Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

পরিকল্পনায় ‘শতভাগ আছেন’ সাকিব

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

সাকিব আল হাসান আসলে কতটা ফিট? এই মুহূর্তে বাংলাদেশের ক্রিকেটে এটাই সম্ভবত সবচেয়ে বড় প্রশ্ন। দেশের শীর্ষ এক ইংরেজি প্রচারমাধ্যমে সাকিব দুই দিন আগে বলেছেন, খেলার জন্য তিনি মাত্র ২০-৩০ শতাংশ ফিট। শুক্রবার (৭ সেপ্টেম্বর) মিরপুরে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নিশ্চিত করলেন, সাকিব ভালোমতো পরিকল্পনাতেই আছেন। দলের সঙ্গে যোগ দিয়ে শুরু করবেন অনুশীলনও।
সাকিব নিজেকে ২০-৩০ শতাংশ ফিট দাবি করার পরেই এ নিয়ে প্রশ্ন শুনতে হয়েছে কোচ স্টিভ রোডস ও অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাকে। রোডস বলেছেন, সাকিব সেভাবে অনুশীলন না করেও খেলতে পারবেন। আর মাশরাফি ব্যাপারটা ছেড়ে দিয়েছেন সাকিবের ওপরেই। তবে বিসিবি ব্যাপারটা ভালোভাবে নেয়নি। বিসিবি পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেছেন, সাকিব বোর্ডকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে দিয়েছে। তার আগে বোর্ডের সঙ্গে আলাপ করা উচিত ছিল। পরে রাতে বোর্ডকে পাঠানো এক চিঠিতে সাকিব ব্যাখ্যা করেছেন, সাক্ষাৎকারে চোটের কথা আসলে সেভাবে বলেননি তিনি। তার কথা ভুলভাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে। তার না খেলা নিয়ে শঙ্কা নেই।
এসব নিয়েই গতকাল মিরপুরে প্রশ্ন করা হয়েছিল প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীনকে। তিনি সরাসরিই বললেন, ‘অবশ্যই সাকিবকে নিয়েই টিম ম্যানেজমেন্ট পরিকল্পনা করছে। এই জন্যই তো দলে আছে সে।’ মিনহাজুল স্পষ্ট করেই বললেন, সাকিবের ব্যাপারে ফিজিও কোনো নেতিবাচক প্রতিবেদন দেননি, ‘ফিজিও’র কাছ থেকে এমন কোনো রিপোর্ট পাইনি। কথা বাইরে কি হচ্ছে এটা কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ না। ফিজিও যেহেতু বলছে শতভাগ ফিট আছে তাহলে কোনো সমস্যা হওয়ার কথা না।’
নাজমুল হোসেন শান্তও দুই দিন আগে হাতে ব্যথা পেয়েছেন অনুশীলনে। তবে সবচেয়ে বড় দুঃসংবাদ, অনুশীলন করতে গিয়ে ডান হাতের অনামিকায় ছোট্ট চির ধরেছে তামিমের। প্রধান নির্বাচক দাবি করলেন, তামিম-শান্তর চোট নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। খেলার আগেই সবাই সেরে উঠবেন বলে আশাবাদী তারা।
তামিমের চোট কতটা গুরুতর, এখন পর্যন্ত সেটা নিশ্চিত করেনি টিম ম্যানেজমেন্ট। তবে বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে, প্রথম ম্যাচের আগে ফিট নাও হতে পারে। এর মধ্যে গত কয়েকদিন অনুশীলনও করেননি তামিম। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন অবশ্য দাবি করলেন, এটা এমন কিছু নয়, ‘ইনজুরি না এটা, ফিজিও বলছে সব ঠিক আছে। আমরা একজন ব্যাক আপ প্লেয়ার দিয়ে রাখলাম, এই যা। ইন কেইস শান্তর হাতের ব্যথা রিকভারি করার পর যদি আবার ব্যথা বাড়ে সেই চিন্তা থেকে মুমিনুলকে নেয়া। যাতে সামনে কোনো সমস্যা হলে আমাদের ব্যাকআপ থাকে।’
মুমিনুলকে শেষ মুহূর্তে ডেকে পাঠানো হলো কেন, সেটা নিয়েও আছে প্রশ্ন। মিনহাজুল সেটিরও ব্যাখ্যা দিলেন, ‘মুমিনুলকে নেয়া হয়েছে কারণ শান্তর আঙুলে একটু ব্যথা আছে। ওর পাঁচ দিনের মতো সময় লাগতে পারে, সম্পূর্ণ ফিট হতে। আর তামিম ইকবালের পুরনো ব্যথা আছে, সেটাও আঙুলের। ফিজিও থেকে পাওয়া রিপোর্টে কোনো সমস্যা নেই। টুর্নামেন্ট চলাকালীন সময়ে যদি কোনো সমস্যা হয়, খেলা শুরু হওয়ার আগে যদি কোনো সমস্যা হয়, তাহলে ব্যাকআপ হিসেবে বাড়তি প্লেয়ার লাগতে পারে। সেই হিসেবে মুমিনুলকে নেয়া।’ মিনহাজুল তাই চোট নিয়ে খুব একটা ভাবছেন না, ‘ফিজিও, ট্রেনারের যে রিপোর্ট আছে আমাদের কাছে, সেই হিসেবে পুরো দল শতভাগ ফিট আছে এবং সবাই আত্মবিশ্বাসী। একটা বড় টুর্নামেন্ট, এশিয়া কাপ খেলতে যাচ্ছে দল। আমরা যদি প্রথম ম্যাচটা ভালমতো জিততে পারি তাহলে অনেক দূর যাবো।’
২০১৫ বিশ্বকাপের পর মুমিনুল আর ওয়ানডে দলে নেই। সময়ের হিসেবে সেটা প্রায় সাড়ে তিন বছর। টেস্টে নিয়মিত এই ব্যাটসম্যান স¤প্রতি আয়ারল্যান্ড সফরে ‘এ’ দলের হয়ে ওয়ানডে ম্যাচে খেলেন ১৮২ রানের ইনিংস। ওই ইনিংস খেলার পর থেকেই দলে আসার আলোচনায় ছিলেন তিনি। চূড়ান্ত দলে শুরুতে না থাকলেও এবার মিলেছে ডাক। ১৫ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু বাংলাদেশের এশিয়া কাপ অভিযান। দল দুবাই যাবে আগামীকাল।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ