Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮, ৫ কার্তিক ১৪২৫, ০৯ সফর ১৪৪০ হিজরী

রশিদের পর এবার শাদাব চ্যালেঞ্জ

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১২:০১ এএম

প্রতিপক্ষ দলে একজন লেগ স্পিনার থাকা মানেই জুজুতে পেয়ে বসে বাংলাদেশ শিবিরে। তা সে যে মানের বোলারই হন না কেন। লেগ স্পিনাররা বরাবর সফল বাংলাদেশের বিপক্ষে। পাকিস্তান দলেও আছেন তরুণ মেধাবী লেগ স্পিনার শাদাব খান। অলিখিত সেমি ফাইনালে তিনিই না আবার ভোগান টাইগারদের। শঙ্কাটা থেকেই যায়।

বর্তমান সময়ে সেরা লেগ স্পিনারদের একজন ভাবা হয় শাদাব খানকে। গুগলির ব্যবহারটা খুব ভালোই জানেন এ লেগি। আর গুগলিতে যে বড্ড বেশি দুর্বল বাংলাদেশ। এছাড়াও আরও বেশ কিছু অস্ত্র আছে এ বোলারের। তাই পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে তাকে নিয়ে ভাবতেই হচ্ছে বাংলাদেশের।

তবে শাদাবকে নিয়ে খুব বেশি ভাবছেন না ইমরুল কায়েস। আগের দিন তিনি সামলেছেন হালের অন্যতম সেরা লেগ স্পিনার রশিদ খানকে। ছয় নম্বরে নেমে বেশ সাবলীল ভাবেই ব্যাট করেছেন তিনি। শুধু তিনিই নন, রশিদকে দারুণভাবে সামলেছেন মাহমুদউল্লাহও। তাতে অন্তত সতীর্থরা আত্মবিশ্বাসটা বেড়েছে। তাই শাদাবকে সামলানো যাবে বলেই মনে করেন ইমরুল।

শাদাবের বিপক্ষে খেলার স্মৃতিটা অবশ্য খুব একটা ভালো নয় ইমরুলের। এর আগে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির প্রস্তুতি ম্যাচে তার বলেই আউট হয়েছে তিনি। তারপরও আত্মবিশ্বাসী এ বাঁহাতি, ‘শাদাব খানকে আমি খেলেছি আগে একবার। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে। ওর বলে আউট হয়েছি। আমার কাছে মনে হয়েছে, বিশ্বের এখন ভয়ঙ্কর লেগ স্পিনার রশিদ খান। ওরে পিক করা কঠিন। শাদাব খান অবশ্যই ভালো বোলার। কিন্তু ওর গ্রিপিং গুলো দেখা যায়। পিক করতে পারবেন গুগলি বা লেগ স্পিন।’

ইমরুল তার ক্যারিয়ারের পুরোটা জুড়েই খেলেছেন টপ অর্ডারে। আগের দিন রশিদকে সামলাতেই খেলেছেন ছয়ে। পাকিস্তানের বিপক্ষেও হয়তো শাদাবকে সামলাতে এমন পজিশনেই নামতে পারেন তিনি। লেগ স্পিন সামলানোর বেশ কিছু কৌশলের ব্যবহারের কথা জানালেন এ ব্যাটসম্যান।

রশিদ খানকে যেভাবে সামলেছেন তার বর্ণনায় ইমরুল বললেন, ‘কিছু ট্রিকস ছিল যেগুলো আমি ফলো করেছিলাম ওর (রশিদ খান) বলের গ্রিপিংয়ের। ভিডিও অ্যানালাইসিস দেখছিলাম। বোলিংয়ের সময় আমি ওই জিনিসটা ফলো করছিলাম। হয়তোবা ওই কারণেই আগের থেকে আমি রিড করতে পেরেছিলাম। ও কি করতে চায়, প্রতিটা বলে।’

রশিদ খানকে যখন সামলাতে পেরেছেন তখন শাদাব খানকেও সামলাতে পারবেন এমন আশা করাই যায়। কারণ সা¤প্রতিক সময়ে রশিদের সাফল্যই যে বেশি। তবে কম নয় শাদাবেরও। তারপরও আফগানদের বিপক্ষে দারুণ জয়ের আত্মবিশ্বাসে লড়াইটা ভালো হবে এমন বিশ্বাসই বাংলাদেশের ক্রিকেট প্রেমীদের।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ