Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ৩০ আশ্বিন ১৪২৫, ০৪ সফর ১৪৪০ হিজরী

আলোচনায় রোনালদোর লাল কার্ড

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০৬ এএম

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দ্বিতীয় দিনের শিরোনামটা কি হওয়া উচিত? ‘রোনালদো-জিদান ছাড়া’ বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদের অনায়াস জয়, ঘরের মাঠে হার দিয়ে মোস্ট ফেভারিট ম্যানচেস্টার সিটির ইউরোপিয়ান যাত্রা শুরু, নাকি ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর লাল কার্ড? নিশ্চিতভাবেই এক্ষেত্রে এগিয়ে থাকবে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ের লাল কার্ড প্রাপ্তির বিষয়টি।

রিয়াল ছাড়ার পর রোনালদোর প্রথমবারের মত স্পেনে ফেরা ও নতুন ক্লাব জুভেন্টাসের হয়ে নিজের ফেভারিট আসর চ্যাম্পিয়ন্স লিগে অভিষেক দুটিই হলো কান্নাভেজা। ম্যাচের বয়স তখন অর্ধ-ঘন্টাও পেরোয়নি। তার আগেই ‘অদ্ভুত’ এক লাল কার্ডের মুখোমুখি হয়ে অশ্রুসজল নয়নে মাঠ ছাড়তে হয় রোনালদোকে। দশ জনের দল নিয়েও অবশ্য জয় পেতে বেগ পোহাতে হয়নি জুভেন্টাসকে। ভ্যালেন্সিয়াকে তাদেরই মাঠে ২-০ গোলে হারিয়েছে সেরি আ চ্যাম্পিয়নরা। প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে ও বিরতি থেকে ফিরে দুটি সফল স্পট কিক থেকে গোল দুটি করেন ইতালিয়ান মিডফিল্ডার মিরালেম পিয়ানিচ। ২৮বার জুভেন্টাসের গোলমুখ লক্ষ্য করে শট নিয়েও জালের দেখা পায়নি ভ্যালেন্সিয়া। যোগ করা সময়ে পেনাল্টি থেকে ব্যবধান কমাতে ব্যর্থ হন অধিনায়ক দানি পারেয়ো। ২৯তম মিনিটে রোনালদো ছাড়ার আগেই বেশ কয়েকটি গোলের সুযোগ পেয়েছিল জুভেন্টাস। কিন্তু বল যেন জালে ঢুকতে চাইছিল না।

রোনালদোর লাল কার্ডকে ‘অদ্ভুত’ বলেছেন পিয়ানিচ, ‘ফুটবল একটা আজব খেলা। শুরুর সময়টার পর আমরা ৪-০ ব্যবধানে এগিয়ে থাকতে পারতাম। কিন্তু তারপরই ওই অদ্ভুত লাল কার্ডটা এলো।’ যারা মাঠে বা টিভি পর্দায় খেলাটি দেখেছেন তারা হয়ত পিয়ানিচের কথার সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করবেন না। বাঁ প্রান্ত দিয়ে আক্রমণে উঠে জুভেন্টাস। বক্সের সামনে এসময় রোনালদোর পাহারায় থাকা জেইসন মুরিল্লো নিজে থেকেই পড়ে যান। কিন্তু ভানটা এমন করেন যেন রোনালদো তাকে ফেলে দিয়েছেন। অবশ্য এখানেও সমস্যা ছিল না। সমস্যা বাধে এসময় বিরক্ত হয়ে মুরিল্লোর মাথায় রোনালদো খোঁচা দিলে। আসলে পর্তুগিজ তারকা তাকে উঠে দাঁড়ানোর তাগিদ দিচ্ছিলেন। কিন্তু রেফারির কাছে তা মোটেও ভালো ঠেকেনি। মাঠের রেফারি সহকারি রেফারির সহায়তা নিয়ে সরাসরি লাল কার্ড দেখিয়ে দেন রোনালদোকে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ইতিহাসে যা তার (১৫৪ ম্যাচে) প্রথম লাল কার্ড আর ক্যারিয়ারের ১১তম।

তবে রোনালদোর এই সাজা আরো বড় হয়ে আসতে পারে বলে গনমাধ্যমের খবর। সরাসরি লাল কার্ড হওয়ায় নূন্যতম দুই ম্যাচ এমনকি তিন ম্যাচও নিষিদ্ধ হতে পারেন বলে খবর ভাসছে। সেক্ষেত্রে ২ অক্টোবর ইয়াং বয়েজ, ২৩ অক্টোবর পুরোনো ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও ৭ নভেম্বর ঘরের মাঠে একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে খেলতে পারবেন না টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতা।
এমন শাস্তি হলে জুভেন্টাসও হয়ত আপিল করবে। সে যাই হোক এমন কঠিন সময়ে গুরুকে পাশে পাচ্ছেন রোনালদো। কোচ মাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রির মতে, ‘শুধু এতটুকুই বলতে পারি রেফারিকে ওই ঘটনায় ভার (ভিএআর) সাহায্য করতে পারত। এমন ঘটনায় ১০ দনের দল নিয়ে খেলাটা হতাশাজনক এবং আমরা ম্যাচটা হারতেও পারতাম। তা ছাড়া আগামী দুই ম্যাচও তাকে পাচ্ছি না।’
উল্লেখ্য, লা লিগা, বুন্দেসলিগা ও সেরি আ’তে ভার প্রযুক্তি ব্যবহার শুরু হলেও প্রিমিয়ার লিগ ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে প্রযুক্তিটির ব্যবহার এখনো শুরু হয়নি। গত রাশিয়া বিশ্বকাপে প্রথমবারের মত এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে ফিফা।



 

Show all comments
  • আজগর ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৩:৪৫ এএম says : 0
    বিষয়টি খুবই কষ্টকর
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর