Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ০৫ ভাদ্র ১৪২৬, ১৮ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

আ. লীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে হামলায় নিহত ২, আহত ১

বাগেরহাট জেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২ অক্টোবর, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ দ্বদ্বের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় দুইজন নিহত হয়েছেন। এসময় আরও একজন গুরুতর আহত হন। গতকাল সোমবার বিকেলে মোরেলগঞ্জ উপজেলার দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন পরিষদের সামনে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সন্ধ্যায় হামলায় জড়িত থাকার সন্দেহে পুলিশ চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলামসহ দুজনকে আটক করেছে।
নিহতের হলেন, দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনছার আলী দিহিদার ও আওয়ামী লীগের কর্মী শুকুর শেখ (৪২)। এদের মধ্যে আনছার আলী দিহিদার খুলনা মেডিকেল কলেজ নেয়ার পথে মারা যান। আহত বাবলু শেখ দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন তাঁতী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক। তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
হামলায় আহত বাবলু শেখ বলেন, গতকাল সোমবার বিকেলে চেয়ারম্যান ফকির শহীদুল ইসলামের অস্ত্রধারী ক্যাডাররা বাজার থেকে আমাদের জোর করে ইউনিয়ন পরিষদে ধরে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে আমাদের সবাইকে বোরকা পরায়। পরে আমাদের সবাইকে পরিষদ থেকে বাইরে নিয়ে এসে চেয়ারম্যান শহীদুল চিৎকার করে বলতে থাকে আমরা তাকে হত্যা করতে এসেছি। এসময় তার ক্যাডার বাহিনী ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোঠা নিয়ে আমাদের উপর হামলা চালায়।
বাগেরহাট সদর হাসপাতালের চিকিৎসক শেখ রিয়াদুজ্জামান সাংবাদিকদের বলেন, হাসপাতালে আসা সবার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের কোপের চিহ্ন রয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে শুকুর শেখ নামের একজনের মৃত্যু হয়েছে। অন্য দুজনের অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদের খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় বলেন, গতকাল বিকেলে দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফকির শহীদুল ইসলাম তার পরিষদে বসে ছিলেন। এসময় বোরকা পরিহিত তিন চারজন তার কার্যালয়ে ঢুকে চেয়ারম্যানকে হত্যার চেষ্টা করে। এসময় চেয়ারম্যানের সমর্থকরা ছুটে এসে তাদের ধরে ফেলে ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে গনপিটুনী দেয়। এতে শুকুর শেখ নামে একজন নিহত হন এবং দুইজন আওয়ামী লীগ নেতা আহত হয়েছেন। যারা হামলায় আহত হয়েছেন তারা দাবী করছেন ইউপি চেয়ারম্যান ফকির শহীদুল ইসলাম স্থানীয় রাজনৈতিক বিরোধের জেরে পরিকল্পিতভাবে করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনা সত্যতা উদঘাটন করতে চেয়ারম্যান ফকির শহীদুল ইসলামসহ দুজনকে আটক করা হয়েছে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আ. লীগ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ