Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

এনবিআর বড় প্রতিষ্ঠানের মূল্যভিত্তি যাচাই করবে

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

প্রদর্শিত ম‚ল্যতথ্য সমজাতীয় অন্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তুলনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। পণ্য ও সেবা বিক্রির ক্ষেত্রে ভুল তথ্য দিয়ে বড় কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানগুলো রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছে কী না তা খতিয়ে দেখার উদ্যোগ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ভ্যাট ফাঁকি বন্ধে কমিশনারেট ভিত্তিক নিয়মিত নিরীক্ষার বাইরে এ কার্যক্রম পরিচালনা করবে এনবিআর। প্রাথমিকভাবে বৃহৎ করদাতা ইউনিটের (এলটিইউ) অধীনস্থ প্রতিষ্ঠানগুলোর বার্ষিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে ম‚ল্যতথ্য যাচাইয়ের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বছরে ৫ কোটি টাকার বেশি ভ্যাট দিচ্ছে এমন সব প্রতিষ্ঠানই এলটিইউতে ভ্যাট পরিশোধ করে। এলটিইউর বাইরে ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ অন্য কমিশনারেটগুলোয় ভ্যাট দেয়া বড় প্রতিষ্ঠানগুলোতেও পর্যায়ক্রমে এ নির্দেশনা বাস্তবায়ন করা হবে। এ লক্ষ্যে এরই মধ্যে ম‚সক বাস্তবায়ন শাখা থেকে মাঠ পর্যায়ে নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। এনবিআর বলছে, চলতি অর্থবছরের অতিরিক্ত লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ও রাজস্ব ফাঁকি বন্ধে নিরীক্ষার আওতা বাড়ানোসহ নতুন কিছু উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ম‚ল্যভিত্তি যাচাই এর মধ্যে অন্যতম। ২৫-৩০ কোটি টাকার বেশি রেভিনিউ রয়েছে এমন ভ্যাটযোগ্য প্রতিষ্ঠানগুলো ভবিষ্যতে এর আওতায় আসবে।
এ প্রসঙ্গে এনবিআর সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, ভ্যাটের ক্ষেত্রেই মাঠ পর্যায়ে অনিয়ম সবচেয়ে বেশি হয়। কোম্পানিগুলো অধিকাংশ ক্ষেত্রেই একাধিক আর্থিক প্রতিবেদন তৈরি করে। তারা এনবিআরকে এক ধরনের ম‚ল্যভিত্তি দেখালেও বাজারে ওই পণ্যের ম‚ল্যে পার্থক্য দেখা যায়। মেশিন বসানোর ফলে কিছু পণ্যে তা নিয়ন্ত্রণ করা গেলেও অধিকাংশ পণ্যেই কোম্পানির ম‚ল্যভিত্তির ওপর নির্ভর করতে হয়। এর মাধ্যমে ভ্যাট ফাঁকি বন্ধে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এলটিইউকে দেয়া নির্দেশনায় এনবিআর বলেছে, প্রতিটি করদাতা প্রতিষ্ঠান সঠিক পরিমাণ রাজস্ব পরিশোধ করছে কী না, তা সংশ্লিষ্ট মাঠ কার্যালয়কে নিশ্চিত করতে হবে। ভ্যাটের ক্ষেত্রে ম‚ল্যভিত্তি বিবেচনায় ম‚ল্য ঘোষণা খুবই গুরুত্বপ‚র্ণ বিষয়। বড় প্রতিষ্ঠানগুলোয় ম‚ল্য ঘোষণায় হেরফের করে বড় ধরনের রাজস্ব ফাঁকি দেয়ার সুযোগ থাকে। সেক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানের ম‚ল্য ঘোষণা আইন অনুযায়ী রয়েছে কী না তা পরীক্ষা করতে হবে। প্রতিষ্ঠানগুলোর ব্যবসায়িক কার্যক্রমের গতিধারা, বিনিয়োগ, উৎপাদন প্রক্রিয়া, ব্যবহ‚ত উপকরণের ধরন ও সংগ্রহের উৎস, প্রতিষ্ঠানের অতীত কার্যক্রম সমজাতীয় অন্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তুলনা এবং পণ্য ও সেবার বাস্তব চাহিদা বিবেচনায় রেখে যাচাই করতে হবে। চলতি অর্থবছরের রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা প‚রণের লক্ষ্যে ঘোষিত ‘স্ট্র্যাটেজিক অ্যাকশন প্ল্যান’-এর আওতায় এ কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে বলে জানিয়েছে এনবিআর। ভ্যাট ফাঁকির গোপন সংবাদের ভিত্তিতেও কোম্পানির কারখানায় অভিযান চালিয়ে নিরীক্ষা করে মূসক নিরীক্ষা ও গোয়েন্দা অধিদপ্তর।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর