Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯, ০৭ চৈত্র ১৪২৫, ১৩ রজব ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

পাটকেলঘাটায় স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ

সাতক্ষীরা জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটায় যৌতুকের দাবিতে এক প্রবাসীর স্ত্রীকে নির্যাতন চালিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। রোববার দিবাগত রাতে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
নিহত গৃহবধু শাহানারা খাতুন (২০) তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা থানার উত্তর শার্শা গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী আসাদুল গাজীর স্ত্রী ও পার্শ্ববর্তী এনায়েতপুর শানতলা গ্রামের জলিল সরদারের মেয়ে।
নিহতের বোন হোসনে আরা খাতুন জানান, ২০১৬ সালের আগষ্ট মাসে ছোট বোন শাহানারার সাথে উত্তর শার্শা গ্রামের অমেদ আলী গাজীর ছেলে আসাদুল ইসলামের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় সোনার গহনাসহ নগদ ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দেওয়া হয়। পরবর্তীতে জমি বন্ধক রাখার কথা বলে আরো ৪০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় আসাদুল। কিছুদিন বাদে বড় ভাই আজাহারুলের সাথে আসাদুল মালয়েশিয়ায় চলে যায়। এরপর থেকে আসাদুলের পরিবারের সদস্যরা শাহানারাকে বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য বিভিন্নভাবে চাপ সৃষ্টি করতো। টাকা দিতে না পারলে তাকে মানসিক ও শারিরিকভাবে নির্যাতন চালানো হতো। বিষয়টি শাহানারা মোবাইলে তার স্বামী আসাদুলকে জানালে সে-ও তাকে হুমকি দিতো। একপর্যায়ে শাহানারার মোবাইল ফোনটি নিয়ে নেয় তার শ্বাশুড়ি চন্দনা বিবি।
হোসনে আরা আরো জানান, গত শনিবার রাতে শ্বাশুড়ি চন্দনা বিবিসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা তাকে নির্যাতনের পর গলায় দড়ি দিয়ে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে দরজায় তালা লাগিয়ে পালিয়ে যায়। পরে গ্রামবাসিরা এসে দড়ি কেটে মুমুর্ষ শাহানারাকে রাতেই সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। রোববার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ মাহাবুবর রহমান জানান, শাহানারার মুখের নীচের অংশসহ (থুতনি) শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ময়না তদন্ত ছাড়া মৃত্যুর কারণ বলা যাবে না।
পাটকেলঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল ইসলাম জানান, ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর আসল বিষয়টি জানা যাবে। এ ঘটনায় কেউ কোন অভিযোগ এখনো দেননি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হত্যা


আরও
আরও পড়ুন