Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৩ পৌষ ১৪২৫, ৯ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

পিএলএতে স্নাইপার প্লাটুন ও অ্যান্টি-জ্যামিং সিস্টেম চালু

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০৪ এএম

চীন তার পিপলস লিবারেশন আর্মির (পিএলএ) একটি মোবাইল ইনফ্যানট্রি ব্যাটালিয়নে ‘স্নাইপার প্লাটুন’ চালু করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্রের মতে, ওয়েস্টার্ন থিয়েটার কমান্ডের সা¤প্রতিক মহড়ায় প্রথমবারের মতো মোবাইল ইনফ্যানট্রি ব্যাটালিয়নের ‘স্নাইপার প্লাটুন’ দেখা গেছে। পিএলএর পাঁচটি যুদ্ধ এলাকার একটি হচ্ছে ওয়েস্টার্ন থিয়েটার কমান্ড। ওয়েস্টার্ন থিয়েটার কমান্ডের সদরদফতর চেঙ্গদু প্রদেশে। এটি প্রধানত পার্বত্য যুদ্ধের জন্য তৈরি থাকে। পরিচয় প্রকাশে অনিচ্ছুক ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, কম্বাইন্ড ব্যাটালিয়নগুলোতে দূর পাল্লার যুদ্ধক্ষেত্রের নজরদারি ও নিখুঁত গোলাবর্ষণ সহায়ক মিশনের জন্য মার্কিন মেরিন কোরের আদলে প্রতিটি কম্বাইন্ড ব্যাটালিয়নে একটি স্নাইপার প্লাটুন গড়েছে পিএলএ। স্নাইপার প্লাটুনে বিশেষ বুলেট, সর্বোচ্চ ১৫০০ মিটার কার্যকর পাল্লার টাইপ-১০ লার্জ ক্যালিবার র‌্যাঞ্জ স্নাইপার রাইফেল দিয়ে স্নাইপার প্লাটুনকে সজ্জিত করা হয়েছে। এই বাহিনীকে সামরিক যান, হালকা সাঁজোয়া যান, বিমান অন্যান্য হালকা সামরিক সরঞ্জামের ওপর গোলাবর্ষণের মতো অস্ত্রেও সজ্জিত করা হয়েছে। যুদ্ধকালে শত্রুর কমিউনিকেশন সিস্টেম অচল করার জন্য প্রতিটি কম্বাইন্ড ব্যাটালিয়নের স্নাইপার প্লাটুনে অ্যান্টি জ্যামিং যোগাযোগ সরঞ্জামও রাখার পরিকল্পনা করছে পিএলএ। যুদ্ধে অ্যান্টিনা পিএলএর অ্যান্টি-জ্যামিং সামর্থ্য বাড়াবে, যোগাযোগের স্থিতিশীলতা ও নির্ভরতা বৃদ্ধি করবে। সূত্রটি জানায়, চলতি বছর চীনের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বেদু নেভিগেশন স্যাটেলাইট সিস্টেমের জন্য চীন ক্ষেপণাস্ত্রবাহীন অ্যান্টি-ইন্টারফারেন্স অ্যান্টিনা সরবরাহ করবে। এটি যুদ্ধে শত্রæর যোগাযোগ ব্যবস্থাকে অচল করে দেবে। আগের খবরে বলা হয়েছিল, চীন কবুতরের মতো দেখতে ক্যামেরা-সজ্জিত ড্রোনের মাধ্যমে তার ব্যাপক নজরদারি সামর্থ্য বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে। হুবহু পাখির মতোই এসব নজরদারি ড্রোন ডানা ঝাপটিয়ে ছোঁ মারা, ঝাঁপ দেয়া, উড়তে উড়তে নজরদারি কার্যক্রম চালাতে পারবে। এসব ড্রোন সত্যিকারের সত্যিকারের পাখির ঝাঁকে সাথে মিশে থাকায় তা চেনা কঠিন হবে। ফলে এগুলো রাডার ফাঁকি দিতে পারবে। এসব গোয়েন্দা ড্রোন ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার বেগে ৩০ মিনিট পর্যন্ত উড়তে পারে। এসব ড্রোন জিনজিয়াঙ অঞ্চলে মোতায়েন করা হয়েছে। সাউথ এশিয়ান মনিটর।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ