Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭, ১৩ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

জনপ্রশাসনে শৃঙ্খলা ও স্বচ্ছতা ফিরিয়ে আনতে হবে

প্রকাশের সময় : ২২ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সরকারের নির্বাহী বিভাগের কাজ-কর্ম সম্পাদন এবং এডিপিসহ সামগ্রিক উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ভূমিকা বিশদ ব্যাখ্যার অপেক্ষা রাখে না। সেই জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় নিজেই যদি অস্বচ্ছ, স্থবির এবং অচলাবচস্থার শিকার হয়, রাষ্ট্র ও সরকারের সামগ্রিক কর্মকা-ে তার নেতিবাচক প্রভাব পড়তে বাধ্য। গত কয়েকদিনে পত্রিকায় প্রকাশিত খবরে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের মধ্যকার আভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব, বিশৃঙ্খলাসহ প্রশাসনিক কাজে স্থবিরতার তথ্য পাওয়া যাচ্ছে। সম্প্রতি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত উচ্চ পর্যায়ের এক বৈঠকে দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী ও আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম তার মন্ত্রণালয়ের কাজের গতিহীনতা ও অস্বচ্ছতা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় হচ্ছে সরকারী কর্মকা- সুচারুরূপে পরিচালনার প্রাণকেন্দ্র। জনপ্রশাসনে বিশৃঙ্খলা, অব্যবস্থাপনাসহ নানাবিধ জটিলতা জিইয়ে রেখে সরকারের কাজে গতি ফিরিয়ে আনা অসম্ভব। বদলির পরেও সরকারী কর্মকর্তারা যথাসময়ে কাজে যোগদান না করা, বিভিন্ন ইস্যুর নথি যথাযথ প্রক্রিয়া ও সময়ে অগ্রগামী না করে ফাইল আটকে রাখার বিষয়ে মন্ত্রী অসন্তোষ প্রকাশ করলেও এসব অনাকাক্সিক্ষত বাস্তবতা থেকে জনপ্রশাসনকে মুক্ত করে একটি গতিশীল ও স্বচ্ছ ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করার জন্য প্রয়োজনীয় নীতিগত সিদ্ধান্ত অথবা উচ্চ পর্যায়ের সরকারী উদ্যোগ দেখা যাচ্ছেনা।
গতকাল একটি দৈনিকে প্রকাশিত রিপোর্টে বলা হয়েছে, বাইরে থেকে বোঝা না গেলেও গত কয়েক মাস ধরে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে এক ধরনের অচলাবস্থা ও বৈরী পরিবেশ বিরাজ করছে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগে নিয়োগ, বদলি  ও পদোন্নতি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের রুটিন কাজ হলেও চলমান বাস্তবতায় এসব রুটিন কাজ নিয়েই এই মন্ত্রণালয়ে বিশৃঙ্খলা ও বিপত্তি দেখা দিচ্ছে। এমনকি নীতি-নির্ধারণী পর্যায়েও নানা ধরনের মতানৈক্য দেখা দিচ্ছে বলে প্রকাশিত রিপোর্টে জানা যায়। এ কারণে অনেক ক্ষেত্রে মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রীর নির্দেশনাও ঠিকমত বাস্তবায়ন হচ্ছে না। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে দায়িত্বরত সিনিয়র সচিব ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরীর দক্ষতা ও পেশাদারিত্বের সুনাম থাকলেও অধস্তন কর্মকর্তাদের মধ্যকার অনৈক্য, অসন্তোষ ও বিশৃঙ্খলার কারণে তিনি অথবা এপিডি উইংয়ের প্রধানও অনেক সময় সবকিছু সামলে উঠতে পারছেন না। এ কথা অস্বীকার করার উপায় নেই যে, জনপ্রশাসনে এমন বৈরী পরিবেশ একদিনে বা হঠাৎ করেই সৃষ্টি হয়নি। প্রশাসনে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা, অস্বচ্ছতা ও রাজনৈতিক বিবেচনায় নিয়োগ, বদলি বা পদোন্নতির চিত্র কমবেশী সব সরকারের সময়ই দেখা গেছে। তবে বর্তমান সরকারের সময় যে তা’ অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে প্রকট আকার ধারণ করেছে, এ কথা নির্দ্বিধায় বলা যায়।
ঔপনিবেশিক শাসনের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের বেসামরিক প্রশাসনে নিয়োগ, বদলি ও পদোন্নতির ক্ষেত্রে এক ধরনের আমলাতান্ত্রিক শৃঙ্খলা, মানদ- মেনে চলা হয়। পাবলিক সার্ভিস কমিশনের নিয়োগ পদ্ধতির আওতায় বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগ পাওয়ার পর জ্যেষ্ঠতা ও কর্মদক্ষতার বিচারে বদলি ও পদোন্নতির রেওয়াজ রাজনৈতিক বিবেচনায় লঙ্ঘন করার মধ্য দিয়ে প্রশাসনের চলমান বিশৃঙ্খলা, অসন্তোষ ও অচলাবস্থার পরিবেশ তৈরী করা হয়েছে। জনপ্রশাসনে সাম্প্রতিক অচলাবস্থার পেছনেও রাজনৈতিকভাবে নিয়োগ পাওয়া একজন কর্মকর্তার চরম মাত্রার দাপট ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ রয়েছে। পাবলিক সার্ভেন্ট বা জনসেবক হিসেবে পরিচিত সরকারী আমলারা জনগণের ট্যাক্সের টাকায় বেতনসহ সব রকমের সরকারী সুযোগ-সুবিধা ভোগ করে থাকেন। এ কারণেও তাদের সর্বদা দলনিরপেক্ষভাবে সরকারী দায়িত্ব পালন করতে হয়। রাজনৈতিক বিবেচনায় নিয়োগ পাওয়া আমলারা তাদের দায়িত্ব পালনে ও সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে দলীয় দৃষ্টিভঙ্গির প্রতিফলন ঘটিয়ে থাকেন। এভাবেই দলনিরপেক্ষ পেশাদার ও দক্ষ কর্মকর্তারা নানাবিধ বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। এমনকি জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘন করে রাজনৈতিক বিবেচনায় জুনিয়র অফিসারদের পদোন্নতি দেয়ার মাধ্যমে জনপ্রশাসনে ক্ষোভ ও অসন্তোষের জন্ম দেয়া হয়েছে। রাজনৈতিক বিবেচনায় নিয়োগ, বদলি ও পদোন্নাতির কালচার বন্ধ না করে ক্ষোভ প্রকাশ করে এ পরিস্থিতির পরিবর্তন সম্ভব নয়। সরকারী কাজের গতি এবং সাধারণ মানুষের জন্য অধিকতর সেবা ও কাক্সিক্ষত উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়সহ পাবলিক সেক্টরের প্রতিটি প্রতিষ্ঠান পরিচালনায় জনবল নিয়োগের ক্ষেত্রে স্বচ্ছ প্রক্রিয়া, পেশাদারিত্ব, দক্ষতা-জ্যেষ্ঠতার মানদ- রক্ষা করতে হবে। সুষম উন্নয়ন ও জনসেবা নিশ্চিত করতে হলে রাজনৈতিক বিবেচনায় পরিচালিত আমলাতন্ত্র, নিয়োগ ও তদবির বাণিজ্য বন্ধ করার কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জনপ্রশাসনে শৃঙ্খলা ও স্বচ্ছতা ফিরিয়ে আনতে হবে
আরও পড়ুন