Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ১৯ মে ২০১৯, ০৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৩ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

মার্কিন-জাপানি বিজ্ঞানী যৌথভাবে চিকিৎসায় নোবেল পেলেন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২ অক্টোবর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

বিশ্বের স্বাস্থ্যসেবা খাতের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে বিবেচিত ক্যানসার চিকিৎসায় নানা ধরনের থেরাপি প্রচলিত। এ ধারাতেই নতুন সংযোজন হিসেবে হাজির হয়েছে শরীরের নিজস্ব প্রতিরক্ষাব্যবস্থাকে জোরদার করে নতুন এক থেরাপি-পদ্ধতি, যা মূলত বিদ্যমান প্রতিরক্ষাব্যবস্থাকে সম্পূর্ণ স্বাধীনভাবে কাজ করার সুযোগ করে দেওয়ার মধ্য দিয়ে কাজ করে। আর এ পদ্ধতি আবিষ্কার করেই মার্কিন বিজ্ঞানী জেমস পি অ্যালিসন ও জাপানি বিজ্ঞানী তাসুকু হোনজো যৌথভাবে এ বছর চিকিৎসায় নোবেল পুরস্কার জিতে নিয়েছেন।
যেকোনো ধরনের ক্যানসারেরই বিস্তার শুরু হয় অস্বাভাবিক কোষ বিভাজন থেকে। অস্বাভাবিক কোষ বিভাজনের মাধ্যমে শরীরে টিউমার কোষের সৃষ্টি হয়, যা পরে ক্যানসারে রূপ নেওয়ার আশঙ্কা থাকে। শরীরের নিজস্ব রোগ প্রতিরোধের ব্যবস্থা পূর্ণাঙ্গ কার্যকর হলে এই টিউমার কোষ বিনাশ করা সম্ভব। এ বিষয়টির দিকেই মনোযোগ সবচেয়ে বেশি নিবদ্ধ করেন জেমস পি অ্যালিসন ও তাসুকু হোনজো। তারা এ ক্ষেত্রে যুগান্তকারী এক তত্ত¡ হাজির করেছেন, যা ক্যানসার চিকিৎসায় বড় ধরনের অগ্রগতির দ্বার উন্মোচন করেছে। এ জন্য চলতি বছর চিকিৎসায় নোবেল পুরস্কারে ভ‚ষিত করা হয়েছে এই দুই গবেষককে। গতকাল সোমবার সুইডেনের কারোলিনস্কা ইনস্টিটিউট চলতি বছরের চিকিৎসায় নোবেল ঘোষণা করে।
অ্যালিসন যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাস এমডি অ্যান্ডারসন ক্যান্সার সেন্টারের অধ্যাপক। আর হোনজো ১৯৮৪ সাল থেকে জাপানের কিয়োটো ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক।
এ বছর সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে না বলে জানিয়েছে সুইডিশ একাডেমি। ২০১৯ সালে সাহিত্যে দুটি পুরস্কার দেওয়া হবে। একটি ২০১৮ সালের জন্য, অপরটি ২০১৯ সালের। সুইডিশ একাডেমির সদস্যদের (যৌন কেলেঙ্কারি) স্ক্যান্ডাল ও অর্থনৈতিক অনিয়মের অভিযোগের প্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।
ডায়নামাইটের আবিষ্কারক ও ব্যবসায়ী স্যার আলফ্রেড বার্নার্ড নোবেল ১৯০১ সালে নোবেল পুরস্কার প্রবর্তন করেন। এরপর প্রতিবছর চিকিৎসাবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। দুই বিশ্বযুদ্ধের সময়ে কয়েক বছর করে বিরতির পরে চিকিৎসাবিজ্ঞানে এবার পর্যন্ত মোট ১০৯ বার দেওয়া হয়েছে নোবেল পুরস্কার। সর্বশেষ ২০১৭ সালে চিকিৎসায় নোবেল পুরস্কার পেয়েছিলেন তিন মার্কিন বিজ্ঞানী। তারা হলেন জেফ্রি হল, মাইকেল রসবাশ ও মাইকেল ইয়ং। কোষ কীভাবে সময়ের হিসাব করে সেই পদ্ধতি আবিষ্কারের জন্য তাদের পুরস্কার দেওয়া হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চিকিৎসা


আরও
আরও পড়ুন