Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ১৩ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

ফুলবাড়ীতে আমন ক্ষেত ফেটে চৌচির

ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) উপজেলা সংবাদদতাা | প্রকাশের সময় : ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

উত্তর বঙ্গের অনগ্রসর উপজেলা ফুলবাড়ী। কোনো শিল্প কারখানা গড়ে না উঠায় কৃষিই হচ্ছে এখানকার মানুষের একমাত্র অবলম্বন। প্রায় দেড় মাস থেকে কাক্সিক্ষত বৃষ্টি না হওয়ায় আমন আবাদ নিয়ে বিপাকে পড়েছেন এখানকার কৃষক। প্রকৃতির বৈরিতায় আমন ক্ষেত ফেঁটে চৌচির। বৃষ্টির জন্য দাসিয়ারছড়া সিটমহলে মুসলমানেরা নামাজ ও বিভিন্ন জায়গায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা ব্যাঙের বিয়ে দিচ্ছেন। আকাশে মেঘের আনাগোনা থাকলেও বৃষ্টির দেখা নেই। প্রচণ্ড রোদ আর খরায় বাধ্য হয়ে অনেকে জমিতে সেচ দিচ্ছেন। কারো জমি আগাছায় ভরে গেছে। অনেকেই মোটর ও শ্যালোমেশিন দিয়ে পাইপের সাহায্যে দূরবর্তী জমিতে সেচ দিচ্ছেন কৃষকেরা। এতে খরচ পড়ছে অনেক। প্রতি টিপ পানি দেয়ার জন্য বিঘা প্রতি ঘণ্টায় দুই থেকে তিনশ’ টাকা করে নিচ্ছে বৈদ্যুতিক মোটর ও শ্যালোমেশিন মালিকরা। নিড়ানী, সেচ দিতে কৃষকের বাড়তি টাকা খরচ হচ্ছে।
গত কয়েক বছর থেকে ধানের বাজার মন্দা, বাড়তি টাকা খরচ করে শেষ পর্যন্ত ধানের ন্যায্য মূল্য পাবে কিনা তা নিয়ে শঙ্কিত কৃষক। বড়ভিটা গ্রামের কৃষক শাহাদত হোসেন বলেন, তিনি সাত বিঘা জমিতে আমন আবাদ করেছেন। বৃষ্টি না হওয়ায় নিড়ানী ও সেচ দিতে তার বাড়তি বিঘাপ্রতি দুই-তিন হাজার টাকা খরচ হচ্ছে। সংসারে ধারদেনা অনেক এবার খরায় উৎপাদন কম হলে আমরা বাঁচব কিভাবে? ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহাবুবুর রশিদ বলেন, এবার ফুলবাড়ীতে ১২ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে আমন চাষ করা হয়েছে। খরার জন্য সেচের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। কয়েক দিনের মধ্যে বৃষ্টি হতে পারে। কাক্সিক্ষত বৃষ্টি হলে এখনো ভালো ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।