Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

কাঠপট্টি গুদারায় ভোগান্তি

| প্রকাশের সময় : ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

মুন্সীগঞ্জ কাঠপট্টি ও নারায়ণগঞ্জের চরসৈয়দপুর গুদারাঘাট দিয়ে প্রতিদিন দুই জেলার হাজার হাজার নৌযাত্রী খেয়া পারাপার হয়। কিন্তু পরিতাপের বিষয়, গুদারাঘাট ইজারাদারদের কাছে সাধারণ যাত্রীরা জিম্মি। যেন যাত্রীদের কানমলা দিয়ে তারা ইচ্ছামতো অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে। চার টাকার ভাড়া ১০ টাকা আদায় করছে দিনের বেলায়। সন্ধ্যার পর থেকেই রেগুলার সার্ভিসকে স্পেশাল সার্ভিস নাম দিয়ে ভাড়া আদায় করছে জনপ্রতি ২০ থেকে ৩০ টাকারও বেশি। প্রতিবাদ করলে যাত্রীদের মারধর ও অশ্লীল ভাষায় গালাগাল করা হয়। যাত্রীবোঝাই না হলে নৌকা ছাড়ে না। ঘাট মালিকদের দাপট থেকে যাত্রীদের রক্ষার যেন কেউ নেই। ঘাটকূলে ভাড়ার তালিকা বা কোনো নীতিমালা টাঙানো নেই। নেই কোনো টিকিট ব্যবস্থা বা সময়সূচি। কতজন যাত্রী হলে নৌকা ছাড়বে সেই তথ্য কেউ জানে না। সন্ধ্যায় ঘাটে অপেক্ষারত যাত্রীদের মশার তীব্র কামড়ে অনেকেই মশাবাহিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। ঘাটে পাকা রাস্তা না থাকায় কাদা-বালুতে জামাকাপড় নষ্ট হচ্ছে। কাঠপট্টি খেয়াঘাটে চলছে দিনের পর দিন চরম বিশৃঙ্খলা। এই জুলুম সহ্য করা কঠিন; যদিও গুদারাঘাটটি দেখভাল ও নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বে রয়েছে দুই জেলার জেলা পরিষদ। কিন্তু কাজের বেলায় তাদের পাওয়া যায় না। আবার স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও রহস্যজনকভাবে নীরব। সাধারণ যাত্রীরা এই ভোগান্তি থেকে মুক্তি চায়। এ অবস্থায় আমরা কার কাছে প্রতিকার চাইব?
এম আহমেদ, মিরকাদিম পৌরসভা, মুন্সীগঞ্জ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর