Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫, ১৫ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

শিগগির প্রজ্ঞাপন- রফতানি বাড়াতে আসছে বড় ছাড়

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩১ আগস্ট, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

দেশকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যআয়ের এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার। মূলত এ নীতি-আদেশ বাস্তবায়নে পরিকল্পনা করা হচ্ছে। উচ্চাভিলাষী এ মিশনে চলার পথ সুদৃঢ় করতে ‘ভিশন-২০২১’-এর রোডম্যাপের সঙ্গে সমন্বয় রেখে রপ্তানি পরিকল্পনা নীতির কৌশলগত সেতুবন্ধ রাখা হয়েছে। পাশাপাশি রপ্তানি উৎসাহিত করতে পণ্য রফতানি মূল্যের ওপর উৎসে করহার কমানো হচ্ছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছর থেকে এটি দশমিক ১ শতাংশ কমিয়ে শূন্য দশমিক ৬০ শতাংশ করা হচ্ছে। পাটজাত পণ্য বাদে সব ধরনের পণ্যে এ হার প্রযোজ্য হবে। তৈরি পোশাক শিল্প খাতেও দেওয়া হচ্ছে এ ছাড়। এ ছাড়া কোনো কারখানার আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত গ্রিন বিল্ডিং সার্টিফিকেশন থাকলে এ হার ১০ শতাংশ রাখা হচ্ছে। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ইতোমধ্যে এমন প্রস্তাবনায় অনুমোদন দিয়েছেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। এনবিআর সূত্র জানিয়েছে, উৎসে কর কমানোর বিষয়টিতে শিগগির প্রজ্ঞাপন জারি করবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।
সূত্র মতে, আয়কর অধ্যাদেশ, ১৯৮৪-এর ধারা ৫৩ বি বি ও ৫৩ বি বি বি বি’তে যেসব পণ্যের কথা বলা হয়েছে, সেগুলো রপ্তানির ক্ষেত্রে ১ শতাংশ হারে উৎসে কর কর্তন প্রযোজ্য। ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জন্য পাটজাত দ্রব্য ছাড়া সব পণ্য রপ্তানির ক্ষেত্রে উৎসে কর কর্তনের হার কমিয়ে শূন্য দশমিক ৭০ শতাংশ করা হয়। এ নিয়ে একটি প্রজ্ঞাপনও জারি করে এনবিআর। সে প্রজ্ঞাপনের মেয়াদ গত জুন মাসে শেষ হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে চলতি মাসের শুরুতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে একটি বৈঠক হয়। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, এনবিআর এবং বিজিএমইএর নেতারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে রপ্তানির উৎসে করহার আরও একধাপ কমানোর সিদ্ধান্ত হয়। এতে উৎসে করহার শূন্য দশমিক ৬০ শতাংশ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পরবর্তী সময়ে বিষয়টিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্মতি দেন। স¤প্রতি অর্থমন্ত্রীও এতে অনুমোদন দিয়েছেন। ফলে এ হার বাস্তবায়নে এখন আর কোনো বাধা থাকল না। এনবিআর খুব শিগগিরই ১৯৮৪-এর ধারা ৫৩ বি বি ও ৫৩ বি বি বি বি’তে উল্লিখিত পণ্য (পাটজাত দ্রব্য ছাড়া) রপ্তানি মূল্যের ওপর উৎসে কর কমিয়ে আয়কর অধ্যাদেশ, ১৯৮৪-এর ৪৪ (৪) (বি)-এর আওতায় একটি প্রজ্ঞাপন জারি করবে।
গত অর্থবছর নিটওয়্যার ও ওভেন গার্মেন্টস উৎপাদন ও রপ্তানিতে নিয়োজিত করদাতার রপ্তানি আয়ের ওপর আয়কর হারে ছাড় পেয়েছিল। কোম্পানি করদাতার ক্ষেত্রে আয়করের হার ১২ শতাংশ। তবে গত অর্থবছর করদাতার কারখানা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ‘গ্রিন বিল্ডিং সার্টিফিকেশন’ থাকলে ওই কারখানায় উৎপাদিত পণ্য রপ্তানি থেকে আয়ের ওপর আয়কর হার ১০ শতাংশ করা হয়েছিল। যেহেতু এটি ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জন্য প্রযোজ্য ছিল, তাই নতুন ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এটি কার্যকর হয়নি। এ সুবিধা আবার বহাল রাখতে যাচ্ছে সরকার। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এ সুবিধা বহাল রেখে আরও একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হতে পারে। দুটি বিষয়ই বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সংগঠনের (বিজিএমইএ) অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে সরকার বাস্তবায়ন করছে বলে জানা গেছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর