Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ মার্চ ২০১৯, ১২ চৈত্র ১৪২৫, ১৮ রজব ১৪৪০ হিজরী।

নির্দলীয় নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে-খন্দকার মাহবুব হোসেন

মুসলিম লীগের আলোচনা সভা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:৫৪ এএম

আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে কোনো একটি নির্বাচনও নিরপেক্ষ এবং সুষ্ঠু হয়নি। তাই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নির্দলীয় সরকারের অধীনেই হতে হবে। গতকাল বিকেলে বাংলাদেশ মুসলিম লীগ আয়োজিত ‘নিরপেক্ষ নির্বাচনের পূর্বশর্ত নির্দলীয় সরকার’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ সুপ্রীমকোর্ট বার এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন একথা বলেন। তিনি বলেন গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারসহ জনগনের ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনার জন্য দলমত নির্বিশেষে এই একটি শর্তে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
আলোচনা সভায় বিভিন্ন দলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ বলেন, নিরপেক্ষ নির্বাচনের ব্যাপারে বর্তমান সরকার দেশবাসির আস্থা হারিয়ে ফেলেছে। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতো একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরিকল্পনা করলে, সরকার জনসমর্থন হারিয়ে রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে পড়বে।
বাংলাদেশ মুসলিম লীগের নির্বাহী সভাপতি আব্দুল আজিজ হাওলাদারের সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক এস এইচ খান আসাদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জাতীয় গণতান্ত্রিক আন্দোলন- এনডিএম এর সভাপতি ববি হাজ্জাজ।
আরো বক্তব্য রাখেন মুসলিম লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আতিকুল ইসলাম, বেঙল জাতীয় কংগ্রেসের প্রেসিডেন্ট বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জি. আবুল হোসেন, নিউএজ সম্পাদক মোস্তফা কামাল মজুমদার, বাগসদ-এর সভাপতি শামস্ আল মামুন, ইউডিপির চেয়ারম্যান গাজী মোস্তাফিজুর রহমান, দেশ বাচাঁও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, দলের স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন আবুড়ী, অতিরিক্ত মহাসচিব আকবর হোসেন পাঠান, প্রচার সম্পাদক শেখ এ সবুর, দপ্তর সম্পাদক খোন্দকার জিল্লুর রহমান, আইটি বিষয়ক সম্পাদক কাজী এ এ কাফী, মুসলিম ছাত্রলীগ নেতা মো. সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।
কাজী আবুল খায়ের প্রধান মন্ত্রীরউদ্দেশ্যে বলেন, জাতিকে বিভক্ত করা থেকে বিরত থাকুন। অন্যথায় জাতির ভয়াবহ সর্বনাশ হবে। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে এই পরিস্থিতি থেকে দেশকে রক্ষা করা সম্ভব। তিনি উপস্থিত রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দকে স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন মুসলিম লীগ না থাকলে ১৯৪৭ সালে ভারত বিভক্তি না করলে বাংলাদেশ স্বাধীন হতো না।
##

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ