Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ফেরার লড়াইয়ে তামিম

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ অক্টোবর, ২০১৮, ১২:০১ এএম

দীর্ঘ অধ্যাবসায়, কঠোর নিয়মানুবর্তিতা আর অক্লান্ত প্রচেষ্টায় মুটিয়ে যাওয়া শরীরটা বাগে আনিয়েছেন বহু কষ্টে। অফ ফর্মের সঙ্গে ঝুঝতে থাকা ব্যাট হাতে ঝিমিয়ে পড়া মারদাঙ্গা ইমেজটাও ফিরে পেয়েছেন সম্প্রতী। পুরনো সেই ‘কষ্টের জীবনে’ আর ফিরে যেতে চান না তামিম ইকবাল। আঙুলের ইনজুরি নিয়ে তো আর শরীরকে বসিয়ে রাখা যায় না! তাইতো, পুনর্বাসন প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচে বাঁ হাতের ইনজুরিতে পড়া এই ওপেনারের। ইংল্যান্ডের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী প্রাথমিকভাবে তিন সপ্তাহের রিহ্যাভ করছেন তিনি। এই সময়ে সন্তোষজনক উন্নতি হলেই শুরু হবে তার ব্যাটিং অনুশীলন।

এশিয়া কাপে থেকে চোট নিয়ে দেশে ফেরার পর তামিম উড়ে যান ইংল্যান্ডে। সেখান থেকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে এসেছেন তিনি। তার পরামর্শ অনুযায়ী তামিমের পুরো পুনর্বাসন প্রক্রিয়া সাজিয়েছেন বিসিবির চিকিৎসক ডা. দেবাশীষ চৌধুরী।

গতকাল মিরপুরে জিমে বেশ কিছুক্ষণ সময় কাটান ড্যাশিং এই ওপেনার। হাতে ব্যাÐেজ নিয়েই চালিয়েছেন হালকা ফিটনেস ট্রেনিং ও হাতের থেরাপি। পরে তামিমের হাতের সব হালনাগাদ সাংবাদিকদের জানান ডা. দেবাশীষ, ‘ওর হাতের সমস্যা নিয়ে ইংল্যান্ডের সাউথাম্পটনের হ্যান্ড সার্জনের সঙ্গে দেখা করেছে, উনার পরামর্শ অনুযায়ী আমরা রিহ্যাভ প্ল্যান ঠিক করেছি। এখন আমাদের ফিজিও থেরাপিস্টরাই কাজ করছে, সেই গাইডলাইন অনুসরণ করছে।’

গত মাসে আরব আমিরাতে হওয়া এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে উদ্বোধনী ম্যাচের দিনই সুরাঙ্গা লাকমালের বলের আঘাতে বাঁ হাতে একাধিক জায়গায় চিড় ধরে তামিমের। সেই অবস্থায় ওইদিন শেষ দিকে এক হাতে ব্যাট করে আলোচিত হয়েছিল এই ওপেনার। দুবাইতে জার্মান চিকিৎসককে দেখিয়ে তার দুদিন পরই দেশে ফেরেন তামিম। ঝুঁকি এড়াতে উড়ে যান ইংল্যান্ডে।

চোটের সময় থেকে অন্তত চার-পাঁচ সপ্তাহের একটা রিহ্যাভ প্রক্রিয়া ছিল। তার মধ্যে কিছু দিন চলে যাওয়ায় আরও সপ্তাহ তিনেক চলবে এভাবেই। তারপর পর্যবেক্ষণ করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানান দেবাশীষ, ‘আগামী সপ্তাহ তিনেকের মতো এভাবেই চালানোর পরিকল্পনা করেছি। ২০ অথবা ২৫ তারিখের দিকে ওকে আমরা আবার পর্যবেক্ষণ করব। এসেসমেন্টের পরে যদি দেখা যায় ওর হাতের ফাংশনালিটি পুরো ফিরে এসেছে তাহলে ক্রিকেট এক্টিভিটি শুরু করব। আর যদি দেখা যায় উন্নতি সন্তোষজনক নয় তখন হয়ত আবার রিভিউ করতে হবে। আপাতত সপ্তাহ তিনেকের মতো সময় লাগবে প্রাথমিক রিহ্যাভ সম্পন্ন করতে।’
তিন সপ্তাহের পর্যবেক্ষণে থাকায় তামিম নিশ্চিতভাবে মিস করবেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ। টেস্ট সিরিজে তাকে পাওয়া যাবে কিনা তাও নির্ভর করছে পরিস্থিতির উপর।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তামিম

২৫ অক্টোবর, ২০১৯
৪ অক্টোবর, ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন