Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫ পৌষ ১৪২৫, ১১ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

বিছানায় ট্রাম্প বেশী পানসে -স্টর্মি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৮:১২ পিএম

এক যুগ আগে তিনি ছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের শয্যাসঙ্গিনী। সেই পর্ন তারকা স্টর্মি ড্যানিয়েলসের দাবি, ট্রাম্পের সঙ্গ তাঁর সব চেয়ে পানসে বলে মনে হয়েছে। একটি ব্রিটিশ পত্রিকা এই খবর জানিয়েছে। স্টর্মি সম্প্রতি ‘ফুল ডিসক্লোজার’ নামে একটি বই লিখেছেন। ২ অক্টোবর সেটি প্রকাশিত হবে। তার আগেই কপি চলে গিয়েছে ব্রিটিশ ওই পত্রিকার কাছে। বই থেকে তারা স্টর্মির ‘ব্যাখ্যা’ ছড়িয়ে দিয়েছে বাজারে।
শুধু ট্রাম্পের সঙ্গে যৌন সম্পর্কের ধরন নিয়ে মন্তব্য নয়। স্টর্মি বইয়ে বিশদ বিবরণ দিয়েছেন, ট্রাম্পের যৌনাঙ্গের আকৃতি নিয়েও। লিখেছেন, ‘অনেকের চেয়ে ওটা ছোট। তবে ভয়ঙ্কর ছোট নয়!’ এক ধাপ এগিয়ে পর্ন তারকার মন্তব্য, ‘ট্রাম্প নিজেও জানেন, ওঁর যৌনাঙ্গ ‘অদ্ভুত’। মাথাটা বড়সড় ব্যাঙের ছাতার মতো।’
আমেরিকায় মধ্যবর্তী নির্বাচন নভেম্বর মাসে। তার ঠিক এক মাস আগেই মাঠে পড়তে চলেছে স্টর্মির এই ‘বোমা’। ট্রাম্প যদিও বরাবরই পর্ন তারকার সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক নিয়ে চুপ থেকেছেন। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে ট্রাম্পের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা নিয়ে মুখ না খোলার প্রতিশ্রুতি আদায় করে তাঁর প্রাক্তন আইনজীবী মাইকেল কোহেন গোপনে স্টর্মিকে ১ লক্ষ ৩০ হাজার ডলার দিয়েছিলেন বলে দাবি।
বইয়ে লেখা রয়েছে, ২০১৬ সালে রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হয়ে দৌড়ে ট্রাম্প ক্রমশ এগিয়ে যাচ্ছেন দেখে অবাক হয়েছিলেন স্টর্মি। তাঁর বক্তব্য, ‘আমি ভাবতে পারিনি, এটা কোনও দিন সত্যি হবে। উনি নিজেও প্রেসিডেন্ট হতে চাননি।’
২০০৬ সালে স্টর্মি-ট্রাম্প ঝড়ের শুরু। ক্যালিফোর্নিয়ার লেক টাহোয় একটা গল্ফ টুর্নামেন্টের সময়ে। ট্রাম্প তখন টিভি-তে রিয়্যালিটি শো-এর তারকা। আর তাঁর স্ত্রী মেলানিয়া সবে ব্যারনের মা হয়েছেন। গল্ফ টুর্নামেন্টেই ট্রাম্পকে প্রথম চাক্ষুষ দেখেন স্টর্মি। পর্ন তারকার কাছে প্রথমে নৈশভোজের আমন্ত্রণ পাঠান ট্রাম্পের এক দেহরক্ষী। ভোজ-পর্ব গড়িয়ে ট্রাম্পের পেন্টহাউসে শারীরিক ঘনিষ্ঠতার শুরু। মিলিত হওয়ার পরের অভিজ্ঞতা বলতে গিয়ে স্টর্মির সংযোজন, ‘এত পানসে আমার জীবনে লাগেনি! তবে ওঁর ক্ষেত্রে ব্যাপারটা একেবারে আলাদা।’
২০০৬ সালের মিলন-মুহূর্ত পেরিয়ে আরও এক বছর স্টর্মি যোগাযোগ রেখেছিলেন ট্রাম্পের সঙ্গে। মনে মনে পর্ন তারকার ইচ্ছে ছিল, যদি কোনও ভাবে ট্রাম্পের রিয়্যালিটি শো-এ মুখ দেখানো যায়! স্টর্মি-মগ্ন ট্রাম্পও সেই আশাই দেখিয়েছিলেন। বলেছিলেন, প্রয়োজনে ‘এপিসোড’ চুরি করে বাড়িয়ে দিয়ে স্টর্মিকে দেখানো হবে।
বইয়ের অংশ সংবাদমাধ্যমে ফাঁস হওয়ার পরে স্টর্মির আইনজীবী মাইকেল অ্যাভেনাটির টুইট, ‘ট্রাম্পের সঙ্গে স্টর্মির যৌন মিলন বর্ণনা করা বইটির গুরুত্বপূর্ণ অংশ নয়। এটি স্টর্মির জীবন নিয়ে। আধুনিক এক মহিলা ক্ষমতার সামনে দাঁড়িয়ে সত্যিটা নির্ভয়ে বলতে পেরেছেন— যার সাক্ষী এই বই।’ সূত্রঃ জিনিউজ।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর