Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ০৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

মালয়েশিয়ার ৬১তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপিত

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

দেশ মালয়েশিয়ার ৬১তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপিত হয়েছে । মালয়েশিয়ার পিং সিটি পুত্রজায়ায় স্থানীয় সময় শুক্রবার সকাল ৮টায় শুরু হয় স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান। প্রতিবছর কুয়ালালামপুর শহরের প্রাণ কেন্দ্র দাতারান মারদেকায় দিবসটি উদযাপন করলেও এ বছর উদযাপিত হলো পিং সিটি পুত্রজায়ায়। তবে প্রবাসী-বিদেশিসহ সাধারণ জনগণের উপস্থিতিতে রাতভর সরগরম ছিল দাতারান মারদেকা মাঠ। এই বছরে স্বাধীনতা দিবসটি একটি ঐতিহাসিক মাইলফলক হিসেবে মনে করছেন দেশটির সাধারণ জনগণ। কারণ এটি একটি নতুন (পাকাতান হারাপান) ফেডারেল সরকারের নেতৃত্বাধীন উদযাপন এবং দেশটির স্বপ্নদ্রষ্টা ড. তুন মাহাথির মোহাম্মদ ৯৩ বছর বয়সে নতুন করে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত। বিশেষত মাহাথির ছিলেন সেই ব্যক্তি যিনি ১৯৯৫ সালে পুত্রাযায়া প্রশাসনিক কেন্দ্র হিসেবে তৈরি করেছেন। প্রশাসনিক কেন্দ্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবার ১৩ বছর পর আজ এই স্থানে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান করা হচ্ছে। এই বছরের স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে দেশটির ৬০ বছরের ইতিহাসের প্রধান প্রধান মাইলফলকগুলি তুলে ধরা হয়। স্বাধীনতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজা ইয়াং ডি-পারতুয়ান আগং সুলতান মুহম্মদ ভি, প্রধানমন্ত্রী তুন মাহাথির মোহাম্মদ, তার স্ত্রী সিতি হাশমাহ মোহাম্মদ, উপ-প্রধানমন্ত্রী ওয়ান আজিজাহ, আনোয়ার ইব্রাহিম, ডিফেন্স মিনিস্টার মোহাম্মদ সাবু এবং মন্ত্রী পরিষদের সকল সদস্যবৃন্দ। এছাড়া অনুষ্ঠান উপভোগ করতে পিং-সিটি পুত্রযায়াতে নেমেছিল মালয়েশিয়ানদের ঢল। প্যারেড অনুষ্ঠানে মালয়েশিয়ার সশস্ত্র বাহিনী কর্তৃক পাঁচটি হেলিকপ্টারের একটি ফ্লাইটপাস্ট ছিল অসাধারণ। যা সশস্ত্র বাহিনী, মালয়েশিয়ার সেনাবাহিনী, মালয়েশিয়ার রয়েল নৌবাহিনী এবং মালয়েশিয়ার রয়েল বিমানবাহিনীর পতাকা বহন করে। এ ছাড়া স্কুলছাত্র থেকে শুরু করে সরকারি ও বেসরকারি কর্মচারীসহ ১৮ হাজারেরও বেশি লোক প্যারেডে অংশগ্রহণ করে। মালয়েশিয়ার ইতিহাসে শ্রেষ্ঠতম গৌরব ও অহংকারের (হারি মারদেকা) দিন এটি। পৃথিবীর মানচিত্রে নিজস্ব ভূ-খন্ড নিয়ে মালয় জাতির আত্মপ্রকাশ ঘটে এ দিনে। আজ থেকে ৪০ হাজার বছর আগেও মালয় অঞ্চলে মানুষ বসবাসের নিদর্শন পাওয়া যায়। সুদূর অতীতে এ অঞ্চলে হিন্দু-বৌদ্ধ শাসকদের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র রাজ্য প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৩ শতকে এই উপ-দ্বীপে ইসলামের আগমন ঘটে। ১৫ শতকে মালাক্কান সালতানাত প্রতিষ্ঠিত হয়। অর্থনৈতিক কারণে মধ্য এশিয়া, ভারত ও আরবদের সঙ্গে মালয়ের সংযোগ স্থাপিত হয়। ১৯৫৭ সালের ৩১ আগস্ট ব্রিটিশদের কাছ থেকে রক্তপাতহীন প্রক্রিয়ায় স্বাধীনতা অর্জন করে দেশটি। মালয়েশিয়ার ইতিহাস পর্যালোচনায় জানা গেছে, মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে মালয়েশিয়াই সর্বপ্রথম ১৯৭২ সালের ৩১ জানুয়ারি বাংলাদেশকে স্বীকৃতি প্রদান করে। বিবিসি, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ