Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ১৩ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

চট্টগ্রামে হঠাৎ গণপরিবহন সঙ্কটে দুর্ভোগ

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৮:৫৩ পিএম
নগরীতে হঠাৎ গণপরিবহন সঙ্কটে দিনভর দুর্ভোগের মুখোমুখি হয় নগরবাসী। বিশেষ করে অফিসগামী লোকজন ও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগে পড়তে হয়। সকালে নগরীর আগ্রাবাদ ও এ কে খান গেইটে বিআরটিএর ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান শুরু হলে বাস-মিনিবাস চলাচল কমে যায়। এতে করে নগরজুড়ে গণপরিবহনের সঙ্কট দেখা যায়।
বিশেষ করে নগরীর প্রধান সড়কে চলাচলকারী ৬, ৭, ১০ ও ৪ নম্বর রুটের বেশিরভাগ বাস-মিনিবাস বন্ধ হয়ে যায়। অন্যান্য রুটেও গণপরিবহনের সংখ্যা হঠাৎ কমে যায়। নগরীর সিমেন্ট ক্রসিং, ইপিজেড মোড় ও আগ্রাবাদ এলাকা ঘুরে দেখা যায়, সড়কের প্রতিটি মোড়ে যাত্রীদের ভিড় কিন্তু কোন বাস-মিনিবাস নেই। দু’একটি বাস-মিনিবাস থাকলেও তাতে এতটাই ভিড় যে নতুন করে যাত্রী ওঠার কোন সুযোগ নেই। বাস-মিনিবাস সঙ্কটকে পুঁজি করে অটোরিকশা ও রিক্সা ভাড়াও কয়েকগুণ বেড়ে যায়। বাস শ্রমিকরা জানায়, আগ্রাবাদ-বাদামতল মোড়ে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চলছিল এমন খবর পাওয়ার পর ৬ নম্বর রুটের প্রায় সব বাস বন্ধ করে দেয় মালিক সমিতি। 
দু’একটি বাস চলাচল করলেও সেগুলো বারিক বিল্ডিং মোড় থেকে মাঝির ঘাট হয়ে লালদীঘি পৌঁছেছে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের নজর এড়াতে আগ্রাবাদ এলাকায় যায়নি ৬ নম্বর রুটের কোন বাস। নগরীর প্রধান এবং সবচেয়ে বড় রুট হিসেবে খ্যাত ১০ নম্বর রুটের প্রায় সব বাস চলাচল বন্ধ ছিল দিনভর। নিউমার্কেট থেকে আগ্রাবাদ বাদামতল হয়ে অলঙ্কার পর্যন্ত ৭ নম্বর রুটের বাসেরও বিরাট অংশ চলাচল করেনি। এর ফলে পুরো নগরীতে গণপরিবহন সঙ্কট দেখা দেয়। ভ্রাম্যমান আদালতের ভয়ে নগরীতে অটোরিকশার সংখ্যাও কমে যায়। উল্লেখ্য, নগরীতে এমনিতেই গণপরিবহনের সঙ্কট রয়েছে। তার উপর হঠাৎ করে যানবাহন চলাচল কমে যাওয়ায় সঙ্কট আরও তীব্র হয়। 
নগরীতে চলাচলকারী বেশিরভাগ গণপরিবহনের ফিটনেস সনদ নেই। চালকদেরও নেই লাইসেন্স। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে সড়কে শৃঙ্খলা আনতে এর আগে টানা ১০ দিনের ট্রাফিক সপ্তাহে মহানগরীতে ১১ হাজার ৭১২টি যানবাহনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। আটক করা হয় ৯৪৫টি যানবাহন। গত সপ্তাহে নগরীর দু’টি এলাকায় বিআরটিএর ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান শুরু হয়। কয়দিন বিরতি দিয়ে গতকাল ফের অভিযান শুরু হলে নগরীতে যানবাহন চলাচল একেবারেই কমে যায়। 
ট্রাফিক পুলিশের কন্ট্রোল রুম থেকে জানানো হয়, গতকাল দুটি ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ৭০টি যানবাহনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আটক করা হয়েছে ১৫টি যানবাহন। জরিমানা আদায় করা হয় ৯২ হাজার ৮শ’ টাকা। নগরীতে শৃঙ্খলা আনতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান বিআরটিএর কর্মকর্তারা। 


 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর