Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

সেরেনার জরিমানা, তবে...

স্পোর্টস ডেস্ক: | প্রকাশের সময় : ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০৪ এএম

ইউএস ওপেনের ফাইনালে আম্পায়ারকে ‘চোর’ ও ‘মিথ্যুক’ বলায় এবং কোড অব কন্ডাক্ট লঙ্ঘনের দায়ে জরিমানা গুনতে হচ্ছে সেরেনা উইলিয়ামসকে। ইউনাইটেড স্টেটস টেনিস অ্যাসোসিয়েশন (ইউএসটিএ) সেরেনাকে ১৭ হাজার ডলার জরিমানা করেছে। ইউএস ওপেনের রানার্সআপ হওয়ায় ১.৮৫ মিলিয়ন ডলার প্রাইজমানি জিতেছেন সেরেনা। প্রাইজমানি থেকে জরিমানার অর্থ কেটে নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে ইউএসটিএ।
গত শনিবার ইউএস ওপেনের ফাইনালে ২৩ গ্র্যান্ড ¯ø্যামজয়ী সেরেনাকে হারিয়েছেন জাপানের নাওমি ওসাকা। প্রথম জাপানি হিসেবে নাওমি জিতেছেন কোনো গ্র্যান্ড ¯ø্যাম শিরোপা। ৬-২, ৬-৪ গেমে সরাসরি হেরেছেন সেরেনা। কিন্তু ম্যাচটি যেভাবে শেষ হয়ে তা সবার আছে অপ্রত্যাশিত। অন ফিল্ডে কোচের থেকে ‘পরামর্শ’ নেওয়ার অভিযোগ উঠে সেরেনার বিরুদ্ধে। প্রথমে তাকে সতর্ক করা হয়। পুনরায় একই কাজ করায় পেনাল্টি পয়েন্ট দেওয়া হয় নাওমিকে। এরপর মেজাজ হারিয়ে আম্পায়ারকে ধুয়ে দেন সেরেনা। তাকে ‘চোর’ ও ‘মিথ্যুক’ বলে সম্বোধন করেন। এছাড়া আম্পায়ারের বিরুদ্ধে লিঙ্গবৈষ্যমের অভিযোগ তোলেন সেরেনা।
সেরেনাকে সমর্থন করেছেন কিংবদন্তি বিলি জিননের মতো কিংবদন্তি। তিনি টুইটারে লিখেছেন, ‘যখন কোনো মেয়ে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়ে, তখন তাকে বলা হয় হিস্টিরিয়াগ্রস্ত। কিন্তু পুরুষেরা একই জিনিস করলে বলা হয়, বাহ্! এ তো খোলাখুলি কথা বলতে ভয় পায় না। ছেলেটার শাস্তিও হয় না। এটি পরিষ্কার দ্বিচারিতা। ধন্যবাদ সেরেনা উইলিয়ামস, এই দ্বিচারিতাকে সামনে নিয়ে আসার জন্য।’ আরেক নারী টেনিস তারকা ভিক্টোরিয়া আজারেঙ্কাও দিয়েছেন পূর্ণ সমর্থন, ‘এটি যদি পুরুষদের খেলা হতো, তাহলে এমন কিছুই হতো না।’ বিষয়টি নিয়ে বিবিসির টেনিস উপস্থাপক বলেছেন, ‘আম্পায়ার বইয়ে লেখা আইন অনুসরণ করছিলেন কিন্তু সেরেনার কথায় যুক্তি আছে। এজন্য বলছি অনেক সময় বইয়ের লেখা আইনেরও পরিবর্তন আনতে হয়।’
সেরেনার এই অভিযোগ পুরোপুরি উড়িয়ে দিতে পারেন নি সংস্থার ট্যুর চিফ স্টিভ সিমনস। টেনিস কোর্টের এমন বৈষম্য স্বীকার করে এটি সমাধানের লক্ষ্যে কাজ করার কথা জানিয়েছেন তিনি। ডব্লুটিএ এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘ডব্লিটিএ বিশ্বাস করে, কোর্টে ছেলে কিংবা মেয়ে খেলোয়াড়দের প্রকাশ করা আবেগের সহনীয় মাত্রা একই হওয়া উচিত। কোর্টে নারী-পুরুষ সব খেলোয়াড়কে যেন সমান চোখে দেখা হয়। সবার প্রতি একই বিচার প্রতিষ্ঠায় সংস্থা কাজ করে যাবে। আমরা বিশ্বাস করি না যে ইউএস ওপেনের ফাইনালে সেরেনার প্রতি সেই আচরণ নিশ্চিত হয়েছে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।