Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৫ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

দুই মাসে কৃষিঋণ বিতরণ কমেছে

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১:০৫ এএম

কৃষিঋণ বিতরণ আশঙ্কাজনক হারে কমে গেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ প্রতিবেদনে দেখা গেছে, চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরে জুলাই-আগস্ট দুইমাসে কৃষিঋণ বিতরণ হয়েছে দুই হাজার ৯০ কোটি টাকা। যা আগের বছরের এই সময়ের চেয়ে ৭০৩ কোটি ৬৯ লাখ টাকা কম। কমার হার এক-তৃতীয়াংশ।
বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরে কৃষিঋণ বিতরণে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারিত আছে ২১ হাজার ৮০০ কোটি টাকা। সে হিসাবে জুলাই-আগস্ট দুই মাসে ঋণ বিতরণ করার কথা তিন হাজার ৬৩৩ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। সেখানে ব্যাংকগুলো বিতরণ করেছে দুই হাজার ৯০ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে এক হাজার ৫৪২ কোটি ৯৭ লাখ টাকা কম ঋণ বিতরণ করেছে।
তথ্যে দেখা যায়, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর ঋণ বিতরণের হার সব চেয়ে কমে। রাষ্ট্রায়ত্ত আট ব্যাংক পুরো বছরের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে আট শতাংশ বিতরণ করেছে। অন্যদিকে দেশি-বিদেশি বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো বিতরণ করেছে লক্ষ্যমাত্রার ১০ দশমিক ৮৮ শতাংশ। এ সব ব্যাংকের জুলাই-আগস্ট দুই মাসে বিতরণ করার কথা পুরো বছরের লক্ষ্যমাত্রার ১৬ দশমিক ৬৬ শতাংশ।
বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, প্রতিটি বাণিজ্যিক ব্যাংকের মোট বিতরণ করা ঋণের দুই শতাংশ কৃষকদের মাঝে বিতরণ করার কথা। পল্লী অঞ্চলের দারিদ্র্য দূরীকরণে বিভিন্ন প্রকার কর্মসূচিতে ঋণ বিতরণও কৃষিঋণের আওতাভুক্ত। তথ্য অনুযায়ী অন্যান্য ঋণের পাশাপাশি আনুপাতিক হারে কৃষি ঋণ বিতরণ করা বাধ্যতামূলক। যে সব ব্যাংকের পল্লী অঞ্চলে শাখা নেই সে সব বাণিজ্যিক ব্যাংককেও এনজিও লিংকেজের মাধ্যমে নির্দিষ্ট হারে কৃষিঋণ বিতরণ করতে হবে।
এ ক্ষেত্রে সুদ হার নির্ধারিত আছে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথোরিটি (এমআরএ) নির্ধারিত ক্ষুদ্র ঋণ বিতরণে নির্ধারণে যে সুদ হার সেই হার। সরকারের খাদ্য নিরাপত্তা কর্মসূচির সাথে সঙ্গতি রেখে বাংলাদেশ ব্যাংক ২০১০ সালের এ কার্যক্রম শুরু করে। এরপর থেকে প্রতিবছর ক্রমবর্ধমান হারে কৃষিঋণ বিতরণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। সে হিসাবে গতবছর বিতরণ করা ঋণের সাথে ১ হাজার ৪০০ কোটি টাকা যোগ করে ২১ হাজার ৮০০ কোটি টাকা লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ