিন্ট মিডিয়ায় সে খবরকে গুরুত্ব দেয়া হলো না। আমি জানতে চাই কেন গুরুত্ব দেয়া হয়নি? আমরা জানি। আপনাদেরকে পেছন থেকে বলে দেয়া হয়েছে এটা এভাবে প্রকাশ করা যাবে না। কিন্তু জনগণ সব দেখছে। তারা সব জানে। জনগণ ফুঁসে উঠছে। তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য আবারও সামনে আসবে।
সরকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, যিনি একুশে আগস্টে জড়িত না তাকে অন্যায়ভাবে জড়ানো হয়েছে। বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়ে উল্টাপাল্টা বলা হচ্ছে। হিরক রাজার দেশের মতো আপনারা যা বলবেন তা হবে না। জনগণ ঘুরে দাঁড়াবেই।
এ সময় সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, আব্দুল আউয়াল খান, মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাৎ, শ্রমিকদলের সভাপতি আনোয়ার হোসেইন, সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নাসিম, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, যুবদলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নয়ন, ছাত্রদলের সহ-সভাপতি নাজমুল হাসান প্রমুখ।####



 

Show all comments
  • সাজ্জাদ ২৯ আগস্ট, ২০১৮, ৫:৩৩ এএম says : 0
    ঘোষণা তো কতবারই দিলেন
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Shah Alam Khan ২৯ আগস্ট, ২০১৮, ৮:০০ এএম says : 0
    বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সময় মতো জোরালো আন্দোলনের ঘোষণা আসবে। আমরা আন্দোলনে আছি। আর সময় মতো জোরালো আন্দোলনের ঘোষণা আসবে। আপনারা দেখতে পাবেন। নেতার এই কথা আমরা খালেদা জিয়া জেলে যাবার পর থেকেই শুনে আসছি। আবার এটাও আমরা জানি যে, বিএনপি আন্দোলন করতে পারবেনা শুধুই গজরাতে পারবে। আমরা দেখেছি খালেদা জিয়াকে তার স্বপ্নের বাড়ি (কেন্টমেন্টের বাড়ি) থেকে সরকার উচ্ছেদ করে দিয়েছিল তখন খালেদা জিয়া নিজেই স্বক্রিয় ছিলেন এবং আন্দোলন করেছিলেন কিন্তু কোন ফল হয়নি ..........। কাজেই বিএনপি পত্রিকার মাধ্যমে তাদের নীরব ভোটারদেরকে চাঙ্গা রাখার জন্যে এসব ভনিতা করবে এটাই স্বাভাবিক।
    Total Reply(0) Reply
  • ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৬:১০ এএম says : 0
    একটি সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়তে হলে সময় লাগে নিম্নে এক বছর সেই হিসাবে সময় আছে মাএ দুই মাস কিছুই পারবে না বি এন পি ঊলট জেলে গিয়ে পড়ে থাকতে হবে বাকি সময়.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ