Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

মধ্যপ্রাচ্যে মহিলা গৃহকর্মীর সংখ্যা কমছে

শামসুল ইসলাম : | প্রকাশের সময় : ২ অক্টোবর, ২০১৮, ১২:০৪ এএম

মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে মহিলা গৃহকর্মী যাওয়ার সংখ্যা দিন দিন কমছে। সউদী আরবে গত বছরের তুলনায় চলতি বছর মহিলা গৃহকর্মী যাওয়ার সংখ্যা অর্ধেকে নেমে এসেছে। বিএমইটির সূত্র মতে, ২০১৫ বৃহৎ শ্রমবাজার সউদী আরবে ২০ হাজার ৯শ ৫২ জন মহিলা গৃহকর্মী চাকুরি লাভ করে। ২০১৬ সনে দেশটি মহিলা গৃহকর্মীর কর্মসংস্থানের সংখ্যা দাঁড়ায় ৬৮ হাজার ২শ ৮৬ জনে। ২০১৭ সনে সউদী আরবে মহিলা গৃহকর্মী চাকুরি নিয়ে গেছে ৮৩ হাজার ৩শ ৫৪ জন। গত জানুয়ারী থেকে আগষ্ট মাস পর্যন্ত দেশটিতে মহিলা গৃহকর্মী চাকুরি নিয়ে গেছে ৪৯ হাজার ৬শ ৪০ জন। মহিলা গৃহকর্মীর সংখ্যা কমে যাওয়ায় মহিলা রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোর মাঝে উদ্বেগ বেড়েছে।
ফোরাব নেতৃবৃন্দ বলেছেন, সউদীতে নির্যাতনের অপপ্রচার বন্ধ এবং খুঁটি-নাটি প্রশ্ন করে বিদেশ গমনেচ্ছু মহিলা কর্মীদের সাক্ষাৎকারে বাদ দেয়া হলে মহিলা গৃহকর্মী প্রেরণে অচলাবস্থার সৃষ্টি হতে পারে। এভাবে সউদীসহ মধ্যপ্রাচ্যে মহিলা গৃহকর্মী যাওয়ার সংখ্যা কমতে থাকলে রেমিট্যান্স খাতে বড় ধাক্কা লাগতে পারে। যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে মহিলা গৃহকর্মী প্রেরণ নিশ্চিত করতে পারলে গৃহকর্মী পাঠানোর সংখ্যা বাড়বে। দীর্ঘ ৯ মাস পর জর্ডানে মহিলা গৃহকর্মী নিয়োগের দ্বার উন্মুক্ত হতে যাচ্ছে।
সউদী আরবে মহিলা গৃহকর্মী যাওয়ার সংখ্যা হ্রাস প্রসঙ্গে দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ গতকাল সোমবার ইনকিলাবকে বলেন, প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় সাক্ষাতকারের মাধ্যমে অনেক যাচাই-বাছাই করে সউদী গমনেচ্ছু মহিলা গৃহকর্মীদের বহির্গগমন ছাড়পত্র দিচ্ছে। এছাড়া বাংলাদেশী মহিলা গৃহকর্মীরা আগের চাইতে বর্তমানে অনেক সচেতন । অনেক মহিলা গৃহকর্মী হুট করেই সউদী আরবে চলে আসতে চাইছে না। এ দুইটি কারণে সউদীতে মহিলা গৃহকর্মী নিয়োগের বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে এসেছে। রাষ্ট্রদূত বলেন, জেদ্দা ও মদিনার শেলটার হোমে কোনো নির্যাতিত প্রবাসী মহিলা গৃহকর্মী নেই। শুধু রিয়াদ শেলটার হোমে ১শ ৮২ জন প্রবাসী মহিলা গৃহকর্মী দেশে ফেরার অপেক্ষায় রয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে গোলাম মসিহ বলেন, কিছু কিছু মহিলা গৃহকর্মী নির্যাতিত হচ্ছে। এর সংখ্যা খুবই কম। তিনি বলেন, বাংলাদেশী মহিলা গৃহকর্মীর ন্যূনতম মাসিক বেতন ১৬০০ রিয়াল (৩২ হাজার টাকা) নির্ধারণের জন্য সউদী কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানিয়েছি।
উল্লেখ্য, বৃহৎ শ্রমবাজার সউদী আরবে দীর্ঘ দিন অঘোষিতভাবে কর্মী নিয়োগ বন্ধ ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যাপক কূটনৈতিক প্রচেষ্টায় ২০১৫ সাল থেকে সউদী আরবে মহিলা গৃহকর্মী ও পুরুষ কর্মী যাওয়া শুরু হয়। সউদী আরবে মহিলা গৃহকর্মী পাঠিয়ে নারী কর্মী প্রেরণকারী রিক্রুটিং এজেন্সীগুলো গত দু’বছরে প্রায় দুইশ কোটি টাকার প্রসেসিং ফি আয় করেছে। সউদী আরবে কর্মরত মহিলা গৃহকর্মীরাও প্রচুর রেমিট্যান্স পাঠিয়ে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বড় অবদান রাখছে।
ফিমেল ওয়ার্কার রিক্রুটিং এজেন্সীস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ফোরাব ) সভাপতি মোঃ টিপু সুলতান বলেন, কতিপয় এনজিওর অপপ্রচারে মধ্যপ্রাচ্যে মহিলা গৃহকর্মী যাওয়ার সংখ্যা কমছে। বিনা খরচে গত দুবছরে প্রায় আড়াই লাখ মহিলা গৃহকর্মী সউদী আরবে চাকুরি লাভ করেছে। তিনি বলেন, জর্ডানে বিগত ৯ মাস মহিলা গৃহকর্মী নিয়োগ বন্ধ ছিল। একজন বাংলাদেশী মহিলা গৃহকর্মীর হাতে জর্ডানের একজন নাগরিক দুঃখজনভাবে খুন হওয়ায় এতো দিন কর্মী নিয়োগ বন্ধ ছিল। জর্ডান সরকার গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশী মহিলা গৃহকর্মী নিয়োগের উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে। জর্ডানের মাশা মর্ডান হাউজ মেইড এপ্লয়মেন্ট কোম্পানী, রিভেরা হ্উাজ মেইড কোম্পানী ও ওরিয়েন্ট হাউজ মেইড কোম্পানী আগামী সপ্তাহ থেকে বাংলাদেশ থেকে মহিলা গৃহকর্মী নিয়োগের ভিসা দিতে শুরু করবে। বায়রার ইসির সদস্য ও একটিভ ম্যানপাওয়ার সার্ভিসের স্বত্বাধিকারী মোহাম্মদ আলী বলেন, একমাস প্রশিক্ষণ দেয়ার পর প্রবাসী মন্ত্রণালয়ের সাক্ষাতকার নিয়ে মহিলা গৃহকর্মীদের নানাভাবে হয়রানি করে অযোগ্য করা হচ্ছে। মেডিকেল সেন্টারগুলোও নানা অজুহাতে সউদী গমনেচ্ছু মহিলা গৃহকর্মীদের আনফিট করে দিচ্ছে। এতে মধ্যপ্রাচ্যে মহিলা গৃহকর্মীর সংখ্যা হ্রাস পাচ্ছে। মহিলা গৃহকর্মীদের ভিসা ওকালা করতেও ১৫ থেকে ২০ দিন সময় লেগে যাচ্ছে। মদিনা ওভারসীজের স্বত্বাধিকারী নাসির উদ্দিন মজুমদার বলেন, সউদী আরবের পরিবেশের সাথে খাপ খাওয়াতে না পেরে অনেক মহিলা গৃহকর্মী ২/১ মাসের পরেই দেশে ফিরে আসছে। এছাড়া দালাল চক্রের প্রতারণার কারণেও অনেক মহিলা গৃহকর্মী সউদী আরবে গিয়ে বেশি দিন টিকে থাকতে পারছে না। তিনি সরকারকে বাস্তবমুখী উদ্যোগ নিয়ে মহিলা গৃহকর্মী যাওয়ার সংখ্যা বাড়াতে অনুরোধ জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মধ্যপ্রাচ্যে


আরও
আরও পড়ুন