Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০৩ ভাদ্র ১৪২৬, ১৬ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

মোশাররফকে পাকিস্তানে ফেরাতে প্রচেষ্টায় আদালত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১:০১ এএম

পাকিস্তানের সাবেক সামরিক শাসক জেনারেল পারভেজ মোশাররফের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলার শুনানিতে তাকে ফিরিয়ে এনে আদালতে হাজির করানোর জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে নির্দেশনা চেয়েছে পাকিস্তানের আদালত।

বিচারপিত ইউওয়ার আলীর নেতৃত্বে দুই সদস্য বিশিষ্ট হাইকোর্ট-বেঞ্চ গতকাল সোমবার শুনানির পরে এই নির্দেশ দিয়ে আগামী ৯ই অক্টোবর পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করে তার আগেই আদালতে তা লিখিতভাবে জমা দেয়ার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেন। এছাড়াও প্রসিকিউশনের আইনজীবী নাসের উদ্দিন নায়ারকে বিচারপতি আলি বলেন, আদালতকে গাইডলাইন দিন যে, মোশাররফের বক্তব্য কি ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে রেকর্ড করা যায় কিনা। আদালত সিদ্ধান্ত নিয়েছে মামলা দ্রুত শেষ করতে শুনানি ৯ই অক্টোবর থেকে প্রতিদিনই চলবে।
পারভেজ মোশাররফ ক্ষমতায় থাকাকালীন ২০০৭ সালের নভেম্বরে সংবিধান বহির্ভূত জরুরি অবস্থা জারি করেছিলেন। এ জন্য ২০১৩ সালে তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের সরকার। এ মামলার শুনানি ছিল সোমবার। এদিন বিচারপতি ইয়াওয়ার আলির নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইবুনাল মামলার শুনানি মুলতবি করেন। তারা এরপর ৯ই অক্টোবর থেকে প্রতিদিন এ মামলার শুনানির সিদ্ধান্ত নেন।
২০১৬ সালের ১৮ই মার্চে চিকিৎসার নাম করে দুবাই পাড়ি জমান পারভেজ মোশাররফ। সুপ্রিম কোর্ট এক পর্যায়ে তার নাম এক্সিট কন্ট্রোল লিস্ট থেকে বাদ দেয়ার নির্দেশ দিলে তিনি বিদেশে যেতে সক্ষম হন। এর কয়েক মাস পরে বিশেষ আদালত তাকে অপরাধী হিসেবে ঘোষণা দেয়। তার সব সহায় সম্পত্তি জব্দ করে নেয়ার নির্দেশনা দেয় আদালত। ওদিকে নিরাপত্তার অজুহাতে বার বার পাকিস্তানে ফিরতে অস্বীকৃতি জানান মোশাররফ। তার আইনজীবী আকার শাহ বলেছেন, নিরাপত্তার কারণে ব্যক্তিগতভাবে আদালতে হাজির হতে পারছেন না পারভেজ মোশাররফ। তা ছাড়া তার স্বাস্থ্যও ভালো নয়। দুবাইয়ের চিকিৎসকরা তাকে ভ্রমণ করতে অনুমতি দিচ্ছেন না এ জন্য। যদি সরকার তার নিরাপত্তা নিশ্চিত করে তাহলে তিনি আদালতে হাজির হতে পারেন। সূত্র: ডন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান


আরও
আরও পড়ুন