Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫, ১৫ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

সেমিতে চোখ বাংলাদেশের

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০৪ এএম

দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবল বিশ্বকাপ খ্যাত সাফ সুজুকি কাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালের পথে এগিয়ে থাকতে চায় বাংলাদেশ। ‘এ’ গ্রæপের এই ম্যাচে স্বাগতিকদের প্রতিপক্ষ পাকিস্তান। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৭টায় শুরু হবে লড়াই। ফুটবলে পাকিস্তানের বিপক্ষে অতীত ইতিহাস কিংবা পরিসংখ্যান, সবই বাংলাদেশের পক্ষে। এর আগে বেশ ক’বার পাকিস্তানকে হারিয়েছে লাল-সবুজরা। সাফেও এ ধারা অব্যহত রাখতে চান জামাল ভূঁইয়ারা।
আন্তর্জাতিক ফুটবলে বেশ ক’বছর ধরে কঠিন সময় পার করছে বাংলাদেশ জাতীয় দল। এই সময়ে কোন সাফল্য তো ছিলোই না, উল্টো ২০১৬ সালের অক্টোবরে এশিয়ান কাপের প্রাক-বাছাই ম্যাচে ভুটানের বিপক্ষে ৩-১ গোলে হেরে জাতিকে লজ্জায় ডুবিয়েছিলেন লাল-সবুজের ফুটবলাররা। যে কারণে দেশের ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) বুকে চাপা পড়েছিল যেন বিশাল এক পাথর। কিন্তু মঙ্গলবার সাফে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সেই ভুটানকে ২-০ গোলে হারানোর পর স্বস্তির নিঃশ্বাস ছাড়েন বাফুফে কর্তারা। আর ম্যাচের পরের দিন গতকাল উৎফুল্ল একটি দিন কাটান জাতীয় দলের ফুটবলাররা। এদিন সকালে টিম হোটেলের পুলে ব্রিটিশ কোচ জেমি ডে’র শিষ্যরা (যারা ভুটান ম্যাচের স্কোয়াডে ছিলেন) সাঁতার কেটে সময় পার করলেও স্কোয়াডের বাইরের খেলোয়াড়রা বিকালে জিম সেশন করেন। এর পরই বাংলাদেশ দলের মাঠের অনুশীলনে নামার কথা থাকলেও তা বাতিল করা হয়।
পাকিস্তান ম্যাচের আগে বাংলাদেশ মিডফিল্ডার ইমন মাহমুদ বাবু বলেন, ‘কোচ জেমি ডে ম্যাচ বাই ম্যাচ লক্ষ্য করে এগিয়ে যেতে চান। ভুটানকে হারানোর মিশন শেষ। এখন আমাদের লক্ষ্য পাকিস্তানকে হারানো। যদিও তারা বেশ শক্তিশলী। দলটি রক্ষণাত্বক খেলে থাকে। পরে পাল্টা আক্রমণে গিয়ে সুযোগ সৃষ্টি করে। শারীরিকভাবেও তারা অনেক ভালো একটি দল। ইউরোপে খেলে থাকেন এমন বেশ ক’জন রয়েছেন এই দলে। তাই ইউরোপের কন্ডিশনে খেলা আসা দলই বলা চলে পাকিস্তানকে।’ ভুটান নিয়ে বাবুর কথা, ‘ভুটানের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে সবারই মনে একটা আশংকা কাজ করছিল। কারণ এই ভুটানের জন্যই আমাদের অনেক কথা শুনতে হয়েছে। ফিফা ও এএফসির ম্যাচ থেকে আমরা নির্বাসিত হয়েছি। দীর্ঘদিন আন্তর্জাতিক ফুটবলের বাইরে ছিলাম। আমারও ব্যক্তিগত একটা ক্ষোভ ছিল। কারণ ওই ম্যাচটি আমি খেলতে পারিনি। ম্যাচের আগেরদিন আমার মা মারা যান। আমাকে ভুটান থেকে চলে আসতে হয়েছিল।’ তিনি আরো বলেন, ‘কোচের নিষেধ আছে এক ম্যাচ জিতেই আত্বতুষ্টিতে ভোগা। তাই ভুটান ম্যাচ জিতে সেভাবে জয়ও উদযাপন করা হয়নি। ভুটানকে হারাতে পেরে দলের সবাই খুব খুশি। আমরা বেশ ফুরফুরে মেজাজে রয়েছি।’
ইমন যোগ করেন, ‘ভুটানের বিপক্ষে করা সুফিলের গোলটি আমার থ্রু পাসেই হয়েছে। তবে সুফিলের মুভমেন্ট দারুণ ছিল। যে স্ট্রাইকিং পজিশনে খেলে সে যদি আমাকে জায়গা দেখায় তাহলে আমি বল যোগাতে বাধ্য থাকি। সুফিল সেই কাজটাই করেছে। আমাকে জায়গা দিয়েছে। আমি তাকে বল পাস দিয়েছি। তার গোল করার একটা ক্ষুধা আছে। তাই সে সুযোগ নষ্ট করেনি।’
এদিন বাংলাদেশ দলের অনুশীলন বাতিল হলেও বিকালে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব মাঠে অনুশিলন করেছে পাকিস্তান। অনুশীলন শেষে পাকিস্তানের কোচ জোসে অ্যান্তেনিও নভেইরো বলেন, ‘দু’দলের জন্য ম্যাচটি সেমিফাইনালে ওঠার লড়াই। জয়ের জন্যই আমরা মাঠে নামব। প্রতিপক্ষ হিসেবে বাংলাদেশ আমাদের চেয়ে এগিয়ে। ঘরের মাঠ ও দর্শকের কারণে তারা বাড়তি সুবিধা পাবে। তবে নেপালকে হারিয়ে আমাদের আত্মবিশ্বাস বেড়ে গেছে। বিশেষ করে নেপালীদের বিপক্ষে শেষ মুহূর্তে পাওয়া গোলে দল উজ্জীবিত।’ ম্যাচের কৌশলন নিয়ে অ্যান্ডতনির কথা, ‘ম্যাচের কৌশল কি হবে সেটা নিয়ে এখন কিছু বলতে চাই না। নেপাল ম্যাচে আমাদের যেসব ভুল-ত্রæটি ছিল সেগুলো নিয়েই এখন কাজ চলছে। বাংলাদেশ ম্যাচে যেন সেই ভুলগুলো না হয় এটা আমাদের মাথায় রয়েছে। আমরা চেষ্টা করবো স্বাগতিকদের হারাতে।’

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর