Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫ পৌষ ১৪২৫, ১১ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

আ.লীগকে ক্ষমতায় এনে প্রতারিত হয়েছি

কর্মশালায় এরশাদ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০১ এএম

আমি এবং জাতীয় পার্টি সমর্থন না দিলে আওয়ামী লীগ কখনোই ক্ষমতায় যেতে পারতো না বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তিনি বলেন, কিন্তু তাদের (আওয়ামী লীগ) কাছেও আমরা সুবিচার পাইনি, আমরা প্রতারিত হয়েছি। ’৯০ সালে ক্ষমতা ছাড়ার পর একটি দিনও মুক্ত ভাবে রাজনীতি করতে পারিনি, আজো পারছি না। তবে, আগামী নির্বাচনে জয়ী হয়ে মুক্ত রাজনীতিবিদ হবো।
মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করবো, দেশে সুশাসন ফিরিয়ে দেবো। দেশের প্রতিহিংসার রাজনীতি বন্ধ করে সহমর্মীতা আর ভালোবাসার রাজনীতি উপহার দেবো। গতকাল বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক সম্মেলন সিটিতে দু’তিন ব্যাপী তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ক এক কর্মশালার সমাপনী অধিবেশনে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, আমরা কখনো প্রতিহিংসার রাজনীতি করিনি। যারা প্রতিহিংসার রাজনীতি করে আমাকে জেলে দিয়েছে, আমার পার্টি ধংস করতে চেয়েছে... আমরা তাদের কথা মনে রাখবো। দেশের মানুষও তাদের কথা মনে রাখবে। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করে ৫ কোটি ভোটারের কাছে যাবো। নতুন প্রজন্মেও কাছে আমাদেও কথাগুলো তুলে ধরবো। আমান বিশ্বাস তারা আমাদেরও ভোট দিয়ে জয়ী করবে। ১৯৯৬ সালের নির্বাচনের কথা উল্লেখ করে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, আমরা সমর্থন না দিলে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসতে পারতো না। কিন্তু তাদের কাছেও আমরা সুবিচার পাইনি, আমরা সবার কাছেই প্রতারিত হয়েছি। আমাকে জেলে পাঠিয়ে ৫ কোটি টাকা জরিমানাও করেছিলো। আমাদের বন্ধু আমরাই। কান রাজনৈতিক দল আমাদের বন্ধ নয়। আমাদের প্রকৃত বন্ধু কৃষক, শ্রমিক এবং মেহনতী মানুষ। আমরা তাদের জন্যই রাজনীতি করি।
হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় গিয়ে তাদের সাড়ে ৫ হাজার মামলা এবং আওয়ামী লীগ ৬ হাজার মামলা তুলে নিয়েছে। আমার নামের মামলা গুলো এখনো চলছে। জেল খেটেছি, কষ্ট পেয়েছি অনেক। আজ উজ্জীবিত জাতীয় পার্টি দেখে মনের সব কষ্ট দূর হয়েছে। তিনি নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, নতুন করে শপথ নিলাম নতুন বাংলাদেশ গড়বো, কেউ আমাদেও আটকাতে পারবে না। এবার আমরা শৃংখলমুক্ত হবোই।
এরআগে জাতীয় পার্টির দলীয় অ্যাপস এর উপর ধারনা দেন চেয়ারম্যানের তথ্য ও প্রযুক্তি উপদেষ্টা শফিউল্লাহ আল মুনির। দিনভর তথ্য প্রযুক্তি এবং জাতীয় পার্টির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সেশান পরিচালনা করা হয়। উপস্থিত ছিলেন কো চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব রুহুল আমিন, প্রেসিডিয়াম সদস্য এমএ সাত্তার, মোঃ হাফিজ উদ্দিন, সৈয়দ আবদুল মান্নান, মাহজমুদুল ইসলাম চৌধুরী, মশিউর রহমান রাঙা, নুর-ই হাসনা লিলি চৌধুরী, সোলায়মান আলম শেঠ, এড, এম রশিদ, নাসরিন জাহান রতনা, মেজর (অব.) খালেদ আকতার, মাসুদ পারভেজ সোহেল রানা, শফিকুল ইসলাম সেন্টু, মেরিনা রহমান, সৈয়দ দিদার বক্স প্রমুখ। ##



 

Show all comments
  • কাজল ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ২:৫৮ এএম says : 0
    এতদিন পরে বুঝলেন ?
    Total Reply(0) Reply
  • ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০৫ পিএম says : 0
    এখানে আপনি আপনার মন্তব্য করতে পারেন সকাল-বিকাল কাকু, বাংলাদেশের মানুষ এখন আর আপনার কোনো কথার মূল্যায়ন করেনা
    Total Reply(0) Reply
  • Amjad Hosain ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৩:২১ পিএম says : 0
    আমি দাড়িয়ে যাবো, আপনি বসিয়ে দিয়েন..
    Total Reply(0) Reply
  • Md Billal ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৩:২২ পিএম says : 0
    নাটক আর কত
    Total Reply(0) Reply
  • মো. নিরব ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৩:২৪ পিএম says : 0
    কালকেই হয়তো দেখবেন, কথার সুর বদলে গেছে।
    Total Reply(0) Reply
  • পথিক ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৩:২৫ পিএম says : 0
    হয়তো আবারও হত হবে, নাটক সবাই বোঝে, দরকার একটা সুষ্ট নির্বাচন
    Total Reply(0) Reply
  • Asraful Islam ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৩:২৫ পিএম says : 0
    আশা করি এই বার ভুল করিবেন না
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর