Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ০৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

রাজপথে নামতে হবে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায়

‘প্ল্যান বি’ অনুষ্ঠানে বি. চৌধুরী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

বিকল্প ধারার প্রধান সাবেক প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, দেশে ন্যায় বিচার নেই। ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় সবাইকে আবার রজপথে নামতে হবে। রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট অডিটরিয়ামে গতকাল বিকল্প ধারার সহযোগী সংগঠন প্রজন্ম বাংলাদেশের নতুন কর্মসূচি ‘প্ল্যান বি’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
অধ্যাপক বি চৌধুরী বলেন, ন্যায় বিচারের জন্য ছাত্ররা আন্দোলন করেছে। রাজনীতিবিদসহ দেশের মানুষকে তারা চোখে আঙ্গুল দিয়ে তা দেখিয়ে দিয়েছে। ছাত্ররা ন্যায়বিচার চেয়েছে সারা দেশে তা প্রতিধ্বনিত হয়েছে।
তিনি বলেন, ছাত্রদের যৌক্তিক আন্দোলনকে নানাভাবে প্রশ্নবিদ্ধ করা হয়েছে। বয়সের দোহাই দিয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে খাট করে দেখার চেষ্টা হয়েছে। এসব বিষয়ে পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে সাবেক প্রেসিডেন্ট বলেন, কোন বয়সে আমরা মাকে মা ডাকবো? বাবাকে বাবা ডাকবো? মাতৃভূমি দেশকে ভালোবাসবো? এই প্রশ্ন কেন আসবে। কম বয়সী ছাত্ররা কী দেশকে ভালোবাসবে না? ন্যায়বিচার চাইতে পারবে না? তিনি ছাত্রদের উদ্দেশ্য করে বলেন, তোমরা তোমাদের মতো করে দেশকে ভালোবাস। দেশের আমজনতা পাশে থাকবে। তোমাদের হাতেই দেশের ভবিষ্যৎ।
অনুষ্ঠানে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আব্দুর রব বলেন, আমি বাংলাদেশের কোনো আন্দোলনে অনুপস্থিত ছিলাম না। কিন্তু কিছুদিন আগে আজারবাইজান গিয়েছিলাম। ১২ দিন ছিলাম। এরই মধ্যে নিরাপদ সড়কের দাবিতে ছাত্র আন্দোলন হয়ে গেল। প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, ছাত্ররা চোখ খুলে দিয়েছে। তাহলে তাদেরকে পেটানোর সময় কী চোখ বন্ধ ছিল? তারা তো বলেছিল, আমরা ন্যায়বিচার চাই। শান্তি চাই। নিরাপদ বাংলাদেশ চাই। তিনি আরো বলেন, নতুন নেতৃত্ব তৈরির পথ রুদ্ধ করে দেয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ছাত্র নেতৃত্ব সৃষ্টির পথ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।
অনুষ্ঠানে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, প্রজন্ম মানে শুধু বয়স নয়। দৃষ্টিভঙ্গি, নতুন চিন্তা, দর্শন, দিকদর্শন। কোটা ও নিরাপদ সড়ক নিয়ে আন্দোলন হয়েছে। সবাই বলেছে চোখ খুলে দিয়েছে। তার মানে কী সবার চোখ বন্ধ ছিল? এখন কী আবার খোলা চোখ বন্ধ হয়ে গেছে। কুষ্টিয়াতে একটি বাস মা-মেয়েকে ধাক্কা দিয়েছে। চালক জানে না কখন থামতে বা চলতে হবে। রাষ্ট্রের অবস্থাও তাই। নতুন প্রজন্ম এদের বিরুদ্ধে।
অনুষ্ঠানে প্রজন্ম বাংলাদেশের অহিংস রাজনৈতিক কর্মসূচি প্ল্যান বি তুলে ধরেন বিকল্প ধারার যুগ্ম মহাসচিব মাহী বি. চৌধুরী। তিনি মাসব্যাপী ইউথ ক্যাম্পেইন কর্মসূচি ঘোষণা করেন। বক্তব্যে তিনি বলেন, গণতান্ত্রিক যাত্রার পর এক দলের পর অপর দল ক্ষমতায় এসেছে। জোটের পর ক্ষমতায় এসেছে মহাজোট। এই নিয়ে আমজনতা ৪বার বেল তলায় গেছে। এখন পঞ্চমবারের মতো জনগণকে বেলতলায় নেয়ার ব্যবস্থা হচ্ছে। গণতন্ত্রের পথ রুদ্ধ। কণ্ঠরোধ করা হয়েছে। গণতন্ত্র বনাম উন্নয়ন নামে এক অদ্ভুত বিতর্কে জড়ানো হয়েছে। আমরা দুটোই চাই। ২ দলের হানাহানি ও সে ঝুঁকি থেকে বের হয়ে আমাদের ভারসাম্যের সরকার দরকার। যার একজনের লাগাম অন্যজন টেনে ধরবে। বিশাল জনগোষ্ঠী এখন রাজনীতিকে পছন্দ করে না। তাদেরকে বুঝাতে হবে। মাঠে নামতে হবে।
অহিংস ও শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি আখ্যা দিয়ে প্ল্যান বি ঘোষণা করে তিনি বলেন, নতুন প্রজন্ম রক্ত দিতে চায় না। ঘাম ও মেধা দিতে চায়। আগামী ১০, ১১ ও ১২ই সেপ্টেম্বর অহিংস কর্মসূচি শুরু হবে। ২৮শে সেপ্টেম্বর থেকে রাজধানী আফতাব নগরে মাসব্যাপী সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত একই ক্যাম্পেইন চলবে। একই সঙ্গে চলবে রক্তদান কর্মসূচি। পর্যায়ক্রমে ঢাকা, জগন্নাথ, চট্টগ্রাম, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এবং তিতুমীরসহ বিভিন্ন কলেজে শিক্ষার্থীদের কাছে ক্যাম্পেইন নিয়ে যেতে চাই। মাহি বি চৌধুরী বলেন, যাতে সহিংসতার অপবাদ দিতে না পারে সে জন্য প্রয়োজনে দু’হাত বেঁধে এই কর্মসূচি পালন করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ