Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮, ৫ কার্তিক ১৪২৫, ০৯ সফর ১৪৪০ হিজরী

কওমি মাদরাসার সর্বোচ্চ সনদ পাবে স্নাতকোত্তর ডিগ্রির মর্যাদা

সংসদে বিল পাস

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১:০৭ এএম

কওমি মাদরাসার সর্বোচ্চ সনদকে সাধারণ শিক্ষার স্নাতকোত্তর ডিগ্রির স্বীকৃতি দিতে সংসদে বিল পাস হয়েছে। গতকাল বুধবার শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ‘আল হাইআতুল উলয়া লিল জামি’আতিল কওমিয়া বাংলাদেশ’ এর অধীন ‘কওমি মাদরাসমূহের দাওরায়ে হাদিসের (তাকমীল) এর সনদকে মাস্টার্স ডিগ্রি (ইসলামিক স্টাডিজ ও আরবি) এর সমমান প্রদান বিল-২০১৮’ সংসদে পাসের প্রস্তাব করলে তা কণ্ঠভোটে পাস হয়।
এর আগে বিলের ওপর দেওয়া জনমত যাচাই, বাছাই কমিটিতে পাঠানো এবং সংশোধনী প্রস্তাবগুলো নিষ্পত্তি হয়। গত ১০ সেপ্টেম্বর বিলটি সংসদে তোলার পর তা পরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো হয়।
বর্তমানে ছয়টি বোর্ড কওমি মাদরাসাগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করছে। এদের নিয়ে কওমি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড গঠন করা হবে। এর নাম হবে ‘আলহাইয়্যাতুল উলিয়ালিল জামিয়াতুল কওমিয়া বাংলাদেশ’, আর কার্যালয় হবে ঢাকায়।
বিলে বলা হয়েছে, এই আইন বাংলাদেশের দারুল উলুম দেওবন্দের নীতি, আদর্শ ও নিসাব (পাঠ্যসূচি) অনুসরণে পরিচালিত হবে এবং কওমি মাদরাসাগুলোর দাওরায়ে হাদিসের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।
২০১৭ সালের ১১ এপ্রিল কওমি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান শাহ আহমদ শফী, কওমি মাদরাসা শিক্ষা কর্তৃপক্ষ আইন পর্যালোচনা কমিটির আহ্বায়ক মওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদসহ কয়েকশ’ আলেমের উপস্থিতিতে গণভবনে এক অনুষ্ঠানে কওমির সনদকে স্বীকৃতি দেওয়ার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর দুই দিন পর কওমি মাদরাসার সর্বোচ্চ সনদকে সাধারণ শিক্ষার স্নাতকোত্তর ডিগ্রির স্বীকৃতি দিয়ে আদেশ জারি করে সরকার। সনদ বিষয়ক যাবতীয় কার্যক্রমের ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত দেওয়ার জন্য শাহ আহমদ শফীকে চেয়ারম্যান করে একটি কমিটিও সেসময় করা হয়।
২০১৭ সালের ১৩ এপ্রিল গঠিত ওই কমিটিকে পাস হওয়া এই আইনের আওতায় আনা হয়েছে। কওমি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড এ কমিটির মাধ্যমে পরিচালিত হবে, কমিটিতে ৯ ধরনের ব্যক্তি থাকবেন।
বেফাকুল মাদরারিসিল আরাবিয়ার সভাপতি কমিটির চেয়ারম্যান, বেফাকুল মাদারিসিলের সিনিয়র সহ-সভাপতি, কো-চেয়ারম্যান এবং বেফাকুল মাদরারিসিল আবারিয়া বা এর মহাসচিব মনোনীত আরও পাঁচজন সদস্য থাকবেন কমিটিতে। এছাড়া, গওহরডাঙ্গার বেফাকুল মাদারিসিল কওমিয়া, চট্টগ্রামের আন্জুমানে ইত্তেহাদুল মাদারিসিল কওমিয়া, বগুড়ার আযাদদ্বীনি এদারায়ে তালিম, বগুড়ার তানজীমুল মাদারিসিল কওমিয়া এবং জাতীয় দ্বীনি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড থেকে দুই জন করে সদস্য কমিটিতে আসবেন।
চেয়ারম্যান ইচ্ছা করলে যে কাউকে কমিটিতে যোগ করে নিতে পারবেন। তবে সব মিলিয়ে তা ১৫ জনের বেশি হবে না। কমিটি ‘দলীয় রাজনীতির ঊর্ধ্বে’ থাকবে।
বিলের উদ্দেশ ও কারণ সম্পর্কে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “কওমি মাদরাসার বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের কথা বিবেচনা করে এবং কওমি মাদরাসার স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য ও স্বকীয়তা বজায় রেখে ‘আল হাইআতুল উলয়া লিল জামি’আতিল কওমিয়া বাংলাদেশ’ এর অধীন ‘কওমি মাদরাসমূহের দাওরায়ে হাদিস (তাকমীল) এর সনদকে মাস্টার্স ডিগ্রি (ইসলামিক স্টাডিজ ও আরবি) এর সমমান প্রদান বিল আনা হয়েছে।”



 

Show all comments
  • আবদুল কাইয়ুম শেখ ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৯:০৭ এএম says : 0
    কওমী সনদের স্বীকৃতির পথ পরিক্রমায় যারা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে বিভিন্ন সময় অবদান রেখেছেন তাদের সকলকে অভিনন্দন জানাই! অভিনন্দন জানাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে!
    Total Reply(1) Reply
    • MKM.Nazmullah Fazlul Bari Chowdhury ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১:২৫ পিএম says : 0
      ???? ????? ????????? ?? ????????? ???? ????????? ? ?????????? ??????? ??? ????? ??????? ????? ????? ???????? ?????! ???????? ????? ????????????? ??? ????????!

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ