Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ৩০ আশ্বিন ১৪২৫, ০৪ সফর ১৪৪০ হিজরী

পাবনায় আসা ডেনিস দম্পত্তি নিরাশ হয়ে ফিরে গেলেন

পাবনা থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৪:২১ পিএম

ডেনমার্ক থেকে পাবনায় স্বজনদের খোঁজে আসা ডেনিস দম্পত্তি অবশেষে নিরাশ হয়ে ফিরে গেলেন ডেনমার্কের পথে। বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ডেনিস নাগরিক খুব ছোট বয়সে পাবনার নগরবাড়ী ঘাট এলাকা থেকে প্রায় ৪০ বছর আগে হারিয়ে যান। সেখান থেকে চৌধুরী কামরুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি তাকে ঢাকার একটি অনাথ আশ্রমে দিয়ে আসেন। এই আশ্রম থেকে এক ডেনিস নাগরিক তাকে দত্তক নিয়ে ডেনমার্কে নিয়ে যায়। সেখানে অর্থ-বিত্তে বড় হন মিন্টো। তার নাম হয় মিন্টো কারেস্টেন সোনিক। তিনি সেখানে একজন চিত্র শিল্পী । বিয়ে করেন একজন ডেনিস চিকিৎসক এনিটি হোলমিহেভকে। পুরনো কাগজ-পত্র ঘেটে তিনি বুঝতে পারেন তার দেশ বাংলাদেশ এবং তিনি পাবনা জেলার কোন এক মায়ের সন্তান। স্বজনদের খোঁজে আসা মিন্টো দম্পত্তি ১২ আগস্ট প্রেস কনফারেন্সে তাঁদের পাবনায় আসার কারণ এবং মিন্টো তাঁর হারিয়ে যাওয়ার আবছা স্মৃতি বর্ণনা করেন। এই বর্ণনা ধরে সেই বর্ণনা দিয়ে দলে দলে মানুষজন আসতে থাকেন আত্মজ-পরিচয়ে । তাদের নিয়ন্ত্রণ করতে হিমশিম খেয়েছেন , পাবনার গাইড চার্লস স্বাধীন বিশ্বাস। এই দম্পত্তি ১৭টি পরিবারের সাথে কথা বলেন। একটি পরিবারের সাথে কিছুটা মিল পাওয়া গেলে চাউড় হয়ে যায় তিনি স্বজনদের খুঁজে পেয়েছেন। পরে মিন্টো ক্যারিস্টেনো সেবনিক বুঝতে পারেন, তারা তাঁর কেউ নন।তাঁর সাথে দেখা করতে আসা ১৭টি পরিবারে সাথে তিনি কথা বলেন, ছোট কালের ছবি দেখিয়ে বলেন, দেখেন চিনতে পারেন কিনা ? কেউ সাড়া দেয়নি। এই দম্পত্তির বুঝতে অসুবিধা হয়না এরা তাঁর কেউ নন। তিনি কিভাবে হারিয়ে গেছেন বললে, তাঁরই প্রেস কনফারেন্সে দেয়া বক্তব্য প্রতিধ¦নি তোলেন। এই চিত্র শিল্পী মিন্টো ক্যারিস্টেনের বুঝতে অসুবিধা হয় না এরা টাউটারী করছেন, আত্মীয় হয়ে ডেনমার্কে যাওয়া যায় কিনা ? এর মধ্যে ফয়েজ কুল এক পরিবারকে জোগাড় করে আনেন। তিনি এদের সাথে কোন কথাই বলেননি। যাদের সাথে তিনি এবং তাঁর স্ত্রী কথা বলেছেন কাউকেই তাদের আত্মীয়- স্বজন বলে মনে হয়নি। পাবনার জেলা প্রশাসক মো: জসিম উদ্দিন জানিয়েছেন, তাঁর দপ্তরে ১১টি পরিবার মিন্টো ক্যারিস্টেন সোনিকের আত্মীয় দাবি করে দরখাস্ত জমা দিয়েছেন। মিন্টো ক্যারিস্টেন সোনিক গত বৃহষ্পতিবার পাবনা থেকে চলে গেছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ