Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেল!

লক্ষীপুর আঞ্চলিক অফিস: | প্রকাশের সময় : ৪ অক্টোবর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

লক্ষীপুর সদর উপজেলায় অভিযান চালিয়ে জাফর হোসেন ও জাহিদ হাসান বাবু নামে দুই যুবককে দুইটি অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করছে পুলিশ।

গতরাতে উপজেলার হামছাদি ইউনিয়নের বিজয়নগর এলাকায় একটি বাড়ি থেকে অস্ত্রসহ তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত জাফর হোসেন,জাহিদ হাসান বাবু,হুমায়ুন কবির ও সুমনসহ চারজনকে আসামী করে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এসআই গনেশ বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। গ্রেফতারকৃত হলেন, নন্দনপুর গ্রামের নুর নবীর ছেলে মো. জাফর ও উত্তর হামছাদি গ্রামের অজি উল্যাহর ছেলে জাহিদুল ইসলাম বাবু ।

পুলিশ জানায়, বিজয়নগর এলাকার সুজনের ঘরে অস্ত্র ও ইয়াবা রয়েছে বলে তথ্য দেয় জাফর। পরে পুলিশ জাফরকে নিয়েই সেখানে অভিযানে যায়। কিন্তু অভিযান চলার এক পর্যায়ে তথ্যদানকারি জাফরকেই পুলিশের সন্দেহ হয়। তাতেই জাফরকে আটক করে পুলিশ এবং তার দেহে লুকিয়ে রাখা দুইটি পাইফগান উদ্ধার করে। এরপর জাফরের তথ্যমতে জাহেদুল ইসলাম বাবুকে আটক করা হয়।

আটককৃত বাবুর ভগ্নিপতি হুমায়ুনের সাথে সুজনের বিরোধ চলছে। তাই সুজনকে ফাসানো জন্যই বাবুুর মাধ্যমে জাফরকে ব্যবহার করে। কিন্তু অপরকে ফাঁসাতে গিয়ে জাফর নিজেই ফেঁসে গেল। সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: লোকমান হোসেন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযানে যায় পুলিশ। কিন্তু অভিযান চলাকালীন তথ্যদানকারিকে সন্দেহ করে চেক করলে তার কাছে থেকে দুইটি পাইফগান পাওয়া যায়। পরে তার তথ্যমতে জাহেদুল ইসলাম বাবুকে আটক করা হয়। এ ঘটনার সাথে জড়িত আরো দুইজন এখনো পলাতক রয়েছে। আটককৃত দুইজনসহ ৪জনকে আসামী করে থানায় অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গ্রেপ্তার


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ