Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

একজন বৃক্ষপ্রেমিকের কথা...

জয়নাল আবেদীন জয় : | প্রকাশের সময় : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০৪ এএম

সংসারে নিত্য অভাব অনটন। সম্পদ বলতে শুধু মাথা গোজার ঠাই একটি ঘর। বাদাম বিক্রিতা থেকে এখন বৃক্ষপ্রেমি। সবুজ বাংলাদেশ গড়তে নিজ এলাকায় হাজার হাজার সবুজ বৃক্ষ রোপন করে চলেছে এক বৃক্ষপ্রেমি। একটি জেলার শিক্ষা, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, রাস্তা ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে তার লাগানো সবুজ বৃক্ষে ভরে গেছে। দরিদ্র পরিবারের কথা চিন্তা না করে নিজের জমানো টাকায় চলছে তার নীরব বৃক্ষরোপন কর্মসূচি। পরিবারের নানা অভাব অনটনেও তার এ বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি কখনো থেমে যায়নি। গত ৮ বছর ধরে এ সবুজ বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি চলছে। বৃক্ষপ্রেমি এ উদ্যামী মানুষটি সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার বড়হর ইউনিয়নের ডেফলবাড়ি গ্রামের আবুল হোসেন। সে ওই গ্রামের দিন মজুর আব্দুল কাদেরের পুত্র। ইতিমধ্যে সে প্রায় ১০ হাজার গাছ লাগিয়েছে। ২০১০ সাল থেকে তার এ কর্মসূচি চলছে।
আবুল হোসেন ইতিমধ্যে সিরাজগঞ্জ জেলা শহর সহ উল্লাপাড়া উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, রাস্তা, পুকুর পাড়, শহীদ মিনার সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নিজের অর্থায়নে প্রায় ১০ হাজার গাছের চারা লাগিয়েছে। এসব গাছের মধ্যে রয়েছে ফলজ, বনজ, ঔষধি সহ সবজি বীজ। আবুল হোসেনের লাগানো এসব সবুজ চারা গাছ এখন বড় বৃক্ষে পরিনত হয়েছে। গাছগুলো সবুজ ছায়াতে ভরে দিয়েছে প্রতিটি স্থান। বৃক্ষপ্রেমি এই উদ্যামী মানুষ নিজ উদ্যাগে গাছ লাগিয়ে সবাইকে দেখিয়ে দিয়েছে ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়।
বৈশ্বিক তাপমাত্রা, কার্বন নি:সরণ, জলবায়ু পরিবর্তন ইত্যাদির ক্ষতির ব্যাপকতা রোধ করে আগামী প্রজন্মের বসবাসের উপযুক্ত পরিবেশ এবং সবুজ বাংলাদেশ গড়ে তুলতে আবুল হোসেন এই বৃক্ষ রোপন বিপ্লব চালিয়ে যাচ্ছেন। হতদরিদ্র পরিবারের কথা চিন্তা না করে নিজের চাকুরীর বেতন থেকে প্রতিমাসে বৃক্ষ রোপনের জন্য টাকা জমিয়ে সে গাছের চারা কিনে রোপন করছেন বিভিন্ন স্থানে। উল্লাপাড়া উপজেলা সহ জেলার অন্তত ২৫ টির মত প্রতিষ্ঠানে গাছ লাগিয়েছে আবুল হোসেন। একই সাথে শিক্ষার্থীদের বৃক্ষরোপনে উৎসাহিত করতে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে গাছের চারা বিতরন করেছে। নিজের চাকুরীর ছুটির দু’দিন সে এই বৃক্ষ রোপন অভিযান কর্মকান্ড করে থাকে। তার এই কর্মকান্ডের জন্য ভালবেসে কেউ তাকে গাছ পাগল, গেছো আবুল সহ নানা উপাধিতে ডেকে থাকে। আবুল হোসেনের এই সামাজিক কর্মকান্ড দেশের শীর্ষ দৈনিক ও টেলিভিশনে গুরত্ব সহকারে প্রকাশিত, প্রচারিত হয়েছে। উল্লাপাড়ার বড়হর স্কুল এ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. সাইফুল ইসলাম জানান, আবুল হোসেনের মত নিজ উদ্যাগে এমন সামাজিক কর্মকান্ড করা মানুষ আমাদের সমাজে বড় অভাব। নিজের সংসারে অভাব থাকা সত্তে¡ও আবুল হোসেন প্রতিদিন নিজ অর্থায়নে বৃক্ষ রোপন করে চলেছে। সে আমার বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রায় বিনামূল্যে ২ হাজার গাছের চারা বিতরণ করেছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন