Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ০৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

ভুটানকে হারাতেই মাঠে নামবে বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০১ এএম | আপডেট : ১২:১৯ এএম, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

দীর্ঘ ৯ বছর পর ঢাকায় ফের বসেছে দক্ষিণ এশিয়া ফুটবলের বিশ্বকাপ খ্যাত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। টুর্নামেন্টের এবারের নাম সাফ সুজুকি কাপ। আর মাত্র কয়েক ঘন্টা পর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে পর্দা উঠছে এ আসরের। উদ্বোধনী দিনই মাঠে নামছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। ‘এ’ গ্রুপের এই ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ সেই ভুটান, যাদের বিপক্ষে ২০১৬ সালের অক্টোবরে থিম্পুতে এশিয়ান কাপের প্রাক-বাছাইয়ের ফিরতি ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছিল ৩-১ গোলে। এটিই ছিলো লাল-সবুজদের বিপক্ষে ভুটানের প্রথম জয়।
লজ্জার ওই হারের পর দুই দেশের বয়সভিত্তিক দলের কয়েকবার দেখা হলেও জাতীয় দল আর মুখোমুখি হয়নি। থিম্পুর পর ঢাকা। মাঝে ২৩ মাস। দীর্ঘ প্রায় দু’বছর পর বাংলাদেশের ফুটবলারদের সামনে এসেছে দায়মুক্তির সুযোগ। আর এ সুযোগ কাজে লাগতে বদ্ধপরিকর ফুটবলাররা। তারা ভুটানকে হারাতেই আজ মাঠে নামবে। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৭টায় শুরু হবে বাংলাদেশ-ভুটান ম্যাচটি। এর আগে বিকাল ৪টায় একই ভেন্যুতে এই গ্রুপের অন্য ম্যাচে পাকিস্তানকে মোকাবেলা করবে নেপাল।
সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, ভুটানের ওপর সব সময়ই ছড়ি ঘুরিয়েছে বাংলাদেশ। এ পর্যন্ত সাফে মোট ৫বার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও ভুটান। যেখানে বাংলাদেশের জয় ৪টি, অন্যটি ম্যাচটি ড্র হয়েছে। শুধু তাই নয়, জাতীয় ও অলিম্পিক দল মিলিয়ে ভুটানের বিপক্ষে ১২টি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। হার ওই একটাই ২০১৬ সালে ১০ অক্টোবর থিম্পুতে। বাকি ১১ ম্যাচের ৯টিতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। আর ২ ম্যাচ ড্র হয়েছে। কিন্তু দুই দলের সর্বশেষ ম্যাচের স্মৃতি লাল-সবুজদের জন্য বড়ই হতাশার। তবে অতীতের সাফল্য বা ব্যর্থতা নিয়ে ভাবছেন না বাংলাদেশের ব্রিটিশ কোচ জেমি ডে। নতুন টুর্নামেন্ট বলেই নতুন শুরুর দিন গুনছেন তিনি। ভুটানকে হারিয়ে সাফের শুভ সূচনা চান জেমি। শুধু কোচই নন, বাংলাদেশ দলের সব খেলোয়াড়ের লক্ষ্যই ভুটান ম্যাচে জয় পাওয়া। ম্যাচের আগে গতকাল বিকালে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন ভবনে আয়োজিত জনাকীর্ণ এক সাংবাদ সম্মেলনে এমন আশাবাদই ব্যক্ত করেন তারা। কোচ জেমি ডে অতীত নিয়ে ভাবছেন না। ১৫ সপ্তাহ ধরে গড়ে তোলা দলটি ভুটানের বিপক্ষে নির্ভার খেলবে বলেই বিশ্বাস তার। সাফে জেমির প্রাথমিক লক্ষ্য গ্রুপ পর্ব পেরুনো। তিনি বলেন,‘সাফে আমার প্রথম লক্ষ্য গ্রুপ পর্ব পেরুনো। এর বাইরে আপাতত কিছু ভাবছি না। আমার এবং খেলোয়াড়দের ওপর কোন চাপ নেই। এখন ভুটানের সেই ম্যাচ নিয়ে কথা হচ্ছে, যে ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছিল। কিন্তু ওই ম্যাচে আমি বাংলাদেশের কোচ ছিলাম না। এই দলেও ওই ম্যাচে খেলা অনেকে নেই। এখানে তাই প্রতিশোধের কিছু নেই। আমরা স্্েরফ একটা ম্যাচ খেলব। এবং তা অবশ্যই জেতার জন্য।’
সর্বশেষ প্রীতি ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১-০ গোলের হারে দলের সামর্থ্য নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কিন্তু জেমি হারা ম্যাচ থেকেই ইতিবাচক কিছুর খোঁজে থাকছেন। তার কথায়,‘শ্রীলঙ্কার কাছে হারৃ.ওটা একটা প্রস্তুতি ম্যাচ। হার ছাড়াও সেখানে অনেক ইতিবাচক বিষয় ছিল। আমরা ওই ম্যাচে আধিপত্য দেখিয়েছি এবং অনেক সুযোগও তৈরি করেছিলাম। কিন্তু গোল করতে পারিনি।’
সংবাদ সম্মেলনে কোচের পাশে বসে দলের সিনিয়র খেলোয়াড় নাসিরউদ্দিন চৌধুরী ভুটান ম্যাচের লক্ষ্য নিয়ে অল্প কথা বললেন- ‘আমাদের গোল করতে হবে। তিন পয়েন্ট পেতে হবে। এটাই একমাত্র লক্ষ্য।’
সাফে ভুটানের পরিসংখ্যান তেমন উজ্জল নয়। ২০০৮ সালে সেমিফাইনালে ওঠাই তাদের অতীতের সেরা সাফল্য। দলটির বৃটিশ কোচ ট্রেভর মরগ্যান স্বাগতিক বাংলাদেশকে সমীহ করলেও ভালো ম্যাচের প্রতিশ্রুতি দিলেন। তিনি বলেন,‘আমার দলটা তরুণ। এদের অনেক শেখার আছে। আশাকরি বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচটা ভালো হবে। নিজেদের মাঠ এবং দর্শকের সামনে খেলার কারণে বাংলাদেশ ফেভারিট। ম্যাচটা আমাদের জন্য কঠিন হবে।’ অধিনায়ক কর্মা সিদ্রুপ বলেন,‘দু’দলের আগের ম্যাচটা ২ বছর আগে খেলা হয়েছে। মাঝের সময়টাতে দুই দল অনেক বদলেছে। এটা নতুন টুর্নামেন্ট। আমরা নিজেদের সেরাটা দিয়েই লড়াই করবো।’
এ সম্মেলনে নেপাল, পাকিস্তান, মালদ্বীপ ও শ্রীলঙ্কা নিজেদের লক্ষ্যের কথা জানালেও ভারত উপস্থিত হয়নি। ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনের আগে টুর্নামেন্টের লোগো উন্মোচন করা হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।