Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২০ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

জনগনের হয়রানি বন্ধে রিটার্ন দাখিল সহজীকরণ করতে হবে- প্রধান বিচারপতি

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:৫৪ এএম

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, করের বিস্তৃতি প্রসারের জন্য করবান্ধব সংস্কৃতি চালু করতে হবে। জনগণ যাতে হয়রানি না হয়, সেই লক্ষ্যে রিটার্ন দাখিল ও সম্পদ বিবরণী দাখিলের পদ্ধতি সহজীকরণ করতে হবে। গতকাল শনিবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে মাসিক পত্রিকা করাদালত এর তিন দশক পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত আলোচন সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।
প্রধান বিচারপতি বলেন, বলা হয়, যারা কর দেয় তারাই সমস্যার সম্মূখীন হয়, আর যারা কর দেয়না তাদের কোনো সমস্যা হয়না। এ সংস্কৃতি থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। কর আইন অত্যন্ত ড্রাই এবং জটিল বিষয়। কর আইন হচ্ছে এমবিগুয়াস। আইন যদি এমবিগুয়াস হয় তাহলে সেখানে স্বেচ্ছারিতার সুযোগ থেকে যায়। এবং জনগণ হয়রানির সম্মুখীন হয়। আমাদের দেশের বিদ্যমান কর আইনকে গবেষণা করে আরো সহজীকরণ করা হলে জনগণ কর প্রদানে উৎসাহিত হবে। তাছাড়া বিকল্প বিরোধের মাধ্যমে কর মামলাগুলো নিষ্পত্তি করার ক্ষেত্রে অধিক মনোযযোগী হলে কর তধা রাজস্ব সংক্রান্ত মামলাগুলো দ্রুত নিষ্পত্তি হবে এবং রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি পাবে। কর ব্যবস্থাকে সম্পূর্ণ ডিজিটালাইজড করা এখন সময়ের দাবী।
প্রধান বিচারপতি আরও বলেন, সরকার রাজস্ব আয় বর্ধিত করার উদ্দেশ্যে করনীতি সংস্কারের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। ২০২১-২২ অর্থ বছরে এনবিআর রাজস্বের ৫০ শতাংশ আয়কর খাতে আদায়ের লক্ষ্যে দৃঢ়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। যা সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে। এক দশক আগেও এনবিআর আয়কর খাতে রাজেস্বর মাত্র ২০ শতাংশ আদায় করতো। ইতোমধ্যে সরকার এ হারকে ৩৫ শতাংশে উন্নীতি করেছে। যা আমাদের জন্য আশাব্যঞ্জক এবং পরার্থপরতার অর্থনীতি থেকে আমরা পরিত্রাণ পাচ্ছি। আশা করি কাঙ্খিত সময়ের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিগণিত হবে।
করাদালত পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক আইনজীবী আবু আমজাদের সভাতিত্বে বক্তব্য রাখেন সাবেক বিচারপতি সৈয়দ আমীরুল ইসলাম, বার কাউন্সিলের সদস্য সৈয়দ রেজাউর রহমান, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য মো. সিরাজুল ইসলাম ও ট্যাক্সেস ল’ইয়ার এসোসিয়েশনের সভাপতি মনিরুল হুদা।##

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রধান বিচারপতি

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
৮ ডিসেম্বর, ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ