Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২২ অক্টোবর ২০১৮, ৭ কার্তিক ১৪২৫, ১১ সফর ১৪৪০ হিজরী

সোহেলকে বাধা মনে করে সরকার গ্রেফতার করেছে -রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১০:০৯ পিএম | আপডেট : ১২:০৭ এএম, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

হাবিব উন নবী খান সোহেলকে গ্রেফতার করলে সরকারের টেনশন দূর হবে মনে করেই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, ছাত্রজীবন থেকেই সোহেল প্রতিবাদী ছাত্রনেতা। তিনি সব সময় অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী কন্ঠস্বর। সে সব সময় সরকারের সমালোচনা করে বক্তব্য দেয়, মিছিল করে এটাই তার অপরাধ। এই সরকারের পতন আন্দোলনে হাবীব উন নবী সোহেল অগ্রণী সৈনিক এজন্যই তাকে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ৯টায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় গুলশান-২ নম্বর গোল চক্কর থেকে বিএনপি যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি’র সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেলকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। পরে তাকে মিন্টু রোডের ডিবি কার্যালয়ে আানা হয়।
রিজভী বলেন, দেশব্যাপী চলমান পাইকারী মামলা-হামলা-গ্রেফতারের ধারাবাহিকতায় হাবিব উন নবী খান সোহেলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আওয়ামী মহাজোট সরকার এখন পতনের ভয়ে শঙ্কিত ও আতঙ্কিত। অবৈধ সরকারের নির্মমতায় জনগণ ফুঁসে উঠেছে। সরকার প্রস্থানপথ খোঁজার জন্যই সারাদেশ নি:শব্দ করে কারাগারগুলোতে ঠেসে ঢোকানো হচ্ছে বিরোধী নেতাকর্মীদের। সারাদেশের কারাগারগুলো রাজবন্দীদের ভিড়ে উপচে পড়ছে। সরকার টিকে থাকতে কোথাও থেকে কোনও বার্তা পাচ্ছে না। মাঝ দরিয়ায় হাবুডুবু খাওয়া অবৈধ সরকার প্রতিদিন ক্রসফায়ারে হত্যা ও গুমের অমানবিক পদ্ধতি অবলম্বন করার পরেও ক্ষুদ্ধ জনসাধারণকে বাগে আনতে ব্যর্থ হচ্ছে। তাই আবারও জনসমর্থন ছাড়া ক্ষমতায় থাকতে এক সরকার চরম অনাচারে লিপ্ত হয়েছে। ষড়যন্ত্র, চক্রান্ত, জালজালিয়াতি, মিথ্যাচার ইত্যাদি অবলম্বন করেই সরকার আগামী জাতীয় নির্বাচন নিয়ে অশুভ পরিকল্পনা বাস্তবায়নে মেতে উঠেছে। ক্ষমতা হারানোর হতাশার বিকারেই সরকার মারমুখি হয়ে উঠেছে।
তিনি বলেন, হাবিব উন নবী খান সোহেল বিএনপি’র একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা। ছাত্র রাজনীতি শেষ করার পরে সে ক্রমান্বয়ে বর্তমান অবস্থানে থেকে রাজনীতি করছে। একজন সজ্জন, মৃদুভাষী রাজনীতি হওয়ার পরও শুধুমাত্র সক্রিয়ভাবে জাতীয়তাবাদী রাজনীতি ও গণতান্ত্রিক সংগ্রামে অংশগ্রহণ করার জন্য তার বিরুদ্ধে শত শত মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা দায়ের করা হয়েছে বিগত কয়েক বছরে। বেশ কিছু মামলায় জামিনের পরে কারাগার থেকে বেরিয়ে আসার পরও গত আট মাসে তার বিরুদ্ধে সত্তর থেকে আশিটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ইতোমধ্যে কয়েক দফা তার বাসায় পুলিশ হানা দিয়ে বাড়ীঘর তছনছ করে দিয়েছে।
বিএনপির এই নেতা হাবিব উন নবী খান সোহেলকে গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান এবং অবিলম্বে তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত সকল মিথ্যা ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বানোয়াট মামলা প্রত্যাহারসহ নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান।
এসময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুস সালাম আাজাদ, তাইফুল ইসলাম টিপু, ডা. রফিকুল ইসলাম, আমিনুল ইসলাম, জাসাস নেতা জহেদুল আলম হিটো প্রমু।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর