Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ০৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

পলিথিনের ব্যবহার বন্ধ হোক

চিঠিপত্র

| প্রকাশের সময় : ৩১ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০৫ এএম

পলিথিনের ক্ষতিকর দিক বিবেচনায় সর্বপ্রথম এর উৎপাদন, বিপণন ও ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয় ২০০২ সালে। ১৯৯৫ সালের পরিবেশ সংরক্ষণ আইনের ৬-এর ‘ক’ ধারা সংযোজনের মাধ্যমে এ সংক্রান্ত ঘোষণা বাস্তবায়ন করা হয়। একই বছরের ৮ নভেম্বর সরকার কর্তৃক একটি প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে সাময়িকভাবে বিস্কুট, চানাচুরের মোড়ক হিসেবে পলিথিনের ব্যবহার করা যাবে বলে জানানো হয়। এই আইনের ১৫ ধারায় বলা হয়, ‘কেউ যদি পলিথিনসামগ্রী উৎপাদন, আমদানি বা বাজারজাত করে, তার শাস্তি হবে ১০ বছরের কারাদন্ড বা ১০ লাখ টাকা জরিমানা অথবা উভয় দন্ড। আর কোনো ব্যক্তি যদি নিষিদ্ধ ঘোষিত পলিথিনসামগ্রী বিক্রি বা বিক্রির উদ্দেশ্যে প্রদর্শন, গুদামজাত, বিতরণ ও বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে পরিবহন বা বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার করে, সে ক্ষেত্রে তার শাস্তি ছয় মাসের কারাদন্ড বা ১০ হাজার টাকা জরিমানা অথবা উভয় দন্ডই প্রযোজ্য হতে পারে। তারপরও যেন আইনের প্রতি কোনো ভ্রুক্ষেপই নেই কারোর। সম্প্রতি বাংলাদেশের বিজ্ঞানী ড. মোবারক আহমেদ খান এক ধরনের পলিমার আবিষ্কার করেছেন, যা পচনশীল এবং তা উৎপাদিত হয় পাট থেকে। বিভিন্ন গণমাধ্যমকে তিনি জানান, এ পলিমার সম্পূর্ণ পরিবেশবান্ধব এবং বাণিজ্যিকভাবে এর উৎপাদন করলে তা পলিথিনের চেয়েও সাশ্রয়ী মূল্যে পাওয়া যাবে। অচিরেই পাট থেকে উৎপাদিত এ পলিমার বাজারে পাওয়া যাবে এবং সবাই পরিবেশের শত্রু পলিথিন বর্জন করে পাটের ব্যাগ ব্যবহার করবে।
তুফান মাজহার খান
ডেমরা, ঢাকা



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর