Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ১৩ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

ম্যারাথন ম্যাচ নাদালের

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০৫ এএম

প্রথম সেটে দাঁড়াতেই পারেননি। কিন্তু সময় গড়ানোর সাথে সাথে নিজের বিশেষত্ত¡ ঠিকই জানান দিয়েছেন ওয়ার্ল্ড নাম্বার ওয়ান রাফায়েল নাদাল। চলতি ইউএস ওপেনের দীর্ঘতম ম্যাচ উপহার দিয়ে পাঁচ সেটের ম্যাচে নয় নম্বর তারকা ডমিনিখ থিয়ামকে হারিয়ে আসরের সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছেন স্প্যানিশ তারকা।
প্রথম সেটে নাদালের ৬-০ ব্যবধানে উড়ে যাওয়াটা ছিল সত্যিই বিষ্ময়ের। তবে ঘুরে দাঁড়াতে একদম সময় নেননি। পরের দুই সেট ঠিকই জিতে নেন। তবে টাইব্রেকে গড়ানো চতুর্থ সেট জিতে নিউ ইয়র্কের উত্তপ্ত ফ্লাশিং মিডোকে আরো তপ্ত করে তোলেন অস্ট্রিয়ান তারকা থিয়াম। টাইব্রেকের নাটক চলেছে শেষ সেটের শেষ শট পর্যন্তও। শেষ পর্যন্ত ০-৬, ৬-৪, ৭-৫, ৬-৭ (৪-৭), ৭-৬ (৭-৫) গেমে ম্যাচ জিতে নাদাল যখন দুবাহু তুলে ঊর্ধ্ব গগনে হুঙ্কার ছাড়েন ম্যাচের বয়স ততক্ষণে প্রায় পাঁচ ঘন্টা (৪ ঘন্টা ৪৯ মিনিট) ছুঁতে চলেছে। পরক্ষণেই নেট ডিঙিয়ে অপর প্রান্তে এসে থিয়ামকে সান্ত¦না দেন নাদাল। জড়িয়ে ধরে পরস্পরের ভাব বিনিময়ের সময় আর্থার অ্যাশ স্টেডিয়ামের ভরা দর্শক উঠে দাঁড়িয়ে তুমুল হাততালি মাধ্যমে তাদের অভিবাদন জানান।
এসময় থিয়ামকে কী বলেছিলেন নাদাল? ম্যাচ শেষে ১৭ গ্র্যান্ড ¯ø্যামজয়ী দিয়েছেন এর উত্তর, “আমি ডমিনিখকে বলেছিলাম : ‘আমি খুবই দুঃখিত এবং এগিয়ে যাওয়া অব্যহত রাখো।” থিয়ামকে সম্মান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘জয়ের জন্য সে যথেষ্ঠ সুযোগ পেয়েছিল। সামনেও তার অনেক সুযোগ আছে এ বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই।’ নিজে কিভাবে এমন কঠিন মুহূর্ত সামলেছেন?Ñ এমন প্রশ্নে ৩২ বছর বয়সী বলেন, ‘সহনশীলতা হল এক্ষেত্রে সঠিক শব্দ। এটা কঠিন লড়াই ছিল।’
আগামীকাল শেষ চারে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন নাদাল লড়বেন ২০০৯ সালের চ্যাম্পিয়ন হুয়ান মার্টিন দেল পোর্তোর বিপক্ষে। যুক্তরাষ্ট্রের ১১নম্বর তারকা জন ইসনারের বিপক্ষে বিশ্বের তিন নম্বর তারকা দেল পোর্তোর জয়টাও সহজ ছিল না। এখানেও প্রথম সেট হেরে বসেন পোর্তো। কিন্তু পরের তিন সেট জিতে ৬-৭ (৫-৭), ৬-৩, ৭-৬ (৭-৪), ৬-২ গেমে শেষ হাসি হাসেন আর্জেন্টাইন তারকাই।
আবহাওয়া এদিনও ছিল অন্যদিনের মত বিরুপ। অত্যাধিক তাপের কারণে ছোটদের ম্যাচ দুই ঘন্টার জন্য বন্ধ রাখা হয়। দেল পোর্তো-ইসনার ম্যাচের তৃতীয় ও চতুর্থ সেটে ১০ মিনিট করে দেওয়া হয় বিরতি। এসময়ের পরিস্থিতি ম্যাচ শেষে মজা করে দেল পোর্তো বর্ণনা করেছেন এভাবে, ‘আমি গোসল করেছি, গোড়ালিতে নতুন করে টেপ লাগিয়েছি এবং টেবিলের উপর শুয়ে পড়েছি। আমার মনে চাচ্ছিল না আবার (কোর্টে) ফিরে আসি।’
গরমের ব্যাপারটা জানতেন ইসনারও। যে কারণে তিনি ১১টি শার্ট সঙ্গে এনেছিলেন। এর মধ্যে আটটি তিনি ব্যবহার করেছেন এবং ঘেমে ওজন কমে ১০ পাউন্ড। আর্থার অ্যাশ স্টেডিয়ামের ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় এরূপ পরিস্থিতি তৈরী হওয়াই তো স্বাভাবীক।
তবে শেষ আটে থামতে হয়েছে নারী এককের চ্যাম্পিয়ন ¯েøায়ানে স্টেফেন্সকে। লাটভিয়ার ১৯ নম্বর বাছাই আনাস্তাসিয়া সেভাস্তোভার কাছে ৬-২, ৬-৩ গেমের সরাসরি সেটে হেরে বিদায় নিয়েছেন আমেরিকার তিন নম্বর বাছাই। তবে রেকর্ড ২৪ গ্র্যান্ড ¯ø্যামের লক্ষ্যে জয়ের ধারা অব্যহত রেখেছেন আরেক আমেরিকান তারকা সেরেনা উইলিয়ামস। ১৭ নম্বর বাছাই সেরেনা প্রথম সেটে ৪-২ ব্যবধানে পিছিয়ে থেকেও ৬-৪, ৬-৩ গেমের সরাসরি সেটে হারিয়েছেন চেক আট নম্বর বাছাই ক্যারোলিনা পিসকোভাকে। শেষ চারে সাবেক নাম্বার ওয়ানের প্রতিপক্ষ স্টেফেন্সকে হারানো সেভাস্তোভা। ৩৬ বছর বয়সী সেরেনার লক্ষ্য যে শিরোপার দিকে তা স্পষ্ট করেই জানিয়েছেন, ‘আমি মনে করি না খেলা চালিয়ে যাওয়া ও চ্যাম্পিয়ন্সশিপ জেতার জন্য আমার হাতে আরো দশ বছর সময় আছে।’

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর